ভোরের কাগজের প্রতিনিধি সম্মেলনে শ্যামল দত্ত : মিথ্যার আড়ালে থাকা সত্যকে বের করে আনতে হবে

রবিবার, ১০ নভেম্বর ২০১৯

কাগজ প্রতিবেদক : ভোরের কাগজ সম্পাদক ও মিডিয়া ব্যক্তিত্ব শ্যামল দত্ত বলেছেন, সত্যের সঙ্গে মিথ্যা মিশ্রিত থাকে। অনেক সময় মিথ্যা সত্যকে এমনভাবে আড়াল করে রাখে যে প্রকৃত সত্যটা বের করে আনা কঠিন হয়ে পড়ে। সেই কঠিন কাজটিই অত্যন্ত সচেতনতা আর দক্ষতার সঙ্গে করতে হয় সাংবাদিকদের। গতকাল শনিবার পঞ্চগড় কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে আয়োজিত ভোরের কাগজের রাজশাহী ও রংপুর বিভাগীয় প্রতিনিধি সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সহকর্মীদের উদ্দেশে শ্যামল দত্ত বলেন, সোশ্যাল মিডিয়ার বিস্ফোরণের ফলে মূল ধারার সাংবাদিকতটা অনেক হুমকির মুখে পড়েছে। আমরা অনেক সময় সোশ্যাল মিডিয়া থেকে সংবাদের জন্য তথ্য নিয়ে থাকি। এটা ঝুঁকিপূর্ণ। কেননা, সোশ্যাল মিডিয়ার আধেয় সম্পাদিত হয় না। ফলে সেখানে অনেক সময় ভুলভাল তথ্য পরিবেশিত হয়। সে কারণে সোশ্যাল মিডিয়া থেকে তথ্য নেয়ার ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে।

একপর্যায়ে সহকর্মী ও অনুষ্ঠানে উপস্থিত অতিথিদের ভোরের কাগজের জন্মের ইতিহাস শোনান শ্যামল দত্ত। তিনি জানান, পঁচাত্তর পরবর্তী সময়ে বাংলাদেশের উল্টোপথে যাত্রা শুরু হয়। নব্বইয়ের দশকের গোড়ার দিকে বাংলাদেশের মানুষ নতুন করে গণতন্ত্র ও বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখা শুরু করে। ঠিক সেই যুগসন্ধিক্ষণেই মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধারণ করে ১৯৯২ সালে যাত্রা শুরু করে ভোরের কাগজ।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব আজিজুল ইসলাম বলেন, সংবাদপত্র সমাজের দর্পণ। সাংবাদিকদের উচিত বিভিন্ন নেতিবাচক ঘটনার সমালোচনা করার পাশাপাশি ইতিবাচক ঘটনাগুলোকেও গুরুত্বের সঙ্গে তুলে ধরা।

পঞ্চগড়ের সাবেক সংসদ সদস্য ফরিদা আখতার হীরা তার বক্তব্যে সংবাদকর্মীদের ‘ফেক নিউজ’ থেকে দূরে থাকার আহ্বান জানিয়ে বলেন, স্থানীয় পর্যায়ের অনেক অনিয়ম-দুর্নীতি স্থানীয় সাংবাদিকদের পক্ষে তুলে ধরা সম্ভব হয় না। এ ক্ষেত্রে স্থানীয় সাংবদিকদের জাতীয় পর্যায়ের সাংবাদিকদের সহযোগিতা করতে হবে। স্থানীয়-জাতীয় উভয় পর্যায়ের সাংবাদিকদের পারস্পরিক সহযোগিতার মধ্য দিয়ে একটি ঘটনা যুৎসইভাবে পাঠকের সামনে তুলে ধরা সম্ভব বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন পঞ্চগড় কলেজ অব নার্সিং সায়েন্সের অধ্যক্ষ ড. জেরিনা খাতুন, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আমিরুল ইসলাম, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি আমিনুল ইসলাম, বোদা পৌরসভার মেয়র ওয়াহিদুজ্জামান সুজা, পঞ্চগড় প্রেসক্লাব সভাপতি আনিস প্রধান, ভোরের কাগজের জয়পুরহাট প্রতিনিধি নৃপেন্দ্রনাথ মণ্ডল। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ভোরের কাগজের পঞ্চগড় প্রতিনিধি শাহজালাল। এ সময় মঞ্চে ছিলেন সিনিয়র সহসম্পাদক হিলালী ওয়াদুদ চৌধুরী, বিজ্ঞাপন ব্যবস্থাপক এস এম এ রাজ্জাক, প্রশাসনিক ব্যবস্থাপক সুজন নন্দী মজুমদার এবং আইটি বিভাগের প্রধান মেহেদী হাসান নিয়াজ।

দুই দিনব্যাপী এই প্রতিনিধি সম্মেলনের সমাপনী দিনে পঞ্চগড়ের তিন বিশিষ্ট ব্যক্তিকে ভোরের কাগজের পক্ষ থেকে সম্মাননা স্মারক তুলে দেন সম্পাদক শ্যামল দত্ত। সম্মাননাপ্রাপ্তরা হলেন- নারী শিক্ষা বিস্তারে ভূমিকা পালনকারী সাবেক সংসদ সদস্য ফরিদা আখতার হীরা, বোদা পৌরসভার প্রথম মেয়র ও ক্রীড়া সংগঠক ওয়াহিদুজ্জামান সুজা এবং শিক্ষানুরাগী পঞ্চগড় কলেজ অব নার্সিং সায়েন্সের অধ্যক্ষ ড. জেরিনা খাতুন।

শেষ পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj