রাজকোটে বিবর্ণ বাংলাদেশ, নাগপুরে ‘ফাইনাল’

শুক্রবার, ৮ নভেম্বর ২০১৯

খেলা প্রতিবেদক : রাজকোটে সিরিজ জয়ের দারুণ সুযোগ পেয়েও কাজে লাগাতে পারেনি টাইগাররা। ভারতের বিপক্ষে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ৮ উইকেটে হেরেছে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ বাহিনী। হারের ফলে ৩ ম্যাচ সিরিজ এখন ১-১ এ সমতা। রবিবার নাগপুরে তৃতীয় ম্যাচ তাই উভয়দলের জন্য অঘোষিত ফাইনালে পরিণত হয়েছে। গতকাল রাজকোটে ম্যাচ শেষে টাইগার অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের কণ্ঠে ঝরেছে ২৫-৩০ রানের আক্ষেপ। ব্যাটিং এ উইকেটে স্কোরটা ১৭৫-১৮০ হলে ভালো হতো বলে জানিয়েছেন তিনি। নাগপুরে তৃতীয় ম্যাচে ভারতকে হারিয়ে সিরিজ জয়ের প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন তিনি। এখনো সিরিজ জয়ের স্বপ্ন দেখছে টাইগাররা।
সিরিজে ফিরতে ভারতের সামনে গতকাল জয়ের কোনো বিকল্প ছিল না। জয়ের নেশায় মরিয়া স্বাগতিকরা টস জিতে বাংলাদেশকে আগে ব্যাটিংয়ে পাঠায়। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৫৩ রান সংগ্রহ করে সফরকারীরা। জবাবে ১৫.৪ ওভারে ২ উইকেট হারিয়ে লক্ষ্যে পৌঁছে যায় ভারত।
রাজকোটের ম্যাচটিকে স্মরণীয় করে রাখেন ভারতীয় অধিনায়ক রোহিত শর্মা। গতকালের ম্যাচে খেলার মধ্য দিয়েই রেকর্ডবুকে জায়গা করে নেন তিনি। প্রথম ভারতীয় ক্রিকেটার হিসেবে একশটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলার রেকর্ড গড়েছেন রোহিত। তা ছাড়া টি-টোয়েন্টির ইতিহাসে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ম্যাচ খেলার রেকর্ডটিও তার। টি-টোয়েন্টি ১১১টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলে রেকর্ডের তালিকার এক নম্বরে রয়েছেন পাকিস্তানের শোয়েব মালিক। ২০০৭ সালে দক্ষিণ আফ্রিকায় অনুষ্ঠিত হওয়া প্রথম টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেই খেলার মধ্য দিয়ে অভিষেক হয় রোহিত শর্মার।
গতকাল শততম টি-টোয়েন্টি ম্যাচে একটুর জন্য সেঞ্চুরি বঞ্চিত হন ভারপ্রাপ্ত ভারতীয় অধিনায়ক। ৪৩ বলে ৬টি চার এবং ৬টি ছক্কার সাহায্যে ৮৫ রান করা রোহিতকে সাজঘরে ফেরান লেগ স্পিনার আমিনুল ইসলাম বিপ্লব। রাজকোটে টাইগারদের জয়ের স্বপ্নে জল ঢেলে দেন তিনি। আগের ম্যাচে শফিউল রোহিতকে দ্রæত প্যাভিলিয়নে ফেরাত পাঠাতে সক্ষম হয়েছিল বলে টাইগাররা ওই ম্যাচে জয় পেয়েছিল। গতকাল ভারতের যে দুইটি উইকেটের পতন ঘটেছে তা তুলে নেন স্পিনার আমিনুল ইসলাম বিল্পব। আগের ম্যাচেও দুই উইকেট পেয়েছিলেন তিনি। দুর্দান্ত ইনিংস খেলায় ম্যাচ সেরা হন রোহিত শর্মা।
এর আগে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা ১৫৩ রান তুলতে সক্ষম হয়। টাইগারদের হয়ে সর্বোচ্চ ৩৬ রান করেছেন ওপেনার নাইম শেখ। যৌথভাবে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩০ রান করেছেন সৌম্য সরকার ও মাহমুদউল্লাহ। ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা ভালো করেন ওপেনার লিটন দাশ ও মোহাম্মদ নাইম শেখ। তারা দুজন উদ্বোধনী জুটিতে এনে দেন ৬০ রান। তবে দুই ওপেনার ও ওয়ানডাউনে নামা সৌম্য সরকার আউট হলে বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ে ধীরগতি নেমে আসে। মাহমুদউল্লাহ দ্রæত কিছু রান তোলার চেষ্টা করেন। কিন্তু তিনিও দীপক চাহালের বলে আউট হয়ে গেলে সেটি আরো কমে যায়। ভারতীয় ফিল্ডাররা গতকাল বেশ কয়েকটি ক্যাচ মিস করেছে। জীবন পেয়েও টাইগার ব্যাটসম্যানরা বড় স্কোর গড়তে পারেননিÑ যা ম্যাচ শেষে মাহমুদউল্লাহ স্বীকার করেছেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর
বাংলাদেশ : ১৫৩/৬ (২০ ওভার), মো. নাইম ৩৬, মাহমুদউল্লাহ ৩০ সৌম্য ৩০, যুবেন্দ্র চাহাল ২৮/২; ভারত : ১৫৪/২ ( ১৫.৪ ওভার)
রোহিত ৮৫, ধাওয়ান ৩১, আমিনুল ইসলাম ২৯/২
ফলাফল : ভারত ৮ উইকেটে জয়ী, ম্যাচ সেরা : রোহিত শর্মা

প্রথম পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj