রপ্তানি আয়ে আবার হোঁচট ৪ মাসে ঘাটতি ১১ শতাংশ

বৃহস্পতিবার, ৭ নভেম্বর ২০১৯

কাগজ প্রতিবেদক : চলতি অর্থবছরের তৃতীয় মাস সেপ্টেম্বরের মতো চতুর্থ মাস অক্টোবরেও পণ্য রপ্তানি থেকে আয় হোঁচট খেয়েছে। এই অর্থবছরের প্রথম চার মাসের রপ্তানি আয় লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ১১ দশমিক ২১ শতাংশ পিছিয়ে। এই আয় গত অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায়ও ছয় দশমিক ৮২ শতাংশ কম। রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি) প্রকাশিত সবশেষ প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রথম চার মাসে (জুলাই-অক্টোবর) ১ হাজার ২৭২ কোটি ১২ লাখ ডলারের পণ্য রপ্তানি হয়েছে। এই সময়ে রপ্তানির লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১ হাজার ৪৩২ কোটি ৮ লাখ ডলার। অন্যদিকে ২০১৮-১৯ অর্থবছরের এই সময়ে রপ্তানি হয়েছিল ১ হাজার ৩৬৫ কোটি ১৭ লাখ ডলারের পণ্য। অক্টোবর মাসে প্রবৃদ্ধি ও লক্ষ্যমাত্রা স্পর্শ করতে পারেনি দেশের তৈরি পোশাক খাত। এ মাসে এই খাতে রপ্তানি আয় ছিল ৩০৭ কোটি ৩২ লাখ টাকা। আর অক্টোবরসহ অর্থবছরের প্রথম চার মাসে ১ হাজার ৫৭ কোটি ৭৩ লাখ ডলারের পোশাক রপ্তানি হয়েছে। অথচ আগের অর্থবছরের একই সময়ে এই খাতের রপ্তানি আয় ছিল ১ হাজার ১৩৩ কোটি ৩১ লাখ ডলার। এই আয় গত অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে ছয় দশমিক ৬৭ শতাংশ কম। একইসঙ্গে লক্ষ্যমাত্রার তুলনায় আয় কম ১২ দশমিক সাত শতাংশ।

পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, গত চার মাসে নিট পোশাক রপ্তানি থেকে আয় এসেছে ৫৫৩ কোটি ৮৩ লাখ ডলার। যা আগের বছরের একই সময়ের পাঁচ দশমিক ৭৩ শতাংশ কম, লক্ষ্যমাত্রার তুলনায় কম ছয় দশমিক ৭০ শতাংশ। অন্যদিকে ওভেন পোশাক রপ্তানি করে আয় হয়েছে ৫০৩ কোটি ৯০ লাখ ডলার, যা ২০১৮-১৯ অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় সাত দশমিক ৬৭ শতাংশ কম। পাশাপাশি ১৭ দশমিক ৩০ শতাংশ লক্ষ্যমাত্রা কমেছে ওভেনে।

ইপিবির প্রতিবেদন অনুযায়ী, ২০১৯-২০ অর্থবছরের জুলাই-সেপ্টেম্বর সময়ে পাট ও পাটজাত পণ্যের রপ্তানি আয়ের প্রবৃদ্ধি আট দশমিক ৮৮ শতাংশ ও লক্ষ্যমাত্রা ২১ দশমিক ২ শতাংশ বেড়েছে। এ সময়ে এ খাত থেকে আয় এসেছে ৩১ কোটি ৪৪ লাখ ডলার। চলতি অর্থবছরের চার মাসে আট দশমিক দুই শতাংশ কম প্রবৃদ্ধি অর্জিত হয়েছে চামড়াজাত পণ্য রপ্তানি। এ খাত থেকে আয় এসেছে ৩১ কোটি ৬৯ লাখ ডলার। লক্ষ্যমাত্রার তুলনায় রপ্তানি আয় কমেছে সাত দশমিক ৯৩ শতাংশ। গত অর্থবছর জুড়েও চামড়াজাত পণ্য রপ্তানিতে আয় ও লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হয়নি।

এদিকে গত চার মাসে প্লাস্টিক পণ্যে প্রবৃদ্ধি বেড়েছে ৩ দশমিক ৫৬ শতাংশ। এ সময়ে এই খাতে আয় হয়েছে ৪ কোটি ১০ লাখ ডলার, যা লক্ষ্যমাত্রার তুলনায় ১৩ দশমিক ১৭ শতাংশ কম। গত চার মাসে হোম টেক্সটাইল খাতে প্রবৃদ্ধি ও লক্ষ্যমাত্রা দুটোই কমেছে। এ সময় আয় এসেছে ২৩ কোটি ৯৫ লাখ ডলার। ২০১৯-২০ অর্থবছরের জুলাই-অক্টোবর মাস শেষে কৃষি পণ্য রপ্তানি আয়ের লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হলেও প্রবৃদ্ধি অর্জিত হয়নি। এ খাত থেকে আয় এসেছে ৩৫ কোটি ৭৫ লাখ ডলার। কৃষি পণ্য খাতে লক্ষ্যমাত্রার তুলনায় রপ্তানি আয় বেড়েছে ১ দশমিক ৩২ শতাংশ। তবে আগের অর্থবছরের তুলনায় প্রবৃদ্ধি কমেছে ২ দশমিক ৪৬ শতাংশ।

অর্থ-শিল্প-বাণিজ্য'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj