রামুর ‘ওসমান ভবন’ : দুর্ভোগে পড়া পর্যটকদের জন্য নিরাপদ আশ্রয়স্থল

বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯

কামাল হোসেন, রামু (কক্সবাজার) থেকে : কক্সবাজার-৩ (রামু-সদর) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ সাইমুম সরওয়ার কমল কক্সবাজারে বেড়াতে আসা দুর্ভোগে পড়া পর্যটকদের জন্য উন্মুক্ত করলেন রামুতে নির্মিত নিজ বাসভবন ওসমান ভবন। গত মঙ্গলবার তার এই ঘোষণা প্রচারের পর পুরো কক্সবাজারবাসীর কাছে তিনি ব্যাপক প্রশংসিত হন।

জানা যায়, কক্সবাজারে আগত পর্যটকদের দুর্ভোগের কথা চিন্তা করে তিনি পুরার্কীতির শহর রামুতে নির্মিত নান্দনিক স্থাপনা নিজ বাড়ি ‘ওসমান ভবন’ পর্যটকদের বিনামূল্যে থাকার জন্য ঘোষণা দেন।

ঘোষণাটি সাংসদ কমলের ব্যক্তিগত সহকারী আবু বক্কর ছিদ্দিকের ফেসবুক পেজে প্রকাশ হলে মুহূর্তেই তা ভাইরাল হয়ে যায়।

সমুদ্র শহর কক্সবাজার থেকে ১৫ কিলোমিটার পূর্বে সাইমুম সরওয়ার কমল এমপির নান্দনিক নির্মাণশৈলী ‘ওসমান ভবন’। রামু উপজেলা পরিষদের পূর্ব পাশে মনোরম পরিবেশে নান্দনিক স্থাপনাশৈলীতে নির্মিত হয়েছে ভবনটি। শতাধিক পর্যটকের রাতযাপন ব্যবস্থা ও গাড়ি পার্কিংয়ের জন্য বিশাল আঙিনা, সেমিনার কক্ষ, শতাধিক লোকের জন্য ডাইনিং রুম, সুবিশাল আঙিনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজনের সুবিধা নিতে পারবেন ভ্রমণ পিপাসু পর্যটকরা। দ্বিতল ওসমান ভবনে এসি, নন-এসির বেশ কয়েকটি অত্যাধুনিক কক্ষ রয়েছে। বাড়িটি সার্বক্ষণিক সিসি ক্যামরা দ্বারা নিয়ন্ত্রিত।

পর্যটন শহর কক্সবাজার জেলার মাঝামাঝি স্থানে রামু উপজেলা অবস্থান হওয়ায় জেলার যে কোনো উপজেলার পর্যটন স্পট পরিদর্শনে রয়েছে যাতায়াতের সুবিধা।

ওসমান ভবন একজন এমপির বাড়ি হলেও সাধারণ মানুষের পদচারণায় মুখরিত থাকে সব সময়। গত কয়েক বছর ধরে সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত করে দিয়েছেন সাংসদ নিজেই।

তিনি জানান, পর্যটন মৌসুমে কক্সবাজার জেলায় বিপুল পর্যটকের ঢল নামে। এ সময় অনেকেই হোটেলে কক্ষ না পেয়ে রাতযাপনে দুর্ভোগে পড়েন। সমুদ্র শহর কক্সবাজারের অতি কাছে পুরাকীর্তি অঞ্চল রামু উপজেলা। রামুতে রয়েছে একাধিক দৃষ্টিনন্দন বৌদ্ধবিহার। পর্যটকদের অন্যতম আকর্ষণীয় স্থান এটি।

তিনি বলেন, কক্সবাজারে আগত পর্যটকরা হোটেলে কক্ষ না পেয়ে যেন কোনো অসুবিধায় না পড়েন সে জন্যই রামুর মণ্ডলপাড়ার ‘ওসমান ভবন’ উন্মক্ত করে দেয়া হয়েছে। কক্সবাজার শহরে যারা হোটেলে কক্ষ পাবেন না, তারা ওসমান ভবনে বিনামূল্যে থাকতে পারবেন। তাদের জন্য ফ্রি খাবারেরও ব্যবস্থা রয়েছে। নিয়োজিত থাকবে প্রয়োজনীয় স্বেচ্ছাসেবক।

এমপি কমলের ব্যক্তিগত সহকারী আবু বক্কর ছিদ্দিক জানান, গত কয়েক বছর ধরে পর্যটন মৌসুমে অনেক পর্যটক রামুর ওসমান ভবনে বিনামূল্যে রাতযাপন করেছেন।

এই জনপদ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj