স্পন্সর পেল বিপিএল

বৃহস্পতিবার, ৭ নভেম্বর ২০১৯

খেলা প্রতিবেদক : দেশের জনপ্রিয় টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট বিপিএলের সপ্তম আসর বসবে আগামী ডিসেম্বর মাসে। এই টুর্নামেন্ট ঘিরে ক্রিকেট ভক্ত-সমর্থকদের মাঝে জল্পনা-কল্পনা সীমা ছাড়িয়ে যাচ্ছিল। কারণ এখনো বিপিএলের প্লেয়ার্স ড্রাফট অনুষ্ঠিত হয়নি, দলগুলোর কোচ ঠিক হয়নি। এমনকি সাতটি দলের স্পন্সর পার্টনারদের নামও ঘোষণা হয়নি। তবে গতকাল ক্রিকেটপ্রেমীদের সুখবর জানিয়েছেন বিসিবির বিগ বস নাজমুল হাসান পাপন। তিনি বলেছেন, বিপিএলের প্লেয়ার্স ড্রাফট অনুষ্ঠিত হবে ১৭ নভেম্বর। আসর শুরু হওয়ার কথা ছিল ৬ ডিসেম্বর, কিছু সমস্যার কারণে তা পিছিয়ে ৮ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। প্রথম ম্যাচ মাঠে গড়াবে ১১ ডিসেম্বর। গতকাল বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের বৈঠকেই এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এ ছাড়াও জানা গেছে, বিপিএলে চট্টগ্রাম বিভাগের স্পন্সরশিপ স্বত্ব কিনে নিয়েছে আকতার গ্রুপ। গতকাল এক সংবাদ সম্মেলনে এমনটাই জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) আগামী মাসে দেশ-বিদেশের তারকাদের নিয়ে শুরু হবে ব্যাট-বলের লড়াই। এবার বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে বিপিএলের নাম দেয়া হয়েছে, ‘বঙ্গবন্ধু’ বিপিএল। গতবার বিপিএলের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান জমজমাট না হলেও এবার সপ্তম আসরে নানা চমক দেখাতে আগ্রহী বিপিএল কর্তৃপক্ষ। তারই অংশ হিসেবে এবার বিপিএল উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বিপিএল সংক্রান্ত এক সভা শেষে গতকাল বিসিবি সভাপতি পাপন বলেছেন, বিপিএল উদ্বোধনের জন্য আমরা প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করেছিলাম। তিনি রাজি হয়েছেন।

বিপিএলের ড্রাফট, উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ও টুর্নামেন্ট শুরুর তারিখ পরিবর্তনের বিষয় বলেছেন, কিছু সমস্যার কারণে আমরা কয়েক দিন পিছিয়ে দিচ্ছি বিপিএল। ৮ ডিসেম্বর হবে সপ্তম আসরের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। ১১ ডিসেম্বর হবে প্রথম ম্যাচ। আর খেলোয়াড়দের ড্রাফট হবে ১৭ নভেম্বর।

তা ছাড়া আগামী ডিসেম্বরে শুরু হতে যাওয়া এ টুর্নামেন্টে প্রথমবারের মতো স্বত্বাধিকারী হওয়া আকতার গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক কে এম রিফাতুজ্জামান বলেন, দর্শকপ্রিয় খেলা ক্রিকেটের অগ্রযাত্রার সঙ্গী হতে পেরে আমরা আনন্দিত। এমন বড়মাপের আসর ক্রিকেটের জন্য তো বটেই, বহির্বিশে^ বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উন্নয়নেও গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করি।

প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, একটি পূর্ণাঙ্গ দল তৈরির প্রস্তুতি চলছে। ইতোমধ্যে দলের প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা (সিওও) হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছেন সৈয়দ ইয়াসির আলম।

এ ছাড়া খেলোয়াড়, কোচিং স্টাফ, ফিজিও নিয়োগসহ আনুষঙ্গিক সব প্রক্রিয়া অব্যাহত রয়েছে। নিয়ম ও সময় মেনে সব ধরনের কার্যক্রম পর্যায়ক্রমে চলতে থাকবে বলে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

শেষ পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj