আফিফের আইডল সাকিব

বৃহস্পতিবার, ৭ নভেম্বর ২০১৯

খেলা প্রতিবেদক : এ মুহূর্তে বাংলাদেশ টি-টোয়েন্টি দলের অপরিহার্য সদস্য আফিফ হোসেন। অল্প সময়েই ব্যাটে-বলে দারুণ নৈপুণ্য দেখিয়ে সমর্থকদের মন জয় করে নিয়েছেন এই তরুণ ক্রিকেটার। সাকিব আল হাসানকে ছোট থেকেই আইডল ভেবে এগিয়ে যাচ্ছেন বলে গতকাল এক সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন আফিফ। তিনি বলেন, সাকিব ভাইকে একদম ছোট থেকেই ফলো করি। তবে সাকিব মূল জেনুইন অলরাউন্ডার হলেও নিজেকে ব্যাটিং অলরাউন্ডার পরিচয় দিতেই স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন আফিফ।

ভারতের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচ জিতে টাইগারদের লক্ষ্য এখন সিরিজ নিশ্চিত করা। সে লক্ষ্যে আজ খেলতে নামবে তারা। বাংলাদেশের লক্ষ্য যেমন সিরিজ নিশ্চিত করা, তেমনি ভারতের চেষ্টা থাকবে সিরিজে সমতা ফেরানো। তবে সেসব না ভেবে নিজেদের নিয়ে কাজ করার দিকেই বেশি মনোযোগী তরুণ আফিফ।

এ তরুণ ক্রিকেটার বলেন, এখন ড্রেসিং রুমের অবস্থা ভালো। আমরা পরের ম্যাচের প্রস্তুতি নিচ্ছি। নিজেদের খেলা নিয়ে ভাবছি। নিজেদের সেরা পারফরমেন্স করার পর দেখা যাবে। আপাতত সবার জায়গা থেকে আমাদের সেরা পারফরমেন্সটা করার চেষ্টা করব। ম্যাচ জিতলে আসলে তেমন ভুল বের হয় না। এরপরও ব্যক্তিগতভাবে যার যে ভুলত্রুটি ছিল, সে সেগুলো নিয়ে কাজ করার চেষ্টা করবে।

মূল পরিচয় ব্যাটিং, তবে প্রথমবার আলোড়ন তুলেছিলেন নিজের অফস্পিন বোলিং দিয়ে। বিপিএলে নিজের অভিষেক ম্যাচেই শিকার করেছিলেন ৫টি উইকেট। তবে এর ফলে তার ব্যাটিং প্রতিভা আড়াল হয়নি একটুও। সময়ের পরিক্রমায় উল্টো সমান ধারালো হয়েছে আফিফ হোসেনের দারুণ ব্যাটিং ও বোলিং।

বয়সভিত্তিক ক্রিকেটের সিঁড়ি বেয়ে খেলেছেন গত বছরের অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ^কাপে। অলরাউন্ড নৈপুণ্যের সুবাদে ছিলেন আসরের সেরা একাদশেও। একই বছর অভিষেক হয়েছিল জাতীয় দলেও। তবে প্রত্যাশা না মেটাতে পারায় এক ম্যাচ খেলেই বাদ পড়েন দেড় বছরের জন্য।

চলতি বছর আফগানিস্তান ও জিম্বাবুয়েকে নিয়ে খেলা ত্রিদেশীয় সিরিজের মধ্য দিয়ে ফিরেছেন লাল-সবুজের জার্সি গায়ে। প্রথম ম্যাচেই খেলেন ২৬ বলে ৫২ রানের ইনিংস, দলকে এনে দেন অসাধারণ এক জয়। কম যাননি বল হাতেও। আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচে ৩ ওভারে মাত্র ৯ রান খরচায় শিকার করেন ২টি উইকেট।

ধারাবাহিকতা ধরে রেখেছেন চলতি ভারত সফরেও। সিরিজের প্রথম ম্যাচে ব্যাটিংয়ে নামার সুযোগ হয়নি। তবে বল হাতে ৩ ওভারে খরচ করেছেন মাত্র ১১ রান দিয়ে, নিজের বলেই ধরেছেন অসাধারণ এক ক্যাচ। সবমিলিয়ে এখনো পর্যন্ত ব্যাটিং, বোলিং ও ফিল্ডিং- তিন বিভাগেই দারুণ দক্ষতার পরিচয় দিয়েছেন ২০ বছর বয়সী আফিফ।

গতকাল রাজকোটের সৌরাষ্ট্র স্টেডিয়ামে সংবাদ সম্মেলনে আফিফ বলেন, অবশ্যই আমি একজন ব্যাটিং অলরাউন্ডার। শেষ ম্যাচে আমার ব্যাটিংয়ের সুযোগ আসেনি। বোলিংয়ে সুযোগ এসেছে। সেখানে আমি দলের জন্য পারফর্ম করার চেষ্টা করেছি। ব্যাটিংয়ে সুযোগ এলে আমি একইভাবে চেষ্টা করব আমার সেরাটা দেয়ার।’

এ সময় আফিফ জানান, এখনো নতুন বোলিং কোচ ড্যানিয়েল ভেট্টরির সঙ্গে সে অর্থে কাজ করা হয়নি। তার ভাষ্যে, ‘(প্রথম ম্যাচে) বোলিংয়ে আলাদা কোনো ভাবনা ছিল না। ডট বল খেলানোর চেষ্টা করছিলাম। (ভেট্টরির কাছ থেকে) নতুন তেমন কিছু এখনো শেখা হয়নি। অন্য বোলারদের নিয়ে অনেক কাজ করলেও আমার সঙ্গে ততটা করা হয়নি। আমি সব সময় যেমন করে থাকি, আমাকে সেটাই করে যেতে বলেছেন তিনি।

খেলা-ধূলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj