টুকি-টাকি

শনিবার, ৩০ নভেম্বর ২০১৯

৪০ বছর পর ক্ষমা

কাগজ ডেস্ক : অ্যান্টার্কটিকায় একটি যাত্রীবাহী বিমান বিধ্বস্তের ঘটনায় ৪০ বছর পর ক্ষমা চাইলো নিউ জিল্যান্ড সরকার। বৃহস্পতিবার দেশটির প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আরডেন দেশটির ইতিহাসে সবচেয়ে বিপর্যয়কর ঘটনাটি নিয়ে তৎকালীন সরকারের কর্মকাণ্ডের জন্য ক্ষমা প্রার্থনা করেন। ১৯৭৯ সালের ২৮ নভেম্বর অ্যান্টার্কটিকার আগ্নেয়গিরি মাউন্ট এরবাসের পাশে ২৫৭ আরোহী নিয়ে এয়ার নিউ জিল্যান্ডের ফ্লাইট ৯০১ বিধ্বস্ত হয়। এদের মধ্যে ২৩৭ ছিলেন যাত্রী এবং ২০ জন ক্রু। নিহতদের অধিকাংশই ছিলেন নিউ জিল্যান্ডের নাগরিক। অন্যদের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, জাপান ও অস্ট্রেলিয়ার নাগরিক ছিলেন। দুর্ঘটনার জন্য ওই সময় প্রাথমিকভাবে পাইলটদের দায়ী করা হয়েছিল। তবে জনগণের তীব্র সমালোচনার মুখে দুর্ঘটনার কারণ তদন্তে রাজকীয় কমিশন গঠন করা হয়। তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়, ক্রুদের কোনো পরামর্শ না দিয়েই বিমান চালনা ব্যবস্থায় পরিবর্তন এনেছিল এয়ার নিউ জিল্যান্ড। বিমান সংস্থাটির কর্মীরা ভুয়া সাক্ষ্য-প্রমাণ সরবরাহের চেষ্টা করেছিল বলেও অভিযোগ করেছিলেন তদন্ত কমিটির প্রধান সাবেক বিচারক পিটার ম্যাহন।

৩০ সেকেন্ডে ২২৮ বার লাফ

কাগজ ডেস্ক : চীনের সাংহাইয়ে স¤প্রতি আয়োজিত হয়েছিল ইন্টারন্যাশনাল জাম্প রোপ প্রতিযোগিতা। এই প্রতিযোগিতায় দড়ি লাফিয়ে নতুন গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড গড়লেন চীনের দুই তরুণ। ইউটিউবে প্রকাশ হওয়ার পরই ভাইরাল হয়ে যায় তাদের লাফানোর ভিডিও দুটি। ওই প্রতিযোগিতায় ষষ্ঠ ডাবল ডাচ কনটেস্টে রেকর্ড করেন চীনা তরুণ ওয়াং শিসেন। মাত্র ৩০ সেকেন্ডে জোড়া পায়ে তিনি লাফিয়েছেন ১০০ বার! বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে যোগ দেওয়া প্রায় ৪০০ জন প্রতিযোগীকে হারিয়ে এই রেকর্ড গড়েছেন তিনি। গত ২৩ নভেম্বর ইউটিউবে ভিডিওটি প্রকাশ করে নিউ চায়না টিভি। ওই প্রতিযোগিতার আর একটি ইভেন্টে রেকর্ড করেছেন ১৭ বছরের তরুণ সেন ঝাউলিং। সাংহাইয়ের ওই প্রতিযোগিতায় এক পায়ে লাফের ইভেন্টে ৩০ সেকেন্ডে তিনি ২২৮ বার লাফিয়েছেন, যা সর্বোচ্চ। ২০১৬-তে তিনি ২০৮ বার লাফিয়েছিলেন।

কে আগে ধর্ষণ করবে তা নিয়ে খুনোখুনি

কাগজ ডেস্ক : তিন সন্তানের জননী বিধবা এক নারীকে রাস্তা থেকে তুলে জঙ্গলে নিয়ে যাওয়ার পর কে আগে ধর্ষণ করবে তা নির্ধারণ করতে মারামারি লেগে যায় পাঁচ অপহরণকারীর মধ্যে। এ ঘটনায় প্রথমে ধর্ষণ করতে চাওয়া এক অপহরণকারীকে পিটিয়ে মেরে ফেলেছে অপর চারজন। এরপর ওই নারীকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে অপহরণকারীরা। ধর্ষণ শেষে সংজ্ঞা হারিয়ে ফেলা ওই নারীর পাশেই নিহত অপহরণকারীর মরদেহ রেখে পালিয়ে যায় বাকিরা। চাঞ্চল্যকর এ গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে ভারতের তামিলনাড়ুর কুড্ডালোর জেলার নেভেলি এলাকায়। টাইমস অব ইন্ডিয়া বলছে, তামিলনাড়ুর নেভেলিতে ৩২ বছরের এক বিধবা নারীকে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় জড়িত চার সন্দেহভাজন ধর্ষককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ওই চারজনের বিরুদ্ধে তাদেরই এক সঙ্গীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ রয়েছে। পুলিশ বলছে, রাস্তা থেকে ওই নারীকে নিজেদের হেফাজতে নিয়ে যাওয়ার পর কে আগে ধর্ষণ করবে তা নিয়ে তর্ক-বিতর্কের পর মারামারি শুরু হয়।

ডাটা সায়েন্টিস্ট পদে ৭ম শ্রেণির ছাত্র

কাগজ ডেস্ক : ভারতের হায়দরাবাদের একটি সফটওয়্যার কোম্পানি ডাটা সায়েন্টিস্ট পদে স¤প্রতি একজনকে নিয়োগ দিয়েছে। যাকে এই পদে কোম্পানিটি নিয়োগ দিয়েছে তার নাম সিদ্ধার্থ শ্রীবাস্তব পিল্লি। মাত্র ১২ বছর বয়সী সিদ্ধার্থ হায়দরাবাদের একটি স্কুলের সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী। কিন্তু নতুন মানদণ্ড স্থাপন করায় সে ওই পদে নিয়োগ পেয়েছে। হিন্দুস্তান টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, হায়দরাবাদের মন্টাইগনে স্মার্ট বিজনেস সল্যুশনস সফটওয়্যার কোম্পানিতে সিদ্ধার্থকে ডাটা সায়েন্টিস্ট হিসেবে নিয়োগ করা হয়েছে। কোম্পানি ও সদ্য নিয়োগ পাওয়া ডাটা সায়েন্টিস্ট ওই নিয়োগের কথা নিশ্চিত করেছে।

দূরের জানালা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj