বোরহানউদ্দিনের সেই বিপ্লব বৈদ্য কারাগারে

মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯

ভোলা প্রতিনিধি : যার ফেসবুক হ্যাক হওয়ার পর মেসেঞ্জারে নবীকে নিয়ে কথিত কট‚ক্তির স্ক্রিনশট ছড়িয়ে ভোলার বোরহানউদ্দিন উপজেলায় সহিংসতা ঘটানো হয়েছে, সেই বিপ্লব চন্দ্র বৈদ্য শুভসহ তিনজনকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলায় কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। অন্য দুজন হলেন- বোরহানউদ্দিনের কাচিয়া ইউনিয়নের মো. ইমন ও রাফসান ইসলাম শরীফ ওরফে শাকিল। গতকাল সোমবার ভোলার জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আদালতে হাজির করলে বিচারক ফরিদ আলম তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

শুভ তার ফেসবুক হ্যাকারের কবলে পড়ার কথা জানিয়ে জিডি করার পর স্থানীয় ‘আলেমদের’ দাবির মুখে তাকে এ মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়েছে পুলিশ। অন্য ৭-৮ জন অজ্ঞাতনামা আসামির সঙ্গে ‘পরস্পর যোগসাজশে’ ফেসবুক মেসেঞ্জারে ইসলাম ধর্ম ও মহানবীকে নিয়ে ‘কট‚ক্তি’ এবং তা ডিজিটাল মাধ্যমে ছড়ানোর অভিযোগ আনা হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে। বোরহানউদ্দিন থানায় ?উপপরিদর্শক দেলোয়ার হোসেন রবিবার ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে এ মামলা দায়ের করেন।

আদালতের একজন কর্মকর্তা জানান, বিপ্লব চন্দ্র বৈদ্য ও শাকিলের মেসেঞ্জারে ‘ধর্মীয় অবমাননাকর’ বার্তাগুলো পাওয়া গেছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে মামলার এজাহারে। আসামিদের মধ্যে শুভ বোরহানউদ্দিন উপজেলার কাচিয়া ইউনিয়নের খারাকান্দি গ্রামের চন্দ্র মোহনের ছেলে। ইমনের বাড়ি উপজেলার উদয়পুর এলাকায়। আর পটুয়াখালীর কলাপাড়া তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের স্টোরকিপার শাকিল উপজেলার কাচিয়া ইউনিয়নের নূরে আলমের ছেলে।

প্রথম পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj