দেশ-বিদেশের শিল্পীরা মাতাবে রঙ্গমেলা

শনিবার, ২ নভেম্বর ২০১৯

রাজধানীর আগারগাঁওয়ের মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরে আন্তর্জাতিক সাংস্কৃতিক উৎসবের আয়োজন করতে যাচ্ছে নাট্য সংগঠন বটতলা। ‘নৃশংস নৈঃশব্দ ভেঙে সুনন্দ সাহস জাগুক প্রাণে প্রাণে’- স্লোগান নিয়ে আগামী ১৬ নভেম্বর সন্ধ্যায় ‘বটতলা রঙ্গমেলা ২০১৯’ শিরোনামে এ উৎসব উদ্বোধন করবেন নাট্যজন আতাউর রহমান। প্রধান অতিথি থাকবেন সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ। বিশেষ অতিথি থাকবেন তিন তরুণ নাট্যকার সাধনা আহমেদ, রুমা মোদক ও শুভাশিস সিনহা। তৃতীয়বারের মতো আয়োজিত এ উৎসব চলবে ২৬ নভেম্বর পর্যন্ত। উৎসবের সমাপনী সন্ধ্যায় আজীবন সম্মাননা জানানো হবে নাট্যব্যক্তিত্ব মামুনুর রশীদকে। এ দিন বিকেল সাড়ে ৪টায় অনুষ্ঠিত হবে ‘রঙ্গমঞ্চে বটতলার আলাপ’। এতে অংশ নেবেন ভারতের প্রখ্যাত নাট্যব্যক্তিত্ব বিভাস চক্রবর্তী। এ ছাড়া প্রতিদিন সন্ধ্যায় রঙ্গমেলায় বিভাগীয় নাট্যজন সম্মাননা প্রদান করা হবে। এ সম্মাননা পাচ্ছেন দেলোয়ার হোসেন (বরিশাল বিভাগ), হেমেন্দ্র চৌধুরী (সিলেট বিভাগ), হরিপদ সূত্রধর (ঢাকা বিভাগ), সবিতা সেনগুপ্ত (রংপুর বিভাগ), গৌরাঙ্গ আদিত্য (ময়মনসিংহ বিভাগ), মিলন চৌধুরী (চট্টগ্রাম বিভাগ), অনিতা মৈত্র (রাজশাহী বিভাগ), রোহানি বেগম মেরী (খুলনা বিভাগ)। পাশাপাশি প্রতিদিন নাটক শেষে পর্দার অন্তরালে থাকা থিয়েটারের অপরিহার্য কুশলীদের জানানো হবে সম্মান। বটতলার মোহাম্মদ আলী হায়দার জানান, উৎসবে মঞ্চস্থ হবে ‘ক্রাচের কর্নেল’ (বটতলা, বাংলাদেশ), ‘আমার মুখের আঁচলখানি’ (রঙ্গাশ্রম, ভারত), ‘ডিলিমাস উইথ মাই ফ্লেমেনকো টেইলকোট’ মুন পেলেস, স্পেন), ‘মিস্টিরিয়াস গিফট’ ক্রেজি বডি গ্রুপ, ইরান), ‘৪.৪৮ সাইকোসিস’ (আরোহণ গুরুকুল, নেপাল), বিল্বমঙ্গল (চাকদহ নাট্যজন, ভারত), ম্যাকবেথ (পদাতিক নাট্য সংসদ, বাংলাদেশ), শুক (জলপাইগুড়ি কলাকুশলী, ভারত), ‘ব্লু্যাক হোল’ (জ্যোতি ডোগরা, ভারত), আচার্য প্রফুল্লচন্দ্র (সুখচর পঞ্চম, ভারত), খনা (বটতলা, বাংলাদেশ)। প্রতিদিন নাটক মঞ্চায়নের পর বহিরাঙ্গনে নাদিম মঞ্চে রাত সাড়ে ৯টা থেকে ১০টায় দর্শকের মুখোমুখি হবে সংশ্লিষ্ট নাটকের নির্দেশক। এ ছাড়া সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টা থেকে সাতটা পর্যন্ত মঞ্চে থাকবে গান, নাটক, কবিতা, নাচের পরিবেশনা। অংশ নেবে মনিপুরী থিয়েটার, ক্ষ্যাপা বাউল, জবিরঙ্গ, সমগীত, এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইমেন, এফ মাইনর, ঢাকা থিয়েটার, মাদল, সর্বনাম, জাককানইবি নাট্যকলা ও পরিবেশনা বিভাগ এবং বেতাল।

উৎসবের সুমন মঞ্চে দেখানো হবে চারটি তথ্যচিত্র। ২১-২৪ নভেম্বর সাড়ে তিনটা থেকে পাঁচটা পর্যন্ত দেখানো হবে ‘লেট দেয়ার বি লাইট’ (তাপস সেন, ভারত), ফেরদৌসি মজুমদার (বাংলাদেশ), ‘বিহাইন্ড দ্য সারটেইন বিভাস চক্রবর্তী (ভারত), ‘দ্য টিচার : সৈয়দ জামিল আহমেদ (বাংলাদেশ)’। উৎসবে তিনটি মাস্টারক্লাস অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে সঙ্গীত ও নাট্য বিষয়ে মাস্টারক্লাস নেবেন শিমুল ইউসুফ, চিত্রকলা ও নাট্যশিল্প নিয়ে বলবেন ঢালী আল মামুন এবং শরীর, নৃত্য ও প্রশ্ন নিয়ে মাস্টারক্লাসে থাকবেন শৈবাল বসু (ভারত)। এ ছাড়া হৃদয়ঙ্গম ঋদ্ধ মঞ্চে থাকবে দু’দিন শিশু প্রহর। ২২ ও ২৩ নভেম্বর সকাল ১০টা থেকে শিশু প্রহরে মঞ্চস্থ হবে আওয়ার কিংডম (শব্দাবলী, বরিশাল), পুঁথি পড়া, পাখি পড়া (ফুলকি, চট্টগ্রাম) ও পুতুলনাচ (বাংলাদেশের পুতুল নাট্য গবেষণা ও উন্নয়ন কেন্দ্র)। থাকবে আর্টক্যাম্প। এই ক্যাম্পে উপস্থিত থেকে শিশুদের উৎসাহিত করবে সিসিমপুর। ২৬ নভেম্বর রাত ৯টায় উৎসবের পর্দা নামবে রঙ্গমেলার।

:: শাহনাজ জাহান

মেলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj