দেশের একমাত্র শিশুতোষ চ্যানেল

শনিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৯

প্রতিষ্ঠার মাত্র দুই বছরেই দর্শকের মাঝে গ্রহণযোগ্যতা তৈরি করেছে দেশের একমাত্র শিশুতোষ টেলিভিশন চ্যানেল দুরন্ত। ২০১৭ সালের ৫ অক্টোবর যাত্রা শুরু করে চ্যানেলটি। নাটক, কার্টুন, পুতুল নাচসহ নানা রকম অনুষ্ঠান সম্প্রচারের মধ্য দিয়ে শিশুদের পাশাপাশি বড়দের মাঝেও সাড়া জাগিয়েছে। দুরন্ত টিভি নিয়ে লিখেছেন শাহনাজ জাহানবিদেশি চ্যানেলে ভিনদেশি ভাষায় কার্টুনসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠান সম্প্রচারের কারণে অনেক শিশুই বাংলা ভুলে বিদেশি ভাষা শিখছে। কয়েক বছর আগেও অভিভাবকদের কাছ থেকে এমন অভিযোগ শোনা যেত। বিশেষ করে হিন্দি ভাষায় সম্প্রচারিত ‘ডোরেমন’ কার্টুনের প্রভাবে বাংলাদেশের অসংখ্য শিশু অনর্গল হিন্দি ভাষায় কথা বলছে বলে শঙ্কিত ছিলেন অনেকে। সেই চিত্র বদলে দিয়েছে দেশীয় একটি টেলিভিশন চ্যানেল। দেশের একমাত্র শিশুতোষ টিভি চ্যানেল দুরন্তর কথাই বলা হচ্ছে। এই চ্যানেলটিতে বাংলা ভাষার অনুষ্ঠান যেমন শিশুদের মন কেড়েছে, পাশাপাশি শিশুদের মাঝে বাংলা ভাষা, মুক্তিযুদ্ধ এবং দেশীয় শিল্প-সংস্কৃতির প্রতি ভালোবাসা তৈরি করেছে। এ দেশের জলবায়ু, শিল্প-সংস্কৃতি এবং দেশপ্রেম, মানবতাবোধের মধ্য দিয়ে যেন শিশুরা বেড়ে উঠে সে লক্ষ্য নিয়েই ২০১৭ সালের ৫ অক্টোবর যাত্রা শুরু করে দুরন্ত। সকাল ৭টা ৫৭ মিনিটে জাতীয় সংগীতের মধ্য দিয়ে চ্যানেলটির সম্প্রচার শুরু হয় এবং রাত ৯টায় ‘গল্প শেষে ঘুমের দেশে’ নামের একটি অনুষ্ঠানে শিশুরা গল্প শুনতে শুনতে ঘুমিয়ে পড়ে। কিছুদিন আগেও টিভি দেখলে অভিভাবকরা শিশুদের ধমক দিতেন। সেই দৃশ্যপট বদলে দিয়েছে চ্যানেলটি। এখন শিশুদের দুরন্ত টিভি দেখতে অভিভাবকরা রীতিমতো উৎসাহিত করছেন। ধানমণ্ডির বাসিন্দা মোজাম্মেল হক বলেন, ‘এই চ্যানেলটির অনুষ্ঠানগুলো বেশ মানসম্পন্ন। আর শিশুরাও পছন্দ করছে। অনুষ্ঠানগুলোতে শিক্ষণীয় অনেক বিষয় থাকে। যার জন্য চ্যানেলটি আমারও ভালো লাগে।’ দুরন্ত টিভিতে আড়াইশর বেশি ডাবিং শিল্পী কাজ করছেন বলে চ্যানেলটির সূত্রে জানা গেছে। এদের বেশিরভাগই বিভিন্ন নাট্যদল অথবা বিশ^বিদ্যালয়ের নাট্যকলা বিভাগে পড়ালেখা করা। দুরন্ত টিভির অনুষ্ঠানগুলোতে কণ্ঠ দিয়ে পার্ট টাইম জীবিকা নির্বাহ করছেন এসব ডাবিং শিল্পী।

নবম মৌসুমে দুরন্ত টিভির আয়োজন

চলতি মাসের ১৩ তারিখ থেকে দুরন্ত টিভিতে সম্প্রচার শুরু হয়েছে নবম মৌসুমের। নতুন মৌসুমে নিয়মিত অনুষ্ঠান ও কার্টুন সিরিজের পাশাপাশি ৪টি নতুন অনুষ্ঠান এবং ৩টি নতুন কার্টুন সিরিজ যুক্ত হয়েছে। নতুন অনুষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে ‘মাস্টারমাইন্ড ফ্যামিলি বাংলাদেশ’। এটি সঞ্চালনা করছেন নবনীতা চৌধুরী। এ ছাড়া ‘খাট্টা মিঠা (সিজন ৩)’, ‘বানাই মজার খাবার মা- বাবা আর আমি’, ‘সিসিমপুর’ প্রচারের পাশাপাশি ‘রঙের খেলায় সুরের ভেলায়’, ‘চলো যাই যাই যাই’, ‘দুষ্টু মিষ্টি’, ‘ভূতের বাকশো’, ‘রঙ বেরঙের গল্প’ প্রচার হচ্ছে। নতুন কার্টুন সিরিজের মধ্যে রয়েছে- ‘অজি ব্লু সেভ দ্য প্ল্যানেট’, ‘হাইডি’, ‘বিগ এন্ড স্মল’। এ ছাড়া ‘মায়া দ্য বি’, ‘সুইট লিটল মনস্টারস’, ‘ঈনা মীনা ডীকা’, ‘দ্য জাঙ্গল বুক’, ‘মিনেসকিউল’ কার্টুনগুলো প্রচার হচ্ছে।

মেলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj