আদ-দ্বীন হাসপাতাল : চিকিৎসকদের ভুলে মা ও নবজাতকের মৃত্যুর অভিযোগ

বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯

কাগজ প্রতিবেদক : রাজধানীর আদ্ব-দীন হাসপাতালে চিকিৎসকদের ভুলে মা ও নবজাতকের মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন স্বজনরা। মৃত নারীর নাম আসমা বেগম (৩০)। গত সোমবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে ওই হাসপাতালের লেবার রুমে ডেলিভারির সময় তাদের মৃত্যু হয়। পরে লাশ দুটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) মর্গে পাঠায় পুলিশ। ৩ মেয়ের জননী ছিলেন আসমা।

মৃত আসমার স্বামী ব্যবসায়ী আরিফ হোসেন জানান, তাদের বাড়ি বরিশালের হিজলা উপজেলার শ্রীপুর গ্রামে। বরিশালে চিকিৎসকদের পরামর্শ অনুযায়ী গত ১৭ নভেম্বর সন্তান সম্ভাবা আসমাকে মগবাজারে আদ-দ্বীন হাসপাতালের গাইনি বিভাগে ভর্তি করা হয়। কিছুক্ষণ পরেই শুরু হয় বিভিন্ন পরীক্ষা নিরিক্ষা। পরে চিকিৎসকরা তাদের জানায় প্রথমে নরমালে ডেলিভারির চেষ্টা করা হবে। যদি না হয়- সিজার করা হবে। এরপর সোমবার সন্ধ্যা ৭টায় আসমাকে ইনজেকশন দিয়ে প্রসব বেদনা উঠিয়ে লেবার রুমে নিয়ে যায়।

এসময় স্বজনরা সিজার করার কথা বলেন চিকিৎসকদের। তবে তারা তখনও সিজার করতে রাজি হননি। নরমালেই ডেলিভারি হবে বলে জানায়। এরপর লেবার রুমে সাড়ে ৭ ঘণ্টা চেষ্টা করেন চিকিৎসকরা। এসময় আসমার প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়। পরে রাত আড়াইটার দিকে একটি মৃত মেয়ে সন্তান প্রসব করে মারা যান আসমা।

আরিফ হোসেন অভিযোগ করে বলেন, প্রথমেই যদি আসমার সিজার করা হতো তাহলে বাচ্চা ও মা কেউই মারা যেত না। চিকিৎসকদের অবহেলা ও ভুল সিদ্ধান্তের কারণেই তাদের মৃত্যু হয়েছে। আমরা রমনা থানায় মামলা করেছি। রমনা থানার এসআই দুলাল চন্দ্র কুন্ড বলেন, ডেলিভারির সময় আসমা ও তার মেয়ে সন্তানের মৃত্যু হয়েছে। পরিবারের অভিযোগ থাকায় দুটি মৃতদেহের উদ্ধার করে ঢামেক মর্গে ময়না তদন্ত করা হয়েছে।

পরে পরিবারের কাছে মৃতদেহ বুঝিয়ে দেয়া হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে বলে জানান এসআই।

এই জনপদ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj