গঙ্গা পেরিয়ে পদ্মার দেশে

শনিবার, ৩০ নভেম্বর ২০১৯

‘পাসওয়ার্ড’-এর নতুন ঠিকানা খুঁজতে এপাড়ে এসেছিলেন দেব। সঙ্গে ছিলেন নায়িকা রু´িণী। কমলেশ্বর মুখোপাধ্যায় পরিচালিত ‘পাসওয়ার্ড’ গতকাল ২৯ নভেম্বর মুক্তি পেয়েছে বাংলাদেশে। সে উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলনে যোগ দিতেই গোটা টিমের বাংলাদেশে আসা। শুধু দেব-রু´িণীই নন, হাজির হয়েছিলেন পরিচালক নিজেও। এবার দুর্গাপূজাতে কলকাতায় যে ৪টি বাংলা ছবি মুক্তি পেয়েছিল তার মধ্যে অন্যতম ‘পাসওয়ার্ড’। টানটান উত্তেজনা, সাসপেন্সে মাখা এই ডার্ক থ্রিলারটি মন জয় করেছিল ওপাড়ের দর্শকদের। ছবিটিতে দেখা গিয়েছিল পরমব্রত চট্টোপাধ্যায় এবং পাওলি দামকেও। সবার নজরকাড়া অভিনয় পছন্দ করেছিলেন দর্শকরাও। এবার গঙ্গা পেরিয়ে ‘পাসওয়ার্ড’ পৌঁছে গেল পদ্মার দেশে। পাসওয়ার্ডে দেবের চরিত্রটি একজন পুলিশ অফিসারের। নেট দুনিয়ার কালো জগৎকে বড়পর্দায় তুলে ধরতেই কমলেশ্বর মুখোপাধ্যায় বানিয়েছিলেন ছবিটি। নিজেদের অজান্তেই মানুষ যে কতভাবে সাইবার জালে পা দিয়ে ফেলছে তা-ই তুলে ধরেছিলেন পরিচালক। ছবির প্রচারণায় এসে আরেকটি সুখবরও দেন দেব। সংবাদ সম্মেলনে দেব তার নতুন ছবি ‘মিশন সিক্সটিন’র ঘোষণা দেন। সম্পূর্ণ বাংলাদেশের ব্যানারে এই ছবিটি প্রযোজনা করছে শাপলা মিডিয়া। অনুষ্ঠানে দেব বলেন, আমি সবসময় বিশ্বাস করি বাংলাদেশ আমার দ্বিতীয় বাড়ি। খুব বেশি আসার সুযোগ পাইনি। কিন্তু যতবারই এসেছি দেখেছি, এখনকার মানুষ এতটাই ভালো, কতটা আপ্যায়ন করেন যে- পৃথিবীজুড়ে এই ভালো লাগাটা আর কোথাও পাইনি, যতটা বাংলাদেশে পেয়েছি। ধন্যবাদ বাংলাদেশ। আমার মনে হয় যতটা না আমি পশ্চিমবঙ্গে পেয়েছি, তার চেয়ে বেশি ভালোবাসা ও আশীর্বাদ আমি বাংলাদেশ থেকে পেয়েছি। আমার সিনেমা এখানে মুক্তি পাক আর না পাক। আমাদের ভাষা এক, আমাদের আবেগ এক, আমাদের সবকিছু এক। তাহলে কেন আমরা দুই বাংলায় একসঙ্গে সিনেমা মুক্তি করতে পারি না? দুই বাংলার ইন্ডাস্ট্রিকে বাঁচাতে হলে সবসময়, একইদিনে দুই বাংলায় সিনেমা মুক্তি দিতে হবে। দেব আরো বলেন, এবার আমাদের এক হয়ে লড়াই করতে হবে বাঙালিয়ানা রক্ষার জন্য। বাংলা ভাষার সিনেমা রক্ষার জন্য আমাদের এক হওয়ার কোনো বিকল্প নেই। ‘পাসওয়ার্ড’ নিয়ে তিনি বলেন, সিনেমাটি আগেই কলকাতায় মুক্তি পেয়েছে। ভালো লাগত একই সময় যদি বাংলাদেশেও মুক্তি পেত। তবে দেরিতে হলেও বাংলাদেশে মুক্তি পাচ্ছে। আমার বিশ্বাস দর্শক সিনেমাটি ভালোভাবে উপভোগ করবেন। এর আগে যৌথ প্রযোজনার সিনেমার অনেক প্রস্তাব পেয়েছি। কিন্তু আমার স্বপ্ন ছিল বাংলাদেশের সিনেমা করার। তাই প্রথমবার শুধুমাত্র বাংলাদেশের প্রযোজিত সিনেমা অভিনয় করতে যাচ্ছি। এর পুরো টিম থাকবে বাংলাদেশের। আমি শুধু থাকব কলকাতা থেকে। সিনেমাটি নাম ঠিক করা হয়েছে ‘মিশন সিক্সটিন’। সব ঠিক থাকলে মুক্তি দেয়া হবে আগামী বছর ঈদে।

এদিকে দেব তিনবার বাংলাদেশে এলেও প্রথমবারের মতো এ দেশে আসেন রু´িণী। জানালেন, ভ্রমণ করতে এবং বিভিন্ন দেশের খাবার খেতে ভীষণ পছন্দ করেন তিনি। এদেশে এসে তাই উচ্ছ¡সিত। সবাইকে ‘পাসওয়ার্ড’ দেখার জন্য অনুরোধও করলেন। আরো জানালেন বাংলাদেশের সিনেমায় কাজ করতে আপত্তি নেই তার। গল্প ভালো হলে, ব্যাটে-বলে মিললে তিনি সরাসরি মুখ দেখাবেন এ দেশের পর্দায়।

অন্যদিকে এ দিন শাপলা মিডিয়ার কর্ণধার সেলিম খান অনুষ্ঠানে ছিলেন না। গণমাধ্যমকর্মীরা দেবকে প্রশ্ন করেন সেলিম খানের বিরুদ্ধে ক্যাসিনো কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগ আছে। বাংলাদেশের শাকিব খান এই প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের ছবি ছেড়ে দিয়েছেন। বিষয়টি দেব জানেন কিনা? জবাবে এই নায়ক বলেন, যদি কোনো সমস্যা থাকে দেশের আইন সেটি দেখবে। বাংলাদেশের আইন শক্তিশালী। আমি সিনেমাপ্রেমী লোক। আমাকে যে গল্পটা দেয়া হয়েছে ভীষণ ভালো লেগেছে। যদি আগামীদিনে কিছু হয় আমি নিজেও এমপি ফলে চাইব না অন্যায়ভাবে কাজ করতে। বাংলাদেশে ছবিটির সফলতার ব্যাপারে আশাবাদীর কারণ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে দেব বলেন, আমি এখনো বলিনি ছবিটি বাংলাদেশে বিশাল সফলতা পাবে। পরিচালক-প্রযোজকরা চেষ্টা করেন দর্শক সিনেমা হলে গিয়ে ছবি দেখুক। আমাদের বুড়ো আঙুলের তলায় ৫০০টি টেলিভিশন চ্যানেল আছে। দর্শক যে কোনো সময় যে কোনো দেশের ছবি দেখে থাকেন। আমি যখন বাহুবলি ছবি দেখি তখন আমার মনে হয় কেন আমরা এমন একটা ছবি করতে পারছি না। তবে আমার অনেক ছবি রয়েছে যা সেই অর্থে হয়তো ভালো নয় কিন্তু ব্যবসা করেছে। পাগলুর মতো রিমেক ছবি ব্যবসাও করে আবার কন্টেন্টও দ্রুত বিক্রি হয়ে যায়। কিন্তু আমরা যারা এগিয়ে তারা যদি ভালো কিছু না করার চেষ্টা করি তাহলে ইন্ডাস্ট্রির পরিবর্তন হবে না। দর্শকদের একটা কথাই বলব আপনারা হলে এসে সিনেমা দেখুন তারপর জানান ছবিটি কেমন হয়েছে।

:: শ্রাবণী রাখী

বিনোদন হাইলাইটস'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj