ফিক্সিংয়ে ক্রিকেটার গ্রেপ্তার

শুক্রবার, ৮ নভেম্বর ২০১৯

খেলা ডেস্ক : ক্রিকেটের জমজমাট আসর এলেই জুয়াড়ি বা বাজিকরদের দৌরাত্ম্য বৃদ্ধি পাওয়ার পাশাপাশি খেলোয়াড়রাও অনেক সময় প্ররোচিত হন স্পট ফিক্সিংয়ে। এইতো কদিন আগেই ফিক্সিংয়ে সহায়তা না করেও তথ্য গোপনের কারণে বিশ্ব সেরা অল রাউন্ডার সাকিব আল হাসান ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হয়েছেন। সেই রেশ কাটতে না কাটতেই সরাসরি ম্যাচ ফিক্সিংয়ের দায়ে এবার গ্রেপ্তার হলেন ভারতীয় দুই ক্রিকেটার। ম্যাচ গড়াপেটার অভিযোগে সাবেক কর্নাটক রঞ্জি খেলোয়াড় সিএম গৌতম ও আবরার কাজীকে গ্রেপ্তার করেছে কর্নাটক পুলিশের সেন্ট্রল ক্রাইম ব্রাঞ্চ (সিসিবি)।

দুই ক্রিকেটারকে গ্রেপ্তারের বিষয়ে জয়েন্ট কমিশনার অব পুলিশ স›দ্বীপ পাতিল বলেছেন, কেপিএল স্পট ফিক্সিং কেলেঙ্কারিতে গুরুত্বপূর্ণ দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে সিসিবি। বেলারি দলের অধিনায়ক সিএম গৌতম ও আবরার কাজীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। হুবলি ও বেলারির কেপিএল ফাইনালে তারা স্পট ফিক্সিং করেছিলেন। ধীর গতির ব্যাটিংয়ের জন্য তারা ২০ লাখ টাকা নিয়েছিলেন। বেঙ্গালুরুর বিপক্ষে আরেক ম্যাচেও তারা ফিক্সিং করেছিলেন। তদন্ত এখনো চলছে এবং আরো গ্রেপ্তার হবে।

কর্নাটক প্রিমিয়ার লিগের দল বেলারি টাস্কার্সের অধিনায়ক গৌতম ও তার সতীর্থ কাজী ২০ লাখ টাকার বিনিময়ে ধীর গতির ব্যাটিং করেছিলেন হুবলি টাইগার্সের বিপক্ষে। এ বছরের শুরুতে হওয়া কেপিএলের ওই ফাইনাল বেলারি হেরেছিল ৮ রানে। শুধু ফাইনাল নয়, বেঙ্গালুরু ব্লুাস্টার্সের বিপক্ষে আরেকটি ম্যাচে গৌতম ও কাজীর ফিক্সিংয়ে জড়িত থাকার প্রমাণ পেয়েছে সিসিবি।

কর্নাটক ক্রিকেটের সেরা খেলোয়াড়দের তালিকায় আছেন গৌতম। ২০১৩ থেকে ১৪ ও ২০১৪-১৫ মৌসুমে কর্নাটক দলের ব্যাক টু ব্যাক ঘরোয়া ট্রেবল জয়ের পথে তার অবদান ছিল সবচেয়ে বেশি। ৯ বছর ঘরের দল কর্নাটকে কাটিয়ে এবারই তিনি পাড়ি দিয়েছেন গোয়া ক্রিকেট দলে। তবে ফিক্সিংয়ের অভিযোগে ইতোমধ্যে গোয়ার সঙ্গে তার চুক্তি বাতিল হয়ে গেছে।

খেলা-ধূলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj