ফের কঙ্গনা ‘ঝড়’

শনিবার, ৩০ নভেম্বর ২০১৯

পরপর দুই চলচ্চিত্রের খবর দিয়ে ফের বলিউড অঙ্গনে আলোড়ন তুলেছেন অভিনেত্রী কঙ্গনা রনৌত। ৩২ বছর বয়সী এই অভিনেত্রী বরাবরই তার সাহসী অভিনয়ের জন্য প্রশংসিত হয়েছেন দর্শক মহলে। একইভাবে তাকে নিয়ে বয়ে গেছে সমালোচনার ঝড়। এবার তিনি সেই ঝড় তুলেছেন তামিল নির্মাতা বিজয় পরিচালিত ‘থালাইভা’ এবং তার প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ‘কুইন অব ঝাঁসি’ থেকে প্রযোজিত ‘অপরাজিত অযোধ্যা’ ছবির সংবাদ দিয়ে। গত ২৩ নভেম্বর থেকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভেসে বেড়াচ্ছে কুইন খ্যাত কঙ্গনা রনৌতের ‘থালাইভি’ ছবির খবর। গত শনিবার ইনস্টাগ্রামে ‘টিম কঙ্গনা রনৌত’ পেজে ছবিটির টিজার প্রকাশিত হয়। সেখানে ছবির ফার্স্ট লুকে কঙ্গনা রনৌতকে দেখা যায় একেবারে অন্য রূপে। কপালে টিপ, চুলে মাঝ সিঁথি ও চেহারার গড়নে ভিন্ন এক কঙ্গনা। বাহুবলি সিরিজের স্রষ্টা কেভি বিজয়েন্দ্র প্রসাদের চিত্রনাট্যে প্রয়াত মুখ্যমন্ত্রী ও অভিনেত্রী জয়ললিতার আত্মজীবনী নির্ভর ‘থালাইভি’ ছবিতে জয়ললিতার ভূমিকায় দেখা যাবে কঙ্গনাকে। ছবির পোস্টারেও কঙ্গনাকে তামিল মুখ্যমন্ত্রী জয়ললিতার সেই চিরচেনা ‘ভি সাইন’ সংবলিত দৃশ্যে দেখা যায়। জানা যায়, এ ছবিতে জয়ললিতার অভিনেত্রী জীবন থেকে একজন রাজনৈতিক নেত্রী হিসেবে আত্মপ্রকাশকে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। তবে ছবিটির টিজার মুক্তির পর থেকে নেটিজেনদের কেউ কেউ বলছেন, ফার্স্ট লুকে যে কঙ্গনা তার সঙ্গে মোটেও মুখ্যমন্ত্রী জয়ললিতার মিল নেই। আবার কেউ বলছেন, ছবিতে এটা জয়ললিতা নাকি স্মৃতি ইরানি? যে ছবিতে অভিনয়ের জন্য কঙ্গনাকে রাতদিন সাধনা করতে হয়েছে তার সঙ্গে কঙ্গনার মিল নেই! এমন সমালোচনার জবাবে কঙ্গনার বড় বোন রাঙ্গোলি চান্দেল এক টুইটে বলেন, যাদের চোখ আছে তারাই এই ব্যতিক্রম গড়নের সৌন্দর্য দেখতে পাবে, যার জন্য রাতকে দিন আর দিনকে রাত করেছে। অন্যদের কথা গুরুত্বহীন। এ ছবিতে অভিনয় করতে গিয়ে কঙ্গনাকে ওজন বাড়াতে হয়েছে, রপ্ত করতে হয়েছে তামিল ভাষা। সবকিছু ঠিক থাকলে আগামী বছর ২৬ জুন তামিল, তেলেগু ও হিন্দি ভাষায় ‘থালাইভা’ মুক্তির কথা রয়েছে। বলিউডের এ অভিনেত্রী চলচ্চিত্র নির্মাণের পাশাপাশি যুক্ত হয়েছেন এবার চলচ্চিত্র প্রযোজনাতেও। কঙ্গনা রনৌতের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান থেকে কেভি বিজয়েন্দ্রের চিত্রনাট্যে ‘অপরাজিত অযোধ্যা’ নামে আরো একটি ছবি নির্মাণের কথা জানান এ অভিনেত্রী। গত মঙ্গলবার কঙ্গনা গণমাধ্যমকে এ খবর দিয়ে চমকে দেন। আর এ ছবি নির্মিত হবে রাম মন্দিরকে কেন্দ্র করে। গত ৯ নভেম্বর রাম মন্দির ও বাবরি মসজিদ বিতর্কে অযোধ্যা মামলার রায়ে ভারতের সুপ্রিমকোর্ট জানিয়েছে, অযোধ্যার বিতর্কিত ২.৭৭ একর জমি ভারত সরকার গঠিত ট্রাস্টকে রাম মন্দির নির্মাণের জন্য হস্তান্তর করা হবে। আর অযোধ্যাতেই মসজিদের জন্য মুসলিম সুন্নি ওয়াক্ফ বোর্ডকে দেয়া হবে ৫ একর বিকল্প জমি। এমন চাঞ্চল্যকর বিষয় নিয়েই এবার কঙ্গনা ছবি বানাবেন বলে ঠিক করেছেন। আগামী বছর এ ছবির কাজ শুরু হওয়ার কথা রয়েছে।

কঙ্গনা রনৌত বরাবরই এমন সব বিষয় নিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণ করতে চান, যে বিষয় নিয়ে অন্যরা কথা বলতে সাহস পান না। ‘অপরাজিত অযোধ্যা’ নিয়ে কঙ্গনা গণমাধ্যমকে বলেন, কয়েকশ বছর ধরে রাম মন্দির তীব্র বিতর্কিত বিষয়। আশির দশকে জন্ম হওয়ায় আমি অযোধ্যার নাম শুনতে শুনতে বেড়ে উঠেছি। যে জমিতে একজন রাজার জন্ম হয়েছিল তিনি ছিলেন ত্যাগের প্রতীক, সেটিই সম্পত্তি বিবাদে পরিণত হয়েছে। এই মামলা ভারতীয় রাজনীতির মুখ বদলে দিয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের রায়ে কয়েকশ বছরের পুরনো বিবাদের নিষ্পত্তি হয়েছে এবং ভারতের ধর্মনিরপেক্ষতা শক্তিশালী হয়েছে। ‘অপরাজিত অযোধ্যা’ ছবিতে দেখানো হচ্ছে, একজন অবিশ্বাসী পরবর্তীকালে বিশ্বাসী হয়ে উঠছে। এই কারণেই ছবিটি আলাদা। এই ছবিতে আমার ব্যক্তিগত জীবনই প্রতিফলিত হয়েছে। সবসময়ই পর্দায় বা পর্দার বাইরে ব্যতিক্রমী ও সাহসী অভিনয়ে জুড়ি নেই এই হিমাচল কন্যার। ইতিহাসনির্ভর চলচ্চিত্র নির্মাণেও রয়েছে তার আলাদা দৃষ্টিকোণ। ‘মণিকর্ণিকা : দ্য কুইন অব ঝাঁসি’ও নির্মিত হয়েছিল ঝাঁসির রানী লক্ষীবাঈয়ের চরিত্রকে কেন্দ্র করে। ২০০৬ সালে ‘গ্যাংস্টার’ সিনেমার মধ্য দিয়ে পর্দায় আসেন কঙ্গনা রনৌত। তারপর ‘কাইটস’, ‘ফ্যাশন’, ‘তানু ওয়াইডস মানু’, ‘কাটি ভাট্টি’সহ একের পর এক চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে সফল অভিনেত্রী কঙ্গনা রনৌত। সম্প্রতি ভারতের তারকা অভিনেতা অমিতাভ বচ্চন এক টিভি শোতে কঙ্গনার প্রশংসা করে বলেন, বর্তমানে ভারতের নাম্বার ওয়ান অভিনেত্রী কঙ্গনা রনৌত। এছাড়া ২০২০ সালে তার পাইপলাইনে বাস্কেটবল প্লেয়ারের জীবনীকে উপজীব্য করে নির্মিত ‘পাঙ্গা’সহ বেশকিছু নতুন ছবি মুক্তির অপেক্ষায় আছে।

:: গোলাম রাব্বি

মেলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj