প্রশ্নোত্তর পর্বে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর অনুপস্থিতি নিয়ে প্রশ্ন : সংসদে প্রশ্নকারীরাও অনিয়মিত

শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৯

এন রায় রাজা : জাতীয় সংসদে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রীর প্রশ্নোত্তর দিয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে সংসদের অধিবেশন শুরু করেন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। কিন্তু সংসদে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক অনুপস্থিত ছিলেন। আবার প্রথম প্রশ্নকারী মোছা. খালেদা খানম ( মহিলা আসন-২৭) তিনিও ছিলেন না। তার হয়ে প্রশ্ন করেন আওয়ামী লীগের সংরক্ষিত মহিলা আসনের এমপি ওয়াসিকা আয়েশা খানম। আর তার তারকা চিহ্নিত গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নের উত্তর দেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। আবার পরবর্তী প্রশ্নকর্তা ছিলেন বগুড়া-৩ আসনের এমপি মোশারফ হোসেন। কিন্তু তিনিও ছিলেন অনুপস্থিত। তার হয়ে প্রশ্ন করেন সাবেক হুইপ শহীদুজ্জামান সরকার। আবার

পরবর্তী প্রশ্নকর্তা কিশোরগঞ্জ-৫ আসনের এমপি আফজাল হোসেন। তার হয়ে স্পিকার প্রশ্ন উত্থাপন করতে বলেন ড. রুস্তম আলী ফরাজীকে। পরবর্তী প্রশ্নকর্তা জাতীয় পার্টি ফখরুল ইমামও অনুপস্থিত থাকায় তার পক্ষে প্রশ্নটি উত্থাপন করেন সাবেক প্রতিমন্ত্রী মুজিবুল হক চুন্নু, অর্থাৎ প্রথম চার-পাঁচজন প্রশ্নকর্তা অনুপস্থিত ছিলেন। তাদের হয়ে করা স্বাস্থ্যবিষয়ক সমস্যা ও অনিয়মের ওপর সম্পূরক প্রশ্নের জবাব দেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন, যা প্রশ্নকর্তাদের মনের মতো হচ্ছিল না। গতকাল বিকেলে এ ধরনের অনুপস্থিতেই চলতে থাকে সংসদ। যা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন বিএনপির এমপি হারুনূর রশীদ। তিনি বলেন, স্বাস্থ্য শিক্ষা অতি গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। অথচ সংসদে স্বাস্থ্যমন্ত্রী অনুপস্থিত। এ সংসদের বয়স প্রায় এক বছর, অথচ অনেক মন্ত্রী উপস্থিত থাকেন না। তাহলে আমরা কাদের কাছে দাবি দাওয়া ও অনিয়মের কথা তুলে ধরব। স্বাস্থ্যমন্ত্রীর অনুপস্থিতিতে তার পক্ষে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রীর উত্তর দেয়া নিয়ে প্রশ্ন তোলেন সাবেক নৌ-পরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খানও।

জাতীয় সংসদে গত বুধবারে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনসির অনুপস্থিতিতে তার মন্ত্রণালয়ের প্রশ্নোত্তরের জবাব দেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন। এক মন্ত্রীর জন্য করা প্রশ্নের উত্তর অন্যকোনো মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর দেয়ার রেওয়াজ থাকলেও তিনি সঠিক উত্তর দিতে না পারায় সংসদ সদস্যদের অনেকেই ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

দ্বিতীয় সংস্করন'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj