ফুলছড়িতে পুরুষের রান্না খাবারের উৎসব

বৃহস্পতিবার, ৭ নভেম্বর ২০১৯

ফুলছড়ি (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি : গাইবান্ধার ফুলছড়িতে ‘ভিন্ন রূপে পুরুষ’ রান্না উৎসব ২০১৯ এবং খাদ্যমেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। নেদারল্যান্ড পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আর্থিক সহায়তা এবং একশন এইড বাংলাদেশের কারিগরি সহযোগিতায় এসকেএস ফাউন্ডেশনের পাওয়ার প্রকল্পের আওতায় ফুলছড়ি উপজেলা নারী উন্নয়ন ফেডারেশনের আয়োজনে উপজেলা পরিষদ চত্বরে দিনব্যাপি এই উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। সাধারণ মানুষের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি এবং গৃহস্থলির কাজে বিশেষ করে রান্নার ক্ষেত্রে পুরুষের অংশগ্রহণ উৎসাহিত করতে অর্থাৎ ঘরের কাজে নারীদের সাহায্য সহযোগিতা করাও এই প্রতিযোগিতার উদ্দেশ্য বলে জানান উদ্যোক্তারা।গত সোমবার অনুষ্ঠিত এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বেলুন উড়িয়ে ও ফিতা কেটে রান্না উৎসবের উদ্বোধন করেন জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার এডভোকেট ফজলে রাব্বী মিয়া এমপি। এসকেএস ফাউন্ডেশনের সমন্বয়কারী সুরুজ আলী সরকারের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন গাইবান্ধা জেলা সিভিল সার্জন ডা. এ বি এম আবু হানিফ, ফুলছড়ি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জিএম সেলিম পারভেজ, ফুলছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবু রায়হান দোলন, একশন এইড বাংলাদেশের প্রকল্প সমন্বয়কারী ইসরাত জাহান বিজু, উপজেলা ফেডারেশনের কোষাধ্যক্ষ বিথি বেগম, এসকেএস পাওয়ার প্রজেক্টের সমন্বয়কারী জালাল উদ্দিন প্রমুখ। এর আগে প্রধান অতিথি ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া ও অন্যান্য অতিথিবৃন্দ প্রতিযোগিতায় পুরুষদের রান্না করা খাবারের পরসার বিভিন্ন স্টল পরিদর্শন করেন এবং রান্না করা খাবারের স্বাদ গ্রহণ করেন।

প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়া ১৮টি স্টলে পুরুষরা গৃহস্থালীর সেবামূলক কাজ করেন এবং নারীরা ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব পালন করেন। প্রতিযোগিতায় পুরুষরা মাছ, মাংস, সবজি, ভর্তা, ভাজিসহ অন্তত ৭০ রকমের খাবার উপস্থাপন করেন। এছাড়া ছিল পিঠা পায়েসের পসরা। প্রতিযোগিতা উপলক্ষে মঞ্চ নাটক পরিবেশন শেষে পুরস্কার বিতরণ করা হয়।

উল্লেখ্য, গাইবান্ধার ফুলছড়ি উপজেলার উদাখালী, কঞ্চিপাড়া, উড়িয়া, গজারিয়া ও ফজলুপুর ইউনিয়নের গ্রামীণ অতিদরিদ্র ও দরিদ্র নারীদের অর্থনৈতিক ক্ষমতায়নের লক্ষ্যে নেদারল্যান্ড পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আর্থিক ও একশন এইড বাংলাদেশের কারিগরি সহযোগিতায় প্রকল্পভুক্ত নারী-পুরুষদের নিয়ে কাজ করছে এসকেএস ফাউন্ডেশনের পাওয়ার প্রকল্প। প্রকল্পের নারী-পুরুষরা গৃহস্থালী সেবামূলক কাজের স্বীকৃতি, হ্রাস ও পুনর্বণ্টন করা, তাদের সেবামূলক কাজ জাতীয় আয়ের সঙ্গে যুক্ত করা এবং এ সংক্রান্ত বিল জাতীয় সংসদে পাশ করার দাবি জানান।

সারাদেশ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj