ম্যাচ নিয়ে সংশয়

বৃহস্পতিবার, ৭ নভেম্বর ২০১৯

খেলা প্রতিবেদক : বাংলাদেশের বিপক্ষে হার দিয়ে শুরু করা ভারত ঘুরে দাঁড়ানোর পথ খুঁজছে। অন্যদিকে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ম্যাচ জিতে সিরিজ জয়ের হাতছানি টাইগারদের। জিতলে বাংলাদেশ লিখবে অন্য এক ইতিহাস। থাকবে ভারতকে টি-টোয়েন্টি সিরিজে তাদেরই মাটিতে হোয়াইটওয়াশের প্রত্যাশাও। রাজকোটের সৌরাষ্ট্র ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আজ ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায়। ভারতের স্টার স্পোর্টস, বাংলাদেশের গাজী টিভি হাই ভোল্টেজ এই ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করবে। কিন্তু আগের দুদিন সাইক্লোন ‘মহা’র কোনো প্রভাব না থাকলেও গতকাল সন্ধ্যা থেকে ঝড়ো হাওয়ার সঙ্গে শুরু হয় তীব্র বৃষ্টি। আজ ম্যাচ মাঠে গড়াবে কিনা তা নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে।

দিল্লির অরুণ জেটলি স্টেডিয়ামে প্রথম ম্যাচে জয় দিয়ে শুরু হয়েছে বাংলাদেশের ভারত সফর। সাকিব-তামিমবিহীন টিম বাংলাদেশ রোহিতদের ভারতকে তাদেরই মাটিতে হারিয়ে টি-টোয়েন্টিতে প্রথম জয়ের স্বাদ পেয়েছে। ৭ উইকেটে হেরে ব্যাকফুটে চলে যাওয়া স্বাগতিকরা তাই রাজকোটে ঘুরে দাঁড়াতে মরিয়া। ওদিকে ইতিহাস গড়তে মুখিয়ে আছেন রাসেল ডমিঙ্গোর শিষ্যরাও। অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের মতে, আমাদের ক্রিকেট অঙ্গনে যে অস্থিরতা ছিল (ধর্মঘট, সাকিবের নিষেধাজ্ঞা) সেখান থেকে ভারতে সিরিজ জয় হবে দেশের ক্রিকেটের জন্য, দলের জন্য বড় একটা প্রেরণা। ভারত নিজেদের মাঠে এমনকি যে কোনো জায়গায় খুবই ভালো খেলে। আজকের ম্যাচেও তাদের হারানোর চেষ্টা থাকবে আমাদের। বোলিংয়ে তারা খুবই ভালো দল। স্পিন এবং পেস বলে অনেক বৈচিত্র্য আছে। আমরা যদি শুরুর বল থেকেই ভালো খেলি, ভুল না করি এবং মোমেন্টাম আমাদের দিকে নিতে পারি তাহলে আমার মন বলে ম্যাচটা আমাদের পক্ষে আসবে। যারা পরিকল্পনা কাজে লাগাতে পারবে তারাই ম্যাচটা জিতবে।

দিল্লি এবং রাজকোটের উইকেট এক নয়। বাংলাদেশ কেমন দল নিয়ে নামবে ভারতীয় সাংবাদিকদের সেই প্রশ্নের উত্তর তাই জিউয়ে রাখলেন মাহমুদউল্লাহ। বললেন, সামনের ম্যাচের উইকেট, কন্ডিশন দেখে দল ঠিক করা হবে। তবে বাংলাদেশের সাংবাদিকদের প্রায় একই প্রশ্নের উত্তরে বললেন, চেষ্টা থাকবে জয়ী দলের সমন্বয় ধরে রাখার। তবে উইকেট এবং কন্ডিশন দেখে যে কোনো সিদ্ধান্ত নিতে হতে পারে।

সিরিজ জয়ে চোখ রেখে দলের পরিকল্পনা নিয়ে বাংলাদেশ অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ বলেন, আমরা আক্রমণাত্মক ক্রিকেট খেলব। ইতিবাচব ক্রিকেট খেলব।

ওদিকে দিল্লির ম্যাচ ভুলে গিয়ে নতুন করে রাজকোটে সতীর্থরা নামতে আগ্রহী বলে জানান টিম ইন্ডিয়ার ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক রোহিত শর্মা। গণমাধ্যমের সামনে উপস্থিত হয়ে রোহিত বলেন, সিরিজ বাঁচানোর লড়াইয়ে পরিকল্পনায় কিছুটা পরিবর্তন থাকবে।

রোহিত জানান, আমাদের কৌশল কী হবে সেটা এখনই বলে দিতে পারি না। তবে এটুকু বলব, আমাদের খেলার ধরনে পরিবর্তন আসবে। ইতিবাচক মানসিকতা নিয়ে আমরা খেলতে নামব। দিল্লির উইকেট আর রাজকোটের উইকেটের মধ্যে ভিন্নতা আছে। দিল্লিতে আমরা উইকেট দেখেই খেলেছি। রাজকোটের উইকেট যদি ভালো থাকে তাহলে আমাদের খেলার ধরনে কিছুটা পরিবর্তন থাকবে। ব্যাটিং-বোলিং দুই বিভাগেই আমাদের অ্যাপ্রোচ ভিন্ন হবে। আশা করছি রাজকোটের উইকেট দিল্লির চেয়ে ভালো হবে।

রোহিত আরো জানান, কোনো নির্দিষ্ট বিভাগের ওপর চাপ নেই। দ্বিতীয় ম্যাচে জিততে হলে পুরো দলকেই পারফর্ম করতে হবে। আমরা একটা দল হিসেবে খেলতে চাই। আগের ম্যাচে একটা দল হিসেবে হেরেছি, শুধু একটা বোলিং ইউনিট হিসেবে হারিনি। তাই পুরো দলকে একসঙ্গে এগিয়ে আসতে হবে। নিজেদের কাজটা ব্যাটসম্যান আর বোলারদের নিজেকেই করতে হবে। এটাই পরিকল্পনা আমাদের।

দিল্লির ম্যাচে ভারত দুই বিশেষজ্ঞ পেসার ও মিডিয়াম পেসার শিবম দুবের সঙ্গে একাদশে রেখেছিল তিন স্পিনার। যদিও দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে একাদশে বোলিং আক্রমণে পরিবর্তন আসার ইঙ্গিত দিয়েছেন বিরাট কোহলির অনুপস্থিতিতে অধিনায়কের দায়িত্ব পাওয়া রোহিত।

দিল্লিতে খলিল আহমেদ ১ উইকেট পেলেও ৪ ওভারে খরচ করেছেন ৩৭ রান। তা ছাড়া ১৯তম ওভারে তার বোলিংয়েই বাংলাদেশের জয় এক রকম নিশ্চিত হয়ে যায়। মুশফিক এই পেসারকে টানা চার বলে বাউন্ডারি হাঁকান। রাজকোটের ম্যাচে তাই খলিলের জায়গায় দেখা যেতে পারে শারদুল ঠাকুরকে।

ওদিকে আজকের ম্যাচে চোখ রাঙাচ্ছে বৃষ্টি। ঘূর্ণিঝড় ‘মহা’র প্রভাবে বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে গুজরাটের রাজকোটে। তবে সৌরাষ্ট্র ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের এক কর্মকর্তা ম্যাচ আয়োজন নিয়ে আশাবাদী। বৃহস্পতিবার সকালের দিকে বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। তবে দিনের শেষভাগে তেমন সম্ভাবনা নেই। তা ছাড়া রাজকোট স্টেডিয়ামের পানি নিষ্কাশন ব্যবস্থা খুবই কার্যকরী। তাই বৃষ্টি নামলেও মাঠ শুকিয়ে কার্টেল ওভারে খেলা সম্ভব বলে জানান এই কর্মকর্তা।

দিল্লির প্রথম ম্যাচ জেতায় তিন ম্যাচের সিরিজে বাংলাদেশ ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে রয়েছে। সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টি অনুষ্ঠিত হবে নাগপুরে ১০ নভেম্বর।

শেষ পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj