শ্রীনগরে বিদ্যালয়ের সামনে অটোরিকশা স্ট্যান্ড : শিক্ষার্থীসহ পথচারীদের দুর্ভোগ

বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯

শ্রীনগর (মুন্সীগঞ্জ) প্রতিনিধি : শ্রীনগর সরকারি সুফিয়া এ হাই খান বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সামনে অটোরিকশা স্ট্যান্ড থাকার কারণে শিক্ষার্থীসহ পথচারীদের দুর্ভোগ এখন নিত্যদিনের ব্যাপার। উপজেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির একাধিক সভায় এ বিষয় গুরুত্বের সঙ্গে আলোচনায় উঠে এলে স্থানীয় এমপি, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউএনও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে অটোরিকশা স্ট্যান্ড সরানোর জন্য নির্দেশ দেন। কিন্তু এখনো তা সরানো হয়নি। জানা গেছে, এলোমেলোভাবে অটোরিকশা রাখার কারণে জ্যামে আটকা পড়তে হয় শিক্ষার্থীসহ পথচারীর। এই জ্যাম ২০-৩০ মিনিট পর্যন্ত লেগে থাকতে দেখা গেছে।

অন্যদিকে বিদ্যালয়ের মূল ফটকের সামনে বাজারের সব ময়লা-আবর্জনা ফেলে ময়লার ভাগাড় বানিয়ে রাখা হয়েছে। মাঝেমধ্যে আগুনে ভাগাড়ের ময়লা-আবর্জনা পোড়ানো হয়। এর বিষাক্ত ধোঁয়া বিদ্যালয়সহ পুরো এলাকায় ছড়িয়ে পড়ে। গত ১৪ অক্টোবরের আইনশৃঙ্খলা সভায় উপস্থিত বক্তারা বলেন, বিদ্যালয়ের সামনে অটোরিকশার স্ট্যান্ড দিয়ে একটি মহল চাঁদা আদায় করছে। তাই তাদের সরানো সম্ভব হচ্ছে না। শ্রীনগর বাজারের আশপাশে এমন অটোরিকশার স্ট্যান্ড দিয়ে মাসে কয়েক লাখ টাকা চাঁদা আদায় করা হচ্ছে। এ সময় উপজেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় উপস্থিত শ্রীনগর থানার ওসি তদন্ত মো. হেলালউদ্দিন ও স্থানীয় চেয়ারম্যান মোখলেছুর রহমানকে বিষয়টি দেখতে বলা হলেও কোনো কাজে আসছে না। স্থানীয় ও বিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, মাঝেমধ্যেই অটোরিকশার ধাক্কায় শিক্ষার্থীসহ পথচারীরা আহত হচ্ছেন। গত কয়েকদিন আগে অটোর ধাক্কায় ওই বিদ্যালয়ের এক ছাত্রীর হাত ভেঙে যায়। অন্যদিকে শ্রীনগর বাজার ব্যবসায়ীরা ময়লা-আবর্জনা ফেলে বিদ্যালয়ের সামনে একটি ময়লার ভাগাড় বানিয়ে রেখেছে। এতে করে স্বাস্থ্যঝুঁকিতে রয়েছে শিক্ষার্থীসহ পথচারীরা। শ্রীনগর ফায়ার সার্ভিস সূত্রে জানা যায়, কিছুদিন আগে ওই রাস্তা দিয়ে পেশাগত কাজে ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি জ্যামের কারণে আটকা পড়ে যায়। রাস্তায় অটোরিকশা, মিষ্টির দোকানসহ বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালামাল বাইরে রাখার কারণে ফায়ার সার্ভিসের এক কর্মী দুর্ঘটনার শিকার হন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি সূত্র জানায়, অটোরিকশা প্রতি দৈনিক ২০-৩০ টাকা করে দিতে হয় লাইনম্যানকে। শ্রীনগর বাজার ও এর আশপাশে যত্রতত্র বেশ কয়েকটি অটোরিকশার স্ট্যান্ড রয়েছে।

শ্রীনগর সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোখলেছুর রহমান এ বিষয়ে বলেন, এখান থেকে অটোরিকশার স্ট্যান্ড সরাতে কিছুদিন সময় লাগবে। অটোরিকশার স্ট্যান্ড অন্যত্র ব্যবস্থা করে দেয়ার চেষ্টা চলছে। অটোরিকশার স্ট্যান্ড থেকে চাঁদা আদায় করা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এ বিষয়ে আমার জানা নেই। কেউ এমনটা করে থাকলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সারাদেশ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj