সবার জন্য পেনশন চালু করতে চায় সরকার

বৃহস্পতিবার, ৭ নভেম্বর ২০১৯

কাগজ প্রতিবেদক : সবার জন্য পেনশন চালু করতে চায় সরকার। ইতোমধ্যেই এ নিয়ে কাজ শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। তিনি বলেন, আমাদের সরকার পেনশন স্কিমের রাষ্ট্রীয় কাজটি সম্পন্ন করবে।

গতকাল বুধবার সকালে রাজধানীর বারিধারায় গার্ডিয়ানা হোটেলে ‘সর্বজনীন পেনশন প্রকল্প নিয়ে কাঠামোগত অনুসন্ধান-বিষয়ক’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় অংশ নিয়ে এ কথা বলেন তিনি। মন্ত্রী বলেন, বর্তমানে আমাদের দেশে হতদরিদ্র মানুষের সংখ্যা ১১ শতাংশ। তাদের ভাগ্যোন্নয়নে সরকার কাজ করছে।

সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি) ও অক্সফাম ইন বাংলাদেশের আয়োজনে সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন সংসদ সদস্য আবুল কালাম আজাদ, বিশ^ ব্যাংকের সাবেক লিড ইকোনমিস্ট জাহিদ হোসেন, সিপিডির সম্মানিত ফেলো দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য ও অধ্যাপক মুস্তাফিজুর রহমান, অক্সফাম বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর ড. দীপঙ্কর দত্ত প্রমুখ।

দেশের নাগরিকদের জন্য একটি সর্বজনীন পেনশন স্কিম চালু করার জন্য এখনই উপযুক্ত সময় বলে মন্তব্য করেন অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি আবুল কালাম আজাদ। বর্তমান সরকারের হাত ধরেই তা চালু হবে বলে প্রত্যাশার কথা জানান তিনি।

সিপিডির ফেলো ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য বলেন, দেশে অর্ধেক মানুষের কোনো আর্থিক নিরাপত্তা নেই। বাংলাদেশ একটি আধুনিক প্রগতিশীল মধ্যম আয়ের দেশ, অথচ তার চার ভাগের এক ভাগ মানুষ দারিদ্র্যসীমার নিচে থাকবে এটা হতে পারে না। তিনি বলেন, সবার জন্য পেনশন বাস্তবায়ন করতে হলে রাজনৈতিক প্রতিশ্রæতি দরকার।

দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য বলেন, পেনশন স্কিম শুধু পেনশন স্কিম না, এটার সঙ্গে বৃহত্তম অর্থনৈতিক এবং কাঠামোগত সংস্কার নীতি সংশোধন এবং এটার সামষ্টিক অর্থনৈতিক পরিমণ্ডল এগুলোর সঙ্গে জড়িত। তাই শুধু ওইটুকু করব আর বড়টা করব না, এটা হতে পারে না। তিনি বলেন, এগুলো করতে হলে আমাদের সোচ্চার হতে হবে। যদি কোনো নীতির পক্ষে সামাজিক চাপ না থাকে তা হলে সরকারের অনেক প্রয়োজনের ভেতরে এটা হারিয়ে যায়।

সর্বজনীন পেনশন স্কিম নিয়ে অর্থনীতিবিদ জাহিদ হাসান বলেন, আমাদের দেশে ১০ শতাংশের বেশি পেনশন কভারেজ নেই। একটা পেনশন চালু হলে সেটা পরিবর্তন করা কঠিন, তাই আমাদের সাবধানতার সঙ্গে এগুতে হবে।

জাহিদ হাসান বলেন, আমাদের দেশে যারা দারিদ্র্যসীমার নিচে বসবাস করেন তাদের উপরে নিয়ে আসতে হবে। তিনি সর্বজনীন পেনশন চালু করার ক্ষেত্রে তিনটি বিষয়ের প্রতি গুরুত্ব দেন। পেনশনের পরিমাণটা পর্যাপ্ত হতে হবে, পেনশন স্কিম সাশ্রয়ী মূল্যের মধ্যে হতে হবে এবং এটা টেকসই হতে হবে।

অন্য বক্তারা বলেন, ধীরে ধীরে শক্তিশালী হচ্ছে বাংলাদেশের অর্থনীতি। এ অবস্থায় সর্বজনীন পেনশন স্কিম চালু করে দেশের সব নাগরিকের জন্য অর্থনৈতিক নিরাপত্তাবলয় তৈরির সময় এসেছে।

প্রথম পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj