মায়ের সামনেই বাসের চাকায় পিষ্ট শিশু

বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯

কাগজ প্রতিবেদক : ছয় বছরের শিশু মিলন। বাবা রিকশাচালক ও মা কাগজ কুড়ানোর কাজ করায় অভাবের সংসার তাদের। এজন্য স্কুলে যাওয়ার সৌভাগ্য হয়নি মিলনের। উল্টো সারাদিন মায়ের কাগজ কুড়ানোতে সঙ্গ দেয় সে। প্রতিদিনের মতো গতকাল বুধবারও মায়ের সঙ্গে বের হয়ে রাজধানীর যাত্রাবাড়ীর সামাদ সুপার মার্কেটের সামনে যায়। তার মা কাগজ কুড়াচ্ছিল আর সে রাস্তার বিপরীত পাশে খেলা করছিল। একপর্যায়ে রাস্তা পার হয়ে মায়ের কাছে যাওয়ার সময় বাস চাপায় নিহত হয় শিশুটি।

নিহতের স্বজনরা জানান, মিলনের বাবা আবদুল কাউয়ুম রিকশাচালক। মা নিমরি বেগম কাগজ কুড়ান। তিন ভাইয়ের মধ্যে ছোট ছিল মিলন। অভাব অনটনের কারণে তাদের কোনো ভাই-ই পড়ালেখা করে না। তারা যাত্রাবাড়ী দক্ষিণ ধোলাইপাড় কবরস্থান রোডের লাল মিয়া মাস্টারের বাড়িতে ভাড়া থাকে। গ্রামের বাড়ি গাইবান্ধা জেলার ফুলছুড়ি উপজেলায়।

নিহতের মা নিমরি বেগম কান্না করতে করতে বলেন, যাত্রাবাড়ী থানার পাশে সামাদ সুপার মার্কেটের সামনের রাস্তায় কাগজ কুড়াচ্ছিলেন তিনি। এসময় মিলন তার সঙ্গেই ছিল। মিলন খেলতে খেলতে রাস্তার অপর পাশে যায়। সেখান থেকেই আবার রাস্তা পার হয়ে তার কাছে আসছিল। ঠিক এসময় তুরাগ পরিবহনের একটি বাস তাকে চাপা দেয়। চোখের সামনেই মারা গেল মিলন বলতে বলতে চিৎকার করে কান্না করেন তিনি।

যাত্রাবাড়ী থানার এসআই মতিউর রহমান জানান, বাসের ধাক্কায় মাথাসহ শরীরের বিভিন্ন জায়গায় গুরুতর আঘাত পায় মিলন। পরে তাকে উদ্ধার করে প্রথমে স্থানীয় একটি হাসপাতাল এবং পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। ঘাতক বাস ও এর চালককে আটক করা হয়েছে।

দ্বিতীয় সংস্করন'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj