বেকায়দায় আবেগী রোহিত

মঙ্গলবার, ১২ নভেম্বর ২০১৯

বাংলাদেশ-ভারত টি-টোয়েন্টি সিরিজে তিন ম্যাচে দুইবারই টাইগার পেসার শফিউলের বলে সাজঘরে ফিরেছেন ভারতীয় অধিনায়ক রোহিত শর্মা। প্রথম ম্যাচে ৯ রানে এবং তৃতীয় ম্যাচে ২ রানের মাথায় তাকে বোল্ড করে নাগপুরের বিদর্ভ স্টেডিয়ামের উপস্থিত দর্শকদের হৃদয়ে কাঁপনি ধরিয়ে দিয়েছিলেন। আগের ম্যাচে ৪৩ বলে ৮৫ রানের ইনিংস খেলে ভারতকে সিরিজে ফিরিয়েছিলেন রোহিত। শফিউল যে ভাবে দুই ম্যাচে রোহিতকে বোকা বানিয়েছেন তাতে ক্রিকেটবোদ্ধারা মুগ্ধ টাইগারের ডেলিভারিতে। বাংলাদেশের বিপক্ষে ভারত ২-১ ম্যাচে টি-টোয়েন্টি সিরিজ জিতলেও রাজকোটে ভারতীয় অধিনায়ক যা করেছেন তা দীর্ঘদিন দর্শকদের স্মরণে থাকবে।

রাজকোটে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচে রোহিত শর্মা যা করেছেন সেই ভিডিও এখন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল। টাইগারদের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে ৭ উইকেটে হারায় দ্বিতীয় ম্যাচে সিরিজ হারায় ভয়ে বাংলাদেশের ইনিংসে সৌম্য সরকারের আউট নিয়ে বাজে মন্তব্য করে বেকায়দায় পড়লেও ভারতকে সিরিজে ফেরাতে রেখেছেন অগ্রণী ভূমিকা। রাজকোটের ম্যাচে টাইগারদের একাই হারিয়ে দেন তিনি। ৪৩ বলে ৮৫ রানের ইনিংস খেলার পথে রোহিত মেরেছেন ৬টি ছক্কা এবং ৬টি বাউন্ডারি। শুধু তাই নয়, এক ওভারে টানা ৬টি ছক্কাও মারতে চেষ্টা করেছিলেন। মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের বলে পর পর ৩টি ছক্কা মারার পর চতুর্থ বলে গিয়ে আর পারেননি। রোহিত নিজেই সে কথা জানিয়েছেন ভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে।

তো বাংলাদেশের বোলারদের বিপক্ষে এতগুলো ছক্কা মারার রহস্য কী? কীভাবে এতগুলো ছক্কা মারলেন তিনি? হিটম্যান নিজেই জানালেন সে রহস্যের কথা। বলে দিলেন, ছক্কা মারার জন্য সুন্দর সময়জ্ঞানই সবচেয়ে বেশি দরকার, মাসলম্যান হওয়ার দরকার নেই।

রাজকোটে ঘূর্ণিঝড় ‘মাহা’র গতিতে ব্যাট করার পর রোহিত ক্রিকেটের পুরনো এক বিতর্ক আবার উসকে দিলেন। শক্তি বনাম শিল্পের বিতর্ক। মোসাদ্দেককে টানা ৩টি ছক্কা মারার পর তার ইচ্ছা ছিল টানা ৬ বলে ৬টি ছক্কাই মারবেন। এ নিয়ে ম্যাচের পর রোহিত বললেন, আমি চেষ্টা করেছিলাম ঠিকই কিন্তু চতুর্থ বলে ছক্কা না হওয়ায় নিজেকে সংযত করতেই হলো। তখন ভাবলাম, খুচরো রানই নিই। বেশি নড়াচড়া না করেই আমি স্ট্রোক নিচ্ছিলাম।

যুবরাজ সিংয়ের ৬ ছক্কার রেকর্ড ধরতে না পারলেও রোহিতের ছক্কা মারার নৈপুণ্যে মুগ্ধ ক্রিকেট বিশ^।

ছক্কা নৈপুণ্যে ক্রিকেট বিশ^কে মুগ্ধ করার আগে টাইগারদের ইনিংস চলাকালে যা করেছেন রোহিত তা ভাইরাল হওয়ায় চারদিকে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডের ঘটনা। বাংলাদেশ ইনিংসের ১৩তম ওভারে যুবেন্দ্র চাহালের টার্ন মিস করে স্ট্যাম্পিং হন সৌম্য। আউট হয়ে বেরিয়ে যাওয়ার সময় তৃতীয় আম্পায়ারের সিদ্ধান্তের জন্য বাউন্ডারি লাইনে দাঁড়িয়েছিলেন টাইগার ওপেনার।

রিপ্লে দেখে সৌম্যকে ‘নটআউট’ও ঘোষণা করে দেন তৃতীয় আম্পায়ার। এমন ঘটনা দেখে ভারতীয় অধিনায়ক রোহিত শর্মা নিজের রাগ নিয়ন্ত্রণ করতে পারেননি। গালি দিয়ে বসেন। যার ভিডিও এখন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল।

আম্পায়ার অবশ্য পরে নিজের ভুল বুঝতে পেরে ‘আউট’ দেন সৌম্যকে। জায়ান্ট স্ক্রিনে ভেসে ওঠে সেই সিদ্ধান্ত। কিন্তু সিদ্ধান্ত পক্ষে এলে কী হবে, রোহিতের গালি তো ফেরত নেয়া সম্ভব নয়!

:: কামরুজ্জামান ইমন

গ্যালারি'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj