ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা : জয়িতারা আজ বাংলাদেশের আলোকবর্তিকা

বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯

চট্টগ্রাম অফিস : মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা বলেছেন, বাংলাদেশের মোট জনসংখ্যার অর্ধেক নারী। তাই নারীর উন্নয়ন ছাড়া দেশের কাক্সিক্ষত উন্নয়ন সম্ভব নয়। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু সংবিধানে নারী-পুরুষের সমান অধিকার দিয়েছেন। বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নারীর সেই অধিকার ও ক্ষমতায়ন নিশ্চিত করতে নিরলসভাবে কাজ করছেন।

গতকাল বুধবার নগরের এলজিইডি ভবনে চট্টগ্রাম বিভাগীয় প্রশাসন এবং মহিলাবিষয়ক অধিদপ্তর আয়োজিত জয়িতা সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী ইন্দিরা বলেন, জয়িতারা আজ বাংলাদেশের আলোকবর্তিকা। অনেক বাধা ও প্রতিক‚লতা অতিক্রম করে তারা সমাজে নিজের স্থান করে নিয়েছেন। জয়িতারাই আমাদের দেশে নারীর ক্ষমতায়ন ও উন্নয়নের অনন্য উদাহরণ। তিনি বলেন, সরকারের সহযোগিতায় দেশের নারীরা স্বাবলম্বী হচ্ছেন। নারীর ক্ষমতায়ন, নারীর সমমর্যাদা ও সমঅধিকার প্রতিষ্ঠায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এখন সারা বিশে^ রোল মডেল।

চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মহিলা ও শিশুবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব কামরুন নাহার, মহিলাবিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বদরুন নেছা, চট্টগ্রাম নগর মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হাসিনা মহিউদ্দিন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্ঠানে ৫টি ক্যাটাগরিতে চট্টগ্রাম বিভাগের ১১টি জেলার ৫৫ জন জয়িতাকে নগদ টাকা, ক্রেস্ট ও সনদ প্রদান করা হয়। এদের মধ্যে ৫ জনকে শ্রেষ্ঠ জয়িতা নির্বাচিত করা হয়। ভিন্ন ভিন্ন ক্যাটাগরিতে ২০১৮ সালের ৫ জন নারীকে শ্রেষ্ঠ জয়িতার সম্মাননা জানানো হয়। এসব সফল নারীরা হলেন- নির্যাতনের বিভীষিকা মুছে নতুন উদ্যমে জীবন শুরু করা লোহাগড়া উপজেলার বীরাঙ্গনা রতœা চক্রবর্তী, সফল জননী ফটিকছড়ি উপজেলার হারুয়ালছড়ি গ্রামের আঞ্জুমা খাতুন, শিক্ষা ও চাকরি ক্ষেত্রে সাফল্য অর্জনকারী বাঁশখালী উপজেলার ডা. সুপর্ণ দে সিম্পু, সমাজ উন্নয়নে বোয়ালখালী উপজেলার পারভীন আক্তার ও অর্থনৈতিকভাবে সাফল্য অর্জনকারী চট্টগ্রাম ক্যান্টনমেন্ট এলাকার দৌলতুন্নেছা।

এই জনপদ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj