ফুটবলার না হলে টেনিসার হতেন রামোস

বৃহস্পতিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯

খেলা ডেস্ক : ফিফার ‘দি বেস্ট’ অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে ঘোষণা করা হয় ২০১৮-১৯ মৌসুমের সেরা একাদশ। যেখানে ছেলেদের একাদশে স্প্যানিশ জায়ান্ট রিয়াল মাদ্রিদ থেকে সর্বোচ্চ ৪ জন জায়গা পান। তারা হলেন- রিয়াল অধিনায়ক সার্জিও রামোস, মার্সেলো, এডেন হ্যাজার্ড ও লুকা মদ্রিচ। নিজের ফুটবল ক্যারিয়ারে রেকর্ড দশ বারের মতো ফিফার বর্ষসেরা একাদশে জায়গা পেয়েছেন রিয়াল দলপতি। তবে ফিফার বর্ষসেরার তালিকায় থাকার চেয়ে রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে শিরোপা জেতা তার কাছে বেশি গুরুত্বপূর্ণ বলে জানান রামোস।

ফিফার ‘দি বেস্ট’ অনুষ্ঠানে উপস্থিত সাংবাদিকদের সঙ্গে রামোস বলেন, আমি আসলে ব্যক্তিগত শিরোপার প্রতি আগ্রহী নই। আমি রিয়ালের হয়ে শিরোপা জিততে চাই। দল জিতলে আমরা সবাই জিতে যাই। যদি ব্যক্তিগত শিরোপার প্রতি আগ্রহ থাকত তাহলে আমি ফুটবলার না হয়ে টেনিস খেলোয়াড় হতাম! তবে ফিফার সেরা একাদশে রিয়াল মাদ্রিদের চার খেলোয়াড় থাকা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। বিশেষ করে মার্সেলোর ব্যাপারে। কারণ মার্সেলো গত বছর রিয়ালের একাদশে ঠিকমতো জায়গা পাননি। আর রিয়াল মাদ্রিদ গত মৌসুমে ক্লাব বিশ^কাপের শিরোপা ছাড়া আর কোনো শিরোপা জেতেনি। এদিকে অনুষ্ঠানটিতে রামোসের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন তার স্ত্রী পিলার রুবিও। রামোস ও রুবিও যখন একসঙ্গে অনুষ্ঠানস্থলে আসেন তখন তাদের দারুণ দেখাচ্ছিল। এ বছরের শুরুর দিকে বিয়েবন্ধনে আবদ্ধ হলেও ২০১২ সাল থেকে একই ছাদের নিচে বসবাস করেছেন তারা। তিনটি সন্তানও রয়েছে তাদের। তবে স্প্যানিশ বিভিন্ন সূত্রমতে ২০১৯ এর আগেই গোপনে এ দুজন বিয়ে করেছেন। এমনকি একবার রিয়াল মাদ্রিদ তারকার হাতে বিয়ের আংটিও দেখা গিয়েছিল।

পিলার রুবি পেশায় একজন টিভি উপস্থাপিকা। একটা সময় ছবির অভিনেত্রীও ছিলেন বর্তমানে চল্লিশ বছর বয়সী রুবি। ২০০৮ ও ২০০৯ সালে স্পেনের সবচেয়ে আবেদনময়ী নারী হিসেবে নির্বাচিত হন তিনি। ঘটনাচক্রে রামোসের সঙ্গে পরিচয় হয় তার। এরপর ২০১২ সাল থেকে একসঙ্গেই রয়েছেন তারা। রামোস যেখানে যান সেখানেই রুবিওকে নিয়ে যান তিনি। রামোস একবার এক টিভি সাক্ষাৎকারে জানিয়েছিলেন তার সাফল্যের পেছনে রুবির অনুপ্রেরণা অনেক কাজ করে। জীবনের প্রায় সব কিছুই রুবির সঙ্গে ভাগাভাগি করেন তিনি।

খেলা-ধূলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj