ডেভিড ভিয়ার অবসর ভাবনা

মঙ্গলবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৯

বর্তমান সময়ের সেরা ফুটবলারদের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে ‘ডেভিড ভিয়া সানচেজ’। ৩৭ বছর বয়সী স্পেনের নাগরিক ডেভিড ভিয়া জাপানিস ক্লাব ভেসেল কবের স্ট্রাইকার ফুটবলার। তার ডাক নাম হচ্ছে ‘এল গুজে’। বাবা ‘জোসে ম্যানুয়েল ভিয়ার’ (খনিজীবী) স্বপ্ন ছিল, ছেলে বড় হয়ে ফুটবলার হবে। বাবার অনুপ্রেরণাতেই ২০০০ সালে ‘স্পোর্টিং ডি গিজন’ ক্লাবের হয়ে স্পেনিস সেকেন্ড ডিভিশনে ফুটবলের জগতে পা রাখেন। এরপর ‘লা লিগা জারগোজা’ ক্লাবে ৭৩টি ম্যাচে ৩১টি গোলে আত্মপ্রকাশ ঘটে ভিলার। ছোট বেলায় ফুটবল খেলার সময় তার ছোট একটি ইনজুরি হয়। সুস্থ হওয়ার পর ২০০১ সালে ‘স্পোর্টিং ডি গিজন’ তার প্রফেশনাল ফুটবল ক্যারিয়ার গঠন করেন।

২০০৩ সালে বিবাহিত ডেভিড ভিয়া ও প্যাট্রিসিয়া গঞ্জালেস দম্পতির রয়েছে তিন সন্তান, জাইদা ভিয়া গঞ্জালেজ, লুসা ভিয়া গঞ্জালেজ, ওলায়া ভিলা গঞ্জালেজ। জার্সি নম্বর ৭ নিয়ে ২০০৫ সালে আন্তর্জাতিক মাঠে তার পা দৌড়তে থাকে বলের পেছন পেছন, আর সাফল্য দৌড়তে থাকে তার পেছন পেছন। তিনি মেসি, রোনালডোর মতোই কৌশলভিত্তিক ও আক্রমণাত্মক খেলোয়াড়। তিনি মাঠ দাপিয়ে খেলতেই পছন্দ করেন। ২০০৬ সালের বিশ^কাপে ৩টি গোল করেন, ২০০৮ সালে ইউরো কাপ (সর্বোচ্চ গোল দাতা), ২০১০ সালে স্পেন জাতীয় দলের বিশ^কাপ (সিলভার বুট অর্জন) এবং সেই সঙ্গে পর পর ৪টি প্রধান প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেন। তিনিই স্পেনিস খেলোয়াড়দের মধ্যে প্রথম ৫০টি আন্তর্জাতিক গোল করেন এবং ৯৭টি ম্যাচে ৫৯টি গোল অর্জন করেন। পরে ২০১৪ সালের ফুটবল বিশ^কাপে আন্তর্জাতিক খেলা থেকে অবসরগ্রহণ করেন। বিশ^কাপে তিনি একমাত্র স্পেনিস খেলোয়াড় যিনি একইসঙ্গে ৯টি গোল সংগ্রহ করেন। এই কারণে তাকে স্পেনের সর্বোচ্চ গোলাদাতা নাম দেয়া হয়। জাতীয় পর্যায়ে তিনি দুটি দলের হয়ে খেলেছেন ২০০০ থেকে ২০১৫ পর্যন্ত খেলেছেন ৮টি ক্লাবে সঙ্গে। স্পেনের রাজধানীতে একক মৌসুমের পরে ভিয়া নিউইয়র্কের এমএলএস ম্যাচে অংশগ্রহণ করেন এবং সেই সঙ্গে এমএলএস এমভিপি ২০১৬ বেস্ট ফুটবল খেলোয়াড়ে ভূষিত হন। ২০১৮ সালে তার ডাক আসে ‘ভেসেল কবে’ ক্লাব থেকে। অবশেষে ভিয়া মিডিয়াকে জানালেন জাপানিস ক্লাব ভেসেল কবের চুক্তিপত্র শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই তিনি অবসর গ্রহণ করবেন এই বছরের শেষের দিকে। ২০২০ সালে নিউইয়র্কে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ইউএসএল চ্যাম্পিয়নশিপ ডেভিড ভিলার এর দল ভেসেল কবের হয়ে অংশগ্রহণ করতে যাচ্ছে। নিউইয়র্কে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া ইউএসএল চ্যাম্পিয়নশিপের সেমিফাইনাল ধার্য করা হয়েছে ২১ ডিসেম্বর এবং ফাইনালের তারিখ ধার্য করা হয়েছে পহেলা জানুয়ারি। এটিই হবে ডেভিড ভিলারে এর ক্যারিয়ার এর সর্বশেষ খেলা। এরপর পরই তিনি অবসরে চলে যাবেন বলে জানিয়েছেন।

একজন বিশ^সেরা খেলোয়াড়ের কাছে কোচের জুড়ি নেই। ঠিক তেমনি ডেভিড ভিয়া তার জীবনের সাফল্যের চাবিকাঠির ভার দিলেন তার ফুটবলের কোচদের ওপর। তিনি স্পেন এর রেডিও মার্কা এবং স্পেনের সংবাদ মাধ্যম কপির-কে জানিয়েছেন তিনি তার সব কোচের কাছে কৃতজ্ঞ। তাদের আশীর্বাদের এবং অক্লান্ত পরিশ্রমের ফলে আজ ডেভিডের জীবনের সাফল্যের ফুল ঝড়ছে।

:: মো. পারভেজ

গ্যালারি'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj