ঢাকা লিট ফেস্ট : সকালে শিশুদের বিকেলে বড়দের পদচারণা

শনিবার, ৯ নভেম্বর ২০১৯

কাগজ প্রতিবেদক : সকাল থেকেই মেঘলা আকাশ। সকালে বাংলা একাডেমি লন চত্বরে আধ্যাত্মিক সুরের মূর্ছনা ছড়িয়ে শুরু হলো ঢাকা লিট ফেস্টের দ্বিতীয় সকাল। গতকাল শুক্রবার বাংলা একাডেমির বর্ধমান হাউসের সামনে লন চত্বরে আধ্যাত্মিক সুরের বাণী তুলে ধরেন ধর্মীয় সঙ্গীত দল। ছুটির দিন হওয়ায় দিনের প্রথম ভাগে শিশুদের পদচারণায় মুখর হয়ে উঠে বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণ। বাতাস মুখর করে তোলে গানের সুর। শুরুতেই একাডেমির নজরুল মঞ্চে গিয়ে দেখা গেল শিশুদের হইচই। ‘ওয়ার্ল্ড অব ফ্যান্টাসি’ শিরোনামের এ আয়োজনে বিশ্বের নানান শহরে শিশুদের বিনোদনের ভিন্ন ভিন্ন মাধ্যমগুলোর সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেয়া হচ্ছিল। পাশাপাশি সেখানে শিশুদের বিভিন্ন ধরনের পেপার কাটিং ও ছবি আঁকা শেখানো হয়। অন্যদিকে শিশুদের দলে দলে বিভিন্ন বইয়ের স্টলে ঘুরে বেড়াতে দেখা যায়। সেখানে তারা পছন্দের বইয়ের খোঁজ নেয়। পরিচিত হয় বিশ্ব সাহিত্যের সঙ্গে। অন্যদিকে সকালে বর্ধমান হাউসের সামনের প্রাঙ্গণে খ্রিস্টীয় ভাবধারার সঙ্গীত পরিবেশন করে ব্যান্ড ‘সঙ্গীত দল’।

গতকাল দিনব্যাপী লিট ফেস্টে শিশুদের বিভিন্ন আয়োজনসহ ছিল বিশ্বনন্দিত লেখক, শিল্পীদের পর্ব। সেগুলোতে আলোচিত হয় সাহিত্যসহ বর্তমান বিশ্ব ও বিজ্ঞানের বিভিন্ন বিষয় আশয়।

অনুষ্ঠানের একটি পর্ব চলে বাংলা একাডেমির আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদ মিলনায়তনে। সেখানে ‘ইন দ্য টাইম অব দ্য আদার্স’ শিরোনামের অধিবেশনে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত মার্কিন লেখক নাদিম জামান কথা বলেন। আলাপনের শুরুতেই জানানো হয়, নাদিম জামানের লেখা প্রথম উপন্যাস ‘ইন দ্য টাইম অব দ্য আদার্স’, যার প্রেক্ষাপট বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ। উপন্যাসের মূল চরিত্র ইমতিয়াজের ১৯৭১ সালের মার্চে তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান ভ্রমণের অভিজ্ঞতা নিয়ে লেখা। অধিবেশনটি সঞ্চালনা করেন রিফাত মুনিম।

নাদিম জামান বলেন, প্রতিটি সত্য ঘটনায় প্রচুর চরিত্র থাকে, যার কোনোটি প্রত্যক্ষ, কোনোটি পরোক্ষ। প্রতিটি চরিত্রের আলাদা গল্প থাকে। এসব গল্প সুন্দরভাবে সাজাতে পারলে একটি উপন্যাস তৈরি হয়।

তিনি বলেন, লেখার জন্য কোনো অজুহাত দেয়া যাবে না। লেখায় ভাটা পড়ার জন্য শুধু লেখকই দায়ী।

‘পেন : লেখকদের দাঁড়াবার জায়গা’ শীর্ষক অন্য আরেক অধিবেশনে বর্তমান বাস্তবতায় লেখালেখি করাটাকেই বড় সংগ্রাম হিসেবে চিহ্নিত করে কথাসাহিত্যিক আহমাদ মোস্তফা কামাল বলেছেন, লেখকরা দায়িত্বশীল, রাষ্ট্রের প্রতি তাদের দায়বদ্ধতা রয়েছে। ঘৃণা কিংবা হিংস্রতা ছড়ানো লেখকদের কাজ নয়, তাদের কাজ ভালোবাসা ছড়ানো।

ওই সেশনে আহমাদ মোস্তফা কামালের সঙ্গে আরো ছিলেন তরুণ লেখক মুম রহমান এবং জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ও লেখক আহমেদ রেজা। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন পেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ মহিউদ্দিন।

আহমাদ মোস্তফা কামাল মানুষের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করা লেখকের কাজ নয় বলেও মন্তব্য করেন।

বিকেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ওপর নির্মিত ডকুফিল্ম ‘হাসিনা : অ্যা ডটার্স টেল’। প্রদর্শন করা হয়। শেষে এর নির্মাতা পিপলু খান নির্মাণের অভিজ্ঞতা নিয়ে কথা বলেন।

গতকালও দিনভর মুখর ছিল ২৩টির মতো অধিবেশনে দেশ-বিদেশের লেখকদের আলাপচারিতায়। আজ শেষ হচ্ছে তিন দিনের এ আসর।

শেষ পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj