থানচিতে বিনামূল্যে সার, কীটনাশক বীজ পেলেন ১৭৫ প্রান্তিক চাষি

শনিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৯

থানচি (বান্দরবান) প্রতিনিধি : বান্দরবানে থানচিতে বিনামূল্যে সার, কীটনাশক, ভুট্টা বীজ পেয়েছেন ১৭৫ ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষক।

বাংলাদেশ কৃষি পুনর্বাসন কার্যক্রমে আওতায় উপজেলা চারটি ইউনিয়নের ক্ষুদ্র, প্রান্তিক কৃষক ও প্রকৃত চাষিদের মাঝে বিনামূল্যে ডিএপি সার ৩.২৫০ টন, এমওপি সার ১.৬২৫ টন, ৩০০ কেজি উচ্চ ফলনশীল জাতের ভুট্টা বীজ এবং ২৫০ কেজি চীনা বাদামের বীজ বিতরণ করা হয়েছে।

উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরে আয়োজনে গত মঙ্গলবার সকাল ১০টা উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে ২৫ জন চীনা বাদাম চাষি ও ১৫০ জন ভুট্টা চাষিকে ওইসব সার ও কৃষি উপকরণ বিতরণ করা হয়। ১৫০ জন ভুট্টা চাষি প্রত্যেকে ২০ কেজি ভুট্টা বীজ, ডিএপি সার ১০ কেজি, এমওপি ১০ কেজি এবং ২৫ জন চীনা বাদাম চাষিদের প্রত্যেককে ১০ কেজি চীনা বাদাম বীজ, ডিএপি সার ১০ কেজি, এমওপি সার ৫ কেজিসহ মোট ১৭৫ জন কৃষককে প্রণোদনার উপকরণসহ বিনামূল্যে দেয়া হয়েছে।

এই উপলক্ষে উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণের কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের উপসহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির সঞ্চালনায় বিতরণ অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আরিফুল হক মৃদুল। উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নুমেপ্রæ মারমা প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানের বক্তব্য রাখেন স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরে (এলজিইডি) উপজেলা প্রকৌশলী মো. মাহফুজুল হক, কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগে এএইও মো. নুরুল ইসলাম, থানচি প্রেসক্লাবের সভাপতি মংবোওয়াংচিং মারমা (অনুপম), কৃষি বিভাগের উপসহকারী অফিসাররা উপস্থিত ছিলেন। বক্তারা বলেন, বর্তমান সরকার কৃষি ও কৃষকবান্ধব সরকার। সরকারের পরিকল্পিত উদ্যোগের কারণে দেশ আজ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়েছে। এই এলাকাসহ সরকারের এমন উদ্যোগ সারাদেশে অব্যাহত আছে।

বক্তারা আরো বলেন, বাংলাদেশ কৃষিপ্রধান দেশ। এই দেশের সব কৃষকরা পারে নিত্য প্রয়োজনীয় বিভিন্ন শাক, সবজি, ধান, গম, চালসহ নানা উচ্চ ফলনশীল সব কিছু উৎপাদন করে বাজারজাত করতে। কৃষকরা যতে এই সুবিধা সবসময় পান সেজন্য সরকারের প্রতিনিধিরা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। এর সুফল এই প্রত্যন্ত অঞ্চলের কৃষকরাও পাচ্ছেন। বক্তারা সবাইকে একযোগে কাজ করার আহ্বান জানান।

সারাদেশ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj