আইডিইবির ৪৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী কাল

বৃহস্পতিবার, ৭ নভেম্বর ২০১৯

কাগজ প্রতিবেদক : ‘লার্নিং বাই ডুয়িং হোক শিক্ষার ভিত্তি’ এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে আগামীকাল শুক্রবার ৪৯তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করতে যাচ্ছে ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স বাংলাদেশ (আইডিইবি)। এ উপলক্ষে গতকাল বুধবার রাজধানীর কাকরাইলে আইডিইবির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এতে লিখিত বক্তব্য উপস্থাপন করেন সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক শামসুর রহমান, বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন সভাপতি এ কে এম এ হামিদ। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সহসভাপতি এ কে এম আবদুল মোতালেব, যুগ্ম সম্পাদক ফজলুর রহমান খান প্রমুখ।

লিখিত বক্তব্যে সকল মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও দাখিল মাদ্রাসায় ষষ্ঠ থেকে ৮ম শ্রেণি পর্যন্ত কারিগরি বিষয় বাধ্যতামূলক অন্তর্ভুক্তকরণ ও ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার শিক্ষক নিয়োগ ও প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করাসহ ১২টি সুপারিশ উপস্থাপন করা হয়। এর পাশাপাশি দিবসটি উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচির ঘোষণা দেয়া হয়। এর মধ্যে রয়েছে- আগামীকাল ৮ নভেম্বর সকাল ১০টায় ঢাকায় আইডিইবি ভবনে সমাবেশ শেষে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার ছাত্র-শিক্ষকদের অংশগ্রহণে বর্ণাঢ্য র‌্যালি। এ ছাড়া ৯-১৪ নভেম্বর কেন্দ্রীয় ও জেলা পর্যায়ে দিবসের প্রতিপাদ্যের আলোকে সেমিনার, আলোচনা এবং নবীন-প্রবীণ সদস্য প্রকৌশলীদের সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে।

সংবাদ সম্মেলনে উল্লেখ করা হয়, বর্তমানে প্রচলিত প্রাথমিক শিক্ষা ব্যবস্থায় পাঠ্যবইয়ের চাপে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা শিক্ষাভীতিতে ভুগছে। ফলে অঙ্কুরে অনেক মেধা ঝরে পড়ছে। শিক্ষাকে শিক্ষার্থীর মাঝে ভীতি নয়, আনন্দদায়ক করতে পারলেই শিক্ষার প্রতি শিশুরা অধিকতর আকৃষ্ট হবে।

নেতারা বলেন, সুখী-সমৃদ্ধ বাংলাদেশের অভীষ্ট লক্ষ্য অর্জনে মেধাভিত্তিক দক্ষ জাতি গঠনে ১ম থেকে ৫ম শ্রেণি পর্যন্ত বিভিন্ন ক্লাসে বিশেষ কারিকুলামের মাধ্যমে শিক্ষাদানের জন্য যথাযথ ইকুইপমেন্ট এবং প্রযুক্তির সঙ্গে পরিচিতি ও সহজ ব্যবহার বিষয়ে মডিউল তৈরি ও বাস্তবায়ন করা প্রয়োজন।

এর ফলে একদিকে যেমন ছেলেমেয়েরা ভবিষ্যতে জীবনমুখী শিক্ষা গ্রহণে আগ্রহী হয়ে উঠবে, অন্যদিকে উন্নত দেশের ন্যায় সরকার ঘোষিত ২০৪০ সালের মধ্যে ৫০ ভাগ কারিগরি শিক্ষা প্রবর্তন করা সম্ভব হবে।

এই জনপদ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj