প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষার প্রথম দিনে দেড় লাখ পরীক্ষার্থী অনুপস্থিত

সোমবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৯

কাগজ প্রতিবেদক : চলতি বছরের প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার প্রথম দিনে এক লাখ ৪৩ হাজার ৯৫৭ জন পরীক্ষার্থী অনুপস্থিত ছিল। এরমধ্যে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনীতে ৯৭ হাজার ৬০২ জন এবং ইবতেদায়ি সমাপনীতে ৪৬ হাজার ৩৫৫ জন পরীক্ষার্থী। তবে প্রথম দিনের পরীক্ষায় কোনো শিক্ষক কিংবা শিক্ষার্থী বহিষ্কৃত হননি।

এর আগে গতকাল রবিবার সকালে দেশজুড়ে সাত হাজার ৪৭০টি কেন্দ্রে এই পরীক্ষা শুরু হয়। প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় মোট পরীক্ষার্থী ২৫ লাখ ৫৩ হাজার ২৬৭ জন। আর ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় মোট পরীক্ষার্থী তিন লাখ ৫০ হাজার ৩৭১ জন। প্রথম দিনের পরীক্ষা দেখার জন্য রাজধানীর ভিকারুননিসা নূন স্কুল কেন্দ্রে যান প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন এবং সচিব আকরাম আল হোসেনসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

পরীক্ষা পরিদর্শন শেষে প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁসের গুজবের বিরুদ্ধে কঠোর নজরদারি রাখা হচ্ছে। গুজবের বিরুদ্ধে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে সতর্কতা ও আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। তবে সারাদেশে কোথাও প্রশ্নপত্র ফাঁস হওয়ার খবর পাওয়া যায়নি। তিনি বলেন, সারাদেশে পরীক্ষা সুষ্ঠু, স্বচ্ছ ও স্বতঃস্ফ‚র্তভাবে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। মন্ত্রণালয় ও অধিদপ্তরের কর্মকর্তাসহ মাঠপর্যায়ের কর্মকর্তারা সারাদেশে পরীক্ষাকেন্দ্র পরিদর্শন করছেন। প্রাথমিকের সমাপনী পরীক্ষা বাতিলের বিষয়ে জানতে চাইলে প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী চাইলে এ পরীক্ষা তুলে দিয়ে প্রাথমিক শিক্ষাকে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত করা হবে।

ঘূর্ণিঝড় বুলবুলে আক্রান্ত জেলাগুলোর সব কেন্দ্রে এ পরীক্ষা আয়োজন করা হচ্ছে কি না জানতে চাইলে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিব আকরাম আল হোসেন বলেন, বুলবুলে আক্রান্ত বিভিন্ন জেলায় নানা ধরনের ক্ষয়ক্ষতি হলেও সেসব স্থানে কোনো পরীক্ষা কেন্দ্রের ক্ষয়ক্ষতি হয়নি। এ কারণে সেসব জেলায় নির্ধারিত সব কেন্দ্রে পরীক্ষা নেয়া হচ্ছে। এ বছর উত্তরপত্র মূল্যায়ন বিষয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. এ এফ এম মনজুর কাদির বলেন, পঞ্চম শ্রেণির উত্তরপত্র মূল্যায়ন নিয়ে প্রতিবছর নানা ধরনের অভিযোগ পাওয়া যায়। এ কারণে এ বছর এক উপজেলার উত্তরপত্র অন্য উপজেলায় মূল্যায়ন করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

দ্বিতীয় সংস্করন'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj