শেখ হাসিনার ডাক, দুর্বৃত্তায়ন থেকে দেশকে রক্ষা করুন

সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯

কাগজ প্রতিবেদক : নিজের দলের ভেতরে যারা ঘাপটি মেরে থেকে দুর্বৃত্তায়ন করছেন তাদের বিরুদ্ধে অ্যাকশনে নেমেছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। যা দৃশ্যমান হয়েছে ইতোমধ্যে। যারা দলকে ব্যবহার করে অবৈধভাবে বিত্তবৈভবের মালিক হয়েছেন এমনকি যারা দলের ক্ষতি করছেন তাদের বিরুদ্ধে চলমান এই অভিযানে কেউ বাদ পড়বে না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে দুর্বৃত্তায়নের হাত থেকে রক্ষা করুন। তার এই ডাকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে সবাইকে শামিল হতে হবে। দেশ থেকে দুর্বৃত্তায়ন দূর করতে হবে। জাতির পিতার কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার এই উদ্যোগ বিশ্বের কাছে প্রশংসিত হলেও বিএনপি তাকে অভিনন্দন জানাচ্ছে না। তারা প্রশংসা করছে না। উল্টো সমালোচনায় লিপ্ত হয়েছে তারা।

গতকাল রবিবার দুপুরে নীলফামারী শিল্পকলা অডিটোরিয়ামে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব বলেন দলের সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ একটি বৃহৎ সংগঠন। এই সংগঠনে প্রতিযোগিতা প্রতিদ্ব›িদ্বতা থাকবেই, তবে কোনো প্রতিহিংসা থাকবে না। ভয় ভীতি বা অর্থের লোভ দিয়ে নয়, ভালোবাসা দিয়ে মানুষের মন জয় করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চলমান যে অভিযান সারা বাংলাদেশেই চলবে। শেখ হাসিনার ডাকের সঙ্গে ঐক্যবদ্ধ হয়ে দেশ থেকে দুর্বৃত্তায়নের রাজনীতি দূর করতে হবে। সম্মেলনের প্রথম অধিবেশনে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবুজার রহমানের সঞ্চালনায় এতে সভাপতিত্ব করেন সভাপতি আলিমুদ্দিন বসুনিয়া। সকালে জাতীয় এবং দলীয় পতাকা উত্তোলন শেষে বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন নীলফামারী-২ আসনের সংসদ সদস্য আসাদুজ্জামান নুর।

সম্মেলনে আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে নীলফামারী-০১ আসনের সংসদ সদস্য আফতাব উদ্দিন সরকার, সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য রাবেয়া আলীম, সাবেক সাংসদ জোনাব আলী এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি দেওয়ান কামাল আহমেদ ও প্রধান বক্তা হিসেবে সাধারণ সম্পাদক মমতাজুল হক বক্তব্য দেন। সম্মেলনের শুরুতে উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রয়াত নেতাদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশনে সমঝোতার মাধ্যমে চার সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়। এতে সভাপতি নির্বাচিত হন নীলফামারী সদর উপজেলার সদ্য সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবুজার রহমান, সিনিয়র সহসভাপতি পদে নির্বাচিত হন মাহফুজার রহমান শাহ, সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত হন নীলফামারী জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ওয়াদুদ রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত হন আবুল কাশেম।

অনুষ্ঠানে আসাদুজ্জামান নুর বলেন, রাজনীতি শুধু মিছিল মিটিং আর দিবস পালন ঘিরে নয়। মানুষের কল্যাণে কাজ করতে হবে। যেটা করছেন মাননীয় নেত্রী শেখ হাসিনা। সারাদেশে উন্নয়নের যে ছোঁয়া ছড়িয়ে দিয়েছেন তিনি, সেটি যেন ¤øান হয়ে না যায় নেতিবাচক কর্মকাণ্ডের কারণে। শুধু নিজেদের লাভবান হওয়ার চিন্তা নিয়ে কেউ যদি রাজনীতি করতে আসেন তাহলে সে সিদ্ধান্ত হবে তার জন্য আত্মঘাতী। তিনি বলেন, আগামীতে দলকে শক্তিশালী এবং গতিশীল করার জন্য বঙ্গবন্ধু কন্যার স্বপ্ন বাস্তবায়নের জন্য আমাদের সবাইকে এক হয়ে কাজ করতে হবে। এ জন্য প্রবীণ ও নবীণদের সমন্বয়ে দলকে সাজানো হচ্ছে।

শেষ পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj