এনসিএলে ঘটনাবহুল একদিন

শনিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৯

খেলা প্রতিবেদক : জাতীয় ক্রিকেট লিগের (এনসিএল) দ্বিতীয় রাউন্ডে রংপুর বিভাগের বিপক্ষে সাইফ হাসানের ডাবল সেঞ্চুরির সুবাদে রানের পাহাড় গড়েছে ঢাকা বিভাগ। গতকাল দ্বিতীয় দিন ৮ উইকেট হারিয়ে ৫৫৬ রান করে ইনিংস ঘোষণা করে ঢাকা বিভাগ। এর আগে প্রথম দিন ব্যক্তিগত ১২০ রান করে চোট পেয়ে মাঠ ছাড়েন সাইফ।

এরপর গতকাল দ্বিতীয় দিন আবার মাঠে নামেন তিনি। প্রথম দিনের মতো দ্বিতীয় দিনও রংপুরের কোনো বোলার তাকে থামাতে পারেনি।

২২০ রান করে অপরাজিতই ছিলেন তিনি। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে এটি তার দ্বিতীয় ডাবল সেঞ্চুরি। রংপুরের হয়ে সর্বোচ্চ তিনটি করে উইকেট তুলে নিয়েছেন সোহরাওয়ার্দী শুভ ও সঞ্জিত সাহা। এরপর নিজেদের প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে ৭১ রান তুলতেই দুই উইকেট হারিয়ে দিন শেষ করেছে রংপুর বিভাগ।

ব্যক্তিগত ৫১ রান করে ক্রিজে রয়েছেন লিটন দাশ। আর ৮ রানে অপরাজিত রয়েছেন নাঈম ইসলাম। রংপুরের দুটি উইকেট তুলে নিয়েছেন সুমন খান ও সালাউদ্দিন শাকিল।

অন্যদিকে প্রথম দিন রাজশাহীকে ২৬১ রানে অলআউট করে দেয়া খুলনা বিভাগ গতকাল দ্বিতীয় দিন নিজেদের প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নামে। তবে ব্যাটিংয়ে নেমে এক ইমরুল কায়েস ছাড়া বাকিরা তেমন সুবিধা করতে পারেনি।

গতকাল দ্বিতীয় দিন ৬ উইকেট হারিয়ে ২২৭ রান করে দিন শেষ করেছে তারা। ইমরুল কায়েস সেঞ্চুরির খুব কাছে যেয়ে ৯৩ রান করে রানআউটের শিকার হন। খুলনার হয়ে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৪৩ রান করেছেন তুষার ইমরান। আর বোলিংয়ে রাজশাহীর হয়ে দুটি করে উইকেট তুলে নিয়েছেন পেসার শফিউল ইসলাম ও স্পিনার তাইজুল ইসলাম। ৩৫ রান করে কাজী নজরুল হাসান ও ৭ রান করে খান আব্দুর রাজ্জাক ক্রিজে রয়েছেন।

অন্যদিকে ঢাকা মেট্রোর বিপক্ষে গতকাল নিজেদের প্রথম ইনিংসে ৩১৪ রান করে অলআউট হয়েছে সিলেট বিভাগ। সিলেটের হয়ে সর্বোচ্চ ৭১ রান করেছেন জাকির আলী অনিক।

ঢাকা মেট্রোর হয়ে সর্বোচ্চ ৫ উইকেট তুলে নিয়েছেন পেসার আবু হায়দার রনি। আর ৩টি উইকেট পেয়েছেন মোহাম্মদ শহিদুল। সিলেটকে অলআউট করে গতকাল দ্বিতীয় দিন নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নামে ঢাকা মেট্রো।

গতকাল কোনো উইকেট না হারিয়ে ৯ রান সংগ্রহ করেছে তারা। এর আগে নিজেদের প্রথম ইনিংসে ২৪৬ রান করেছিল ঢাকা মেট্রো। ফলে সিলেটের চেয়ে এখনো ৫৯ রানে পিছিয়ে রয়েছে তারা।

বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের ম্যাচে গতকাল দ্বিতীয় দিন নিজেদের প্রথম ইনিংসে ৩৫৬ রান করে অলআউট হয়েছে চট্টগ্রাম বিভাগ। প্রথম দিন ৪ উইকেট হারিয়ে ২৬১ রান করেছিল চট্টগ্রাম।

দলের রানের খাতায় আর ৯৫ রান যোগ করতেই বাকি ৬টি উইকেট হারায় তারা। চট্টগ্রামের হয়ে সর্বোচ্চ ৯১ রান করেছেন মাহিদুল ইসলাম অঙ্কন। বরিশালের হয়ে সর্বোচ্চ ৪ উইকেট তুলে নিয়েছেন মনির হোসেন।

এরপর নিজেদের প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে ৪ উইকেট হারিয়ে ১০৪ রান সংগ্রহ করেছে বরিশাল। চট্টগ্রামের হয়ে ২টি উইকেট তুলে নিয়েছেন নাইম হাসান। সমান ৪ রান করে অপরাজিত রয়েছেন মোহাম্মদ আশরাফুল ও মোসাদ্দেক হোসেন।

খেলা-ধূলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj