বার্সায় থাকার ইচ্ছে ফাতির

শুক্রবার, ৮ নভেম্বর ২০১৯

খেলা ডেস্ক : স্প্যানিশ জায়ান্ট বার্সেলোনার হয়ে প্রথম ম্যাচে খেলতে নেমেই সবার নজরে চলে আসেন বিস্ময় বালক আনসু ফাতি। মেসি পরবর্তী সময়ে তাকেই ধরা হয় ক্লাবটির পরবর্তী কাণ্ডারি। তিনি এ পর্যন্ত বার্সেলোনার হয়ে খেলেছেন ৯টি ম্যাচ। ফাতি চান মেসির মতো পুরো ক্যারিয়ার বার্সেলোনায় কাটিয়ে দিতে।

গতকাল বার্সা টিভিতে সাক্ষাৎকার দেন ফাতি। মূল দলে খেলার পর এবারই প্রথমবারের মতো কোনো সাক্ষাৎকার দিলেন তিনি। সাক্ষাৎকারে বার্সেলোনা দলে খেলার স্বপ্ন পূরণ ও বার্সায় নিজের ক্যারিয়ার নিয়ে কথা বলেন তিনি। ফাতি বলেন, আমি বার্সেলোনায় খেলার স্বপ্ন দেখতাম। সেই স্বপ্ন পূরণ হয়েছে। এখন সারাজীবন এখানে কাটাতে চাই। তা ছাড়া বার্সার হয়ে করা প্রথম গোল নিয়ে কথা বলেন তিনি। ফাতি বলেন, ওসাসুনার বিপক্ষে ম্যাচটি ছিল আমার জন্য স্বপ্ন। কারণ তাদের বিপক্ষেই আমি প্রথম গোলটি পেয়েছিলাম। আমি যেন তা বিশ্বাস করতে পারছিলাম না। এরপর ক্যাম্প ন্যুতে ভেলেন্সিয়ার বিপক্ষে দ্বিতীয় গোলটি পেয়ে যাই। আর বহুরাত আমি ন্যু ক্যাম্পে গোল করার স্বপ্ন দেখেছি। সেই স্বপ্ন বাস্তবে ধরা দেয় এই ম্যাচে। আসলে এটি কাউকে বোঝানো যাবে না।

বার্সেলোনার মূল দলে খেলার আগে অনূর্ধ্ব-১৯ ও বি দলে খেলেছেন ফাতি। বলতে গেলে এক ম্যাচ খেলেই রাতারাতি তারকা খ্যাতি পেয়ে গেছেন তিনি। কিন্তু এমন তারকা খ্যাতি পেলেও পুরনো সতীর্থ ও বন্ধুদের তিনি কখনোই ভুলে যেতে চান না। ফাতি বলেন, আমার আগের কিছুই পরিবর্তন হয়নি। আমি সবসময় শান্ত থাকা ও স্বাভাবিকভাবে কাজকর্ম করে যাওয়ার চেষ্টা করি। সেটি এখনো আছে। বার্সার অনূর্ধ্ব-১৯ ও বি দলের খেলোয়াড়রা আমার সতীর্থ এবং তারাই থাকবে। আমি অবসর সময় তাদের সঙ্গে কাটাই। আর এর কিছুই পরিবর্তন হবে না।

আনসু ফাতি বার্সেলোনা দলে যোগ দেয়ার পর পরই বেশ কয়েকটি পুরোনো রেকর্ড ভাঙেন। তা ছাড়া বার্সেলোনার হয়ে মেসির যেখানে প্রথম দুই গোল করতে সময় লেগেছিল তের ম্যাচ। সেখানে মাত্র তিন ম্যাচ খেলেই বার্সার হয়ে ক্যারিয়ারের প্রথম দুটো গোল করে ফেলেন তিনি।

এদিকে জন্মসূত্রে ফাতি গিনি বিসাউয়ের নাগরিক হলেও কিছু দিন আগে স্প্যানিশ পাসপোর্ট সংগ্রহ করেছেন। গুঞ্জন রয়েছে ২০২০ সালের ইউরোতে স্পেনের জার্সিতে দেখা যেতে পারে তাকে।

খেলা-ধূলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj