বায়ূ দূষণ থেকে বাঁচতে মাস্ক পরতে হলো মা কালীকেও!

বৃহস্পতিবার, ৭ নভেম্বর ২০১৯

কাগজ ডেস্ক : আপনার বাড়ির সিংহাসনে গোপাল রয়েছে? নিত্যদিন নিশ্চয়ই গোপাল সেবা দেখেছেন? বেশিরভাগ হিন্দু পরিবারে ভগবানকে খেতে দেয়ার পাশাপাশি ঘুমানোরও বন্দোবস্ত করে দেয়া হয় সন্তানরূপী ছোট্ট গোপালকে। প্রচণ্ড শীতে তাকে পরিয়ে দেয়া হয় গরম পোশাকও। কিন্তু দূষণ থেকে বাঁচাতে মাস্ক পরতে দেখেছেন কখনও? সেই ব্যতিক্রমী ঘটনারই সাক্ষী বারাণসী। সেখানে দেবদেবীর মুখে পরানো হলো মাস্ক। কিন্তু কেন? কারণ শুনলে আপনিও অবাক হয়ে যাবেন।

বারাণসীর মন্দিরে ঢুকলেই দেখবেন কালী হোক কিংবা দুর্গা এমনকি শিবলিঙ্গে পরানো রয়েছে মাস্ক। পুণ্যার্থী সে দৃশ্য দেখেই মন্দিরে ঢুকতে গিয়েও হোঁচট খাচ্ছেন। কিন্তু কেন এমন আজব ছবি দেখা গেল ওই মন্দিরগুলোতে? হরিশ মিশ্র নামে এক পুরোহিত বলছেন, আমরা ভগবানকে আমাদের মতো অনুভূতিপ্রবণ বলেই মনে করি। আমরা শীতকালে ভগবানকে ওই ঋতু উপযোগী পোশাক পরাই। তাহলে পরিবেশের যখন ভয়ঙ্কর অবস্থা তখন আমাদেরও উচিত তাদের রক্ষা করা। তাইতো সাধারণ মানুষের মতোই কালী, দুর্গা এমনকি শিবলিঙ্গেও মাস্ক পরিয়ে রেখেছি। তবে জিভ বের করা হওয়ায় মাস্ক পরাতে সমস্যা হচ্ছে মা কালীকে। তাই তাকে কীভাবে মাস্ক পরানো যায় আপাতত সেই নিয়েই ভাবনাচিন্তায় ব্যস্ত পুরোহিতরা। দেবদেবীদের দেখে মুখে মাস্ক পরতে শুরু করেছেন বহু পুণ্যার্থী।

সভ্যতার অগ্রগতির কথা মাথায় রেখে নির্বিচারে কাটা হচ্ছে গাছ। তার ওপর আবার বারাণসীর আশপাশে চলছে খড় পোড়ানোর পালা। সঙ্গে রয়েছে কালীপুজো এবং দিওয়ালির সময় বাজি পোড়ানোর জেরে তৈরি হয় ধোঁয়া। সব মিলিয়ে বাতাসেই ক্রমশই বাড়ছে দূষণের পরিমাণ। সাধারণ মানুষের সচেতনতার অভাবই মূলত দূষণের কারণ বলে দাবি পুরোহিতদের। এ ঘটনাই যেন আরো একবার মানুষের অসচেতনতা কতটা ভয়ঙ্কর রূপ নিয়েছে তা প্রমাণ করল। কিন্তু প্রশ্ন একটাই, এত কিছুর পরেও আর কবে সচেতন হব আমরা?

এই জনপদ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj