নাট্যাঙ্গনে চলছে উৎসবের মৌসুম

শনিবার, ৩০ নভেম্বর ২০১৯

নভেম্বর মাসজুড়ে নাট্যাঙ্গনে একের পর এক নাট্যোৎসব যেন লেগেই আছে। একটা উৎসব শেষ হতে না হতেই আরেক নাট্যোৎসব শুরু। সব মিলিয়ে জমজমাট এখন ঢাকার নাট্যাঙ্গন। গত ২৬ নভেম্বর আগারগাঁও এর মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরে শেষ হলো বটতলা রঙ্গমেলা ২০১৯। পাঁচ দেশের শিল্পীদের নিয়ে গত ১৬ নভেম্বর থেকে ১১ দিনব্যাপী বটতলা রঙ্গমেলা অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশের দুটিসহ ভারত, স্পেন, ইরান, নেপালের আটটি নাট্যদল তাদের নাটক পরিবেশন করেছে রঙ্গমেলায়। প্রতিদিন বহিরাঙ্গনে ‘নাদিম মঞ্চে’ নাটক, গান, পারফরমেন্স আর্ট, কবিতা, মূকাভিনয়, নাচসহ বিভিন্ন আনন্দ আয়োজনে বর্ণাঢ্য এক যজ্ঞ অনুষ্ঠিত হয়। রঙ্গমেলায় বিশেষভাবে প্রশংসিত হয়েছে অন্তরালের শিল্পীদের সম্মাননা পর্ব। মঞ্চনাটকে দীর্ঘদিন ধরে নেপথ্যে যারা কাজ করছেন এমন ১০ জন শিল্পীকে রঙ্গমেলায় সম্মাননা জানানো হয়। তারা হলেন আলোক সরবরাহকারী আব্দুল মালেক, আলোক সহযোগী শামীমুর রহমান, বজলুর রহমান, মনির হোসেন, মীর মোহাম্মদ বাদল, রূপসজ্জাশিল্পী আলী বাবুল, শুভাশিষ দত্ত তন্ময়, মঞ্চ সহযোগী কামাল হোসেন, মনির হোসেন এবং শব্দ সহযোগী উজ্জ্বল চন্দ্র সরকার। এ ছাড়া ৮ বিভাগের আটজন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বকে বিশেষ সম্মাননা জানানো হয়। বটতলা রঙ্গমেলা শেষ হওয়ার পরপরই গত বৃহস্পতিবার, ২৮ নভেম্বর থেকে জাতীয় নাট্যশালায় শুরু হয়েছে নাট্যধারার ২৭ বছর পূর্তি উপলক্ষে তিন দিনের নাট্যোৎসব। এই আয়োজনের প্রথম দিন মঞ্চস্থ হয় আয়োজক নাট্যদলের নাটক ‘উজান ভাইটাল কইণ্যা’। গতকাল উৎসবের দ্বিতীয় দিন শুক্রবার সন্ধ্যায় মঞ্চস্থ হয় ভারতের ইফটা নাট্যদলের নাটক ‘ডিয়ার পাপা’। আজ শনিবার শেষ হবে তিনদিনের এই উৎসব। সমাপনী সন্ধ্যায় মঞ্চায়ন হবে নাট্যধারার নাটক ‘চার্লি’।

অন্যদিকে গতকাল শুক্রবার থেকে জাতীয় নাট্যশালায় সাত তরুণ নির্দেশকের নতুন নাটক নিয়ে নাগরিক নাট্য সম্প্রদায়ের আয়োজনে শুরু হয়েছে ‘নতুনের উৎসব’। নাগরিক ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে দেশের পাঁচজন তরুণ নির্দেশককে প্রণোদনা দিয়েছে। তাদের নাটক নিয়েই মূলত এই উৎসব। প্রণোদনা পাওয়া নাটক ছাড়াও নাগরিকের একটি এবং মোস্তাফিজ শাহীনের নির্দেশনায় আরেকটি নাটক উৎসবে মঞ্চস্থ হবে। ‘নতুনের উৎসব’ এর আহ্বায়ক সারা যাকের বলেন, নতুন প্রজন্মের সাতজন নাট্যনির্দেশক সাতটি নতুন মঞ্চনাটক নির্দেশনা দিচ্ছেন। নাগরিক নাট্য সম্প্রদায়ের এই উদ্যোগ

বাংলাদেশের থিয়েটার চর্চায় মেধা ও নান্দনিকতার প্রসারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।’

নাগরিক নাট্য সম্প্রদায়ের প্রযোজনায় নতুন নাটক নির্দেশনা দিলেন পান্থ শাহরিয়ার। ‘কালো জলের কাব্য’ নামের এ নাটকটি মঞ্চে এনেছে দলটি। এ নাটকের মাধ্যমে দুই দশকের বেশি সময় পর নতুন নাটকে মঞ্চে অভিনয় করেন আসাদুজ্জামান নূর। উইলিয়াম শেক্সপিয়ারের লেখা ‘মার্চেন্ট অব ভেনিস’ থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে কালো জলের কাব্য নাটকটি লেখা। আসাদুজ্জামান নূর ছাড়াও এতে অভিনয় করেন অপি করিম, মোস্তাফিজ শাহিন, পান্থ শাহরিয়ারসহ অনেকে। সঙ্গীত পরিকল্পনা করেন আহসান রেজা তুষার, সেট করছেন সাইফুল ইসলাম আর আলোক পরিকল্পনা করছেন নাসিরুল হক।

অন্যদিকে শুভাশিস সিনহার নির্দেশনায় মঞ্চে আসছে ‘ও মনপাহিয়া’ নামের আরেকটি নাটক। এ নাটকটি মঞ্চে আনছে মণিপুরি থিয়েটার। এ ছাড়া সুনামগঞ্জের বন্ধন থিয়েটার ও প্রসেনিয়াম থিয়েটার যৌথভাবে মঞ্চে আনছে শামীম সাগরের নির্দেশনায় ‘রাধারমণ’। নাগরিক নাট্যাঙ্গন মঞ্চে আনছে হৃদি হকের নির্দেশনায় ‘আকাসে ফুইটেছে ফুল- লেটো কাহন’।

পরিসর মঞ্চে আনছে সাইদুর রহমান লিপনের নির্দেশনায় ‘অরূপ রতন’। প্রাচ্যনাট মঞ্চে আনছে কাজী তৌফিকুল ইসলাম ইমনের নির্দেশনায় ‘খোয়াবনামা’ এবং মোস্তাফিজ শাহীনের নির্দেশনায় মঞ্চে আসছে ‘লটারি’।

:: হেমন্ত প্রাচ্য

মেলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj