ইবিতে ভর্তি পরীক্ষা : বিভিন্ন সংগঠনের মিছিল হলেও বাধা ছাত্রদলকে

শুক্রবার, ৮ নভেম্বর ২০১৯

ইবি প্রতিনিধি : ইসলামী বিশ^বিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষা উপলক্ষে আসা ভর্তিচ্ছুদের স্বাগত জানিয়ে মিছিল করেছে শাখা ছাত্রলীগ, ছাত্র ইউনিয়ন এবং ছাত্রমৈত্রী। গত বুধবার বিকেলে প্রধান ফটক থেকে ওই তিন ছাত্র সংগঠন পৃথকভাবে মিছিল করে।

এদিকে ভর্তিচ্ছুদের মাঝে কলম ও ফুল বিতরণে বিশ^বিদ্যালয় প্রশাসন ও পুলিশের বিরুদ্ধে বাধা দেয়ার অভিযোগ করেছে ছাত্রদল। বুধবার দুপুরে লালনশাহ হলের পকেট গেটে তারা ভর্তিচ্ছুদের মাঝে কলম ও ফুল বিতরণ করতে গেলে বাধার শিকার হয়েছে বলে জানা গেছে।

জানা যায়, বুধবার ভর্তি পরীক্ষার শেষ দিনের শেষ শিফটের পরীক্ষা শেষ হয় বিকেল ৫টায়। এ সময় প্রধান ফটক থেকে ভর্তিচ্ছুদের স্বাগত জানিয়ে মিছিল বের করে ছাত্রলীগের বিদ্রোহী গ্রুপের নেতারা। এতে উপস্থিত ছিলেন- সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক শিশির ইসলাম বাবু, তৌকির মাহফুজ মাসুদ, সাবেক আপ্যায়নবিষয়ক সম্পাদক রিজভী আহমেদ পাপন, সাবেক ছাত্রবিষয়ক সম্পাদক মিজানুর রহমান লালন, সাবেক সহসম্পাদক ফয়সাল সিদ্দিকী আরাফাত প্রমুখ। একই সময় শাখা ছাত্র ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক জি কে সাদিকের নেতৃত্বে শিক্ষার্থীদের স্বাগত জানিয়ে মিছিল করে ছাত্র ইউনিয়ন। এদিকে একই সময় শাখা ছাত্রমৈত্রীর সভাপতি আব্দুর রউফ ও সাধারণ সম্পাদক এ বি পাপ্পুর নেতৃত্বেও একটি মিছিল বের হয়।

দুপুর ১টার দিকে বিশ^বিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা লালনশাহ হলের পকেট গেটে ভর্তিচ্ছুদের মাঝে কলম ও ফুল বিতরণ করতে শুরু করে। খবর পেয়ে বিশ^বিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক পরেশ চন্দ্র বর্মণ এবং বিশ^বিদ্যালয় থানার ওসি জাহাঙ্গীর আরিফ ঘটনাস্থলে যান। এ সময় তারা ছাত্রদলের ফুল কেড়ে নিয়ে ক্যাম্পাস থেকে তাদের বের করে দেয়। ছাত্রদলের বিশ^বিদ্যালয় শাখার সভাপতি ওমর ফারুক, সাধারণ সম্পাদক রাশেদুল ইসলাম, যুগ্ম সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক শাহেদ আহম্মেদ প্রমুখ এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

এ বিষয়ে শাখা ছাত্রদলের দপ্তর সম্পাদক শাহেদ আহম্মেদ সাংবাদিকদের বলেন, আমরা ভর্তিচ্ছুদের ফুল ও কলম বিতরণের সময় প্রক্টর স্যার এবং ওসি এসে ফুল কেড়ে নেন। আমাদের দ্রুত ক্যাম্পাস ত্যাগ না করলে দেখে নেয়ার হুমকি দেন।

এ বিষয়ে বিশ^বিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক পরেশ চন্দ্র বর্মণ বলেন, ‘সুষ্ঠুভাবে ভর্তি পরীক্ষা সম্পন্ন করায় সবাইকে ধন্যবাদ। আর ছাত্রদল লালনশাহ হলের পকেট গেটে ফুল বিতরণের সময় আমি গিয়ে তাদের গায়ে হাত বুলিয়ে চলে যেতে বলেছি। যাতে ক্যাম্পাসে কোনো অনাকাক্সিক্ষত ঘটনার সৃষ্টি না হয়।

বিশ^বিদ্যালয় থানার ওসি জাহাঙ্গীর আরিফ বলেন, পরীক্ষা চলাকালীন ছাত্রদলের কর্মীরা লালনশাহ হলের পকেট গেটে আসে। পরীক্ষার সময় ক্যাম্পাসে কোনো ছাত্র সংগঠনের কার্যক্রমই আমরা চলতে দেইনি।

এই জনপদ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj