মানিকগঞ্জে বেøন্ডার বিস্ফোরণে মা মেয়ে নিহত

বৃহস্পতিবার, ৭ নভেম্বর ২০১৯

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি : বেøন্ডার বিস্ফোরণের ঘটনায় হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চার দিন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে করে অবশেষে না ফেরার দেশে চলে গেলেন মা আসমা বেগম (৪৫) ও সাত বছরের শিশু মেয়ে সুমাইয়া আক্তার। গতকাল বুধবার ভোর রাতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আড়াই ঘণ্টার ব্যবধানে মারা যান মা ও মেয়ে। এখনো হাসপাতালে মৃত্যু যন্ত্রণায় চিকিৎসাধীন ১৫ বছরের দগ্ধ ছেলে আরিফ হোসেন।

জানা যায়, মুন্নু ফেব্রিক্সে চাকরি করতেন স্বামী ইব্রাহিম মিয়া। চাকরির সুবাদে মানিকগঞ্জ সদর উপজেলার গিলন্ড এলাকায় স্ত্রী, মেয়ে ও ছেলেকে নিয়ে বাসা ভাড়া করে থাকতেন ইব্রাহিম। গত শনিবার সন্ধ্যায় পরিবারের জন্য পিঠা বানানোর জন্য বেøন্ডার মেশিনে চালের গুঁড়া তৈরি করছিলেন স্ত্রী আসমা বেগম। পাশে খাটের উপর বসা ছিল শিশু মেয়ে সুমাইয়া আক্তার ও পাশের রুমে জামা কাপড় ইস্ত্রি করছিল ছেলে আরিফ হোসেন। এ সময় হঠাৎ বিকট শব্দে বেøন্ডার মেশিনের বিস্ফোরণে আগুন ধরে যায় ওই রুমে। এতে ওই রুমে থাকা মা, মেয়ে ও ছেলে আগুনে দগ্ধ হয়। পরে স্থানীয়রা এসে তাদের উদ্ধার করে স্থানীয় মুন্নু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাদের ঢাকা মেডিকেল কলেজের বার্ন ইউনিটে স্থানান্তর করা হয়। দগ্ধ তিনজনের মধ্যে মা আসমা বেগম ও শিশু মেয়ে সুমাইয়ার শরীর ৯০ ভাগের বেশি এবং ছেলে আরিফের শরীরের ৬০ ভাগ পুড়ে যায়। অবশেষে ঢাকা মেডিকেল কলেজের বার্ন ইউনিটে চার দিনের মাথায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় না ফেরার দেশে চলে যান মা ও মেয়ে। বুধবার বিকেলে জানাজা শেষে স্থানীয় গিলন্ড কবরস্থানে দাফন করা হয় মা ও মেয়েকে।

শেষ পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj