সংস্কৃতি ও পর্যটন মন্ত্রণালয় একীভূত করার সুপারিশ

বৃহস্পতিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯

কাগজ প্রতিবেদক : বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের কাক্সিক্ষত বিকাশ ও পর্যটন শিল্পের উন্নয়নে সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয় এবং পর্যটন মন্ত্রণালয়কে একীভূত করে একটি একক মন্ত্রণালয় গঠনের সুপারিশ করেছে জাতীয় সংসদের সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটি। সেই সঙ্গে শিল্পকলা একাডেমির কার্যক্রম বাড়িয়ে ঐতিহ্যবাহী ভাওয়াইয়া সঙ্গীত সংরক্ষণসহ বিভিন্ন অঞ্চলের লোকসঙ্গীত সংরক্ষণের আহ্বান জানান হয়েছে বৈঠকে।

গতকাল বুধবার সংসদ ভবনে বৈঠকে কমিটির সভাপতি সিমিন হোসেনের (রিমি) সভাপতিত্বে¡ কমিটির সদস্য সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ, মমতাজ বেগম, কাজী কেরামত আলী, অসীম কুমার উকিল এবং সুবর্ণা মুস্তাফা অংশগ্রহণ করেন।

বৈঠক শেষে কমিটির সভাপতি সিমিন হোসেন (রিমি) ভোরের কাগজকে বলেন, মূলত আমরা বৈঠকে পর্যটনের বিকাশে সংস্কৃতির যে বিশেষ ভূমিকা রয়েছে সে বিষয়টি উল্লেখ করে সংস্কৃতির সঙ্গে পর্যটন মন্ত্রণালয়কে একীভূত করার সুপারিশ করেছি। কেননা, সংস্কৃতি ও পর্যটন একে অন্যের সঙ্গে সম্পৃক্ত। সংস্কৃতি অঞ্চলভিত্তিক পর্যটন ব্যবস্থা তৈরি হয়।

বৈঠকে এটি প্রাথমিকভাবে আলোচনা হয়েছে। পরে আরো আলোচনা পর্যালোচনা করে এটি প্রস্তাব আকারে প্রধানমন্ত্রীর দৃষ্টিগোচর করা হবে যাতে ওনার সিদ্ধান্ত নিতে সহজ হয়।

তিনি বলেন, এ ছাড়া কমিটি শিল্পকলা একাডেমির কার্যক্রম বাড়ানোর কথা জানিয়ে বলেছে, শুধু শহরভিত্তিক না থেকে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের আঞ্চলিক ও লোকসঙ্গীত সংরক্ষণের ব্যবস্থা নেয়া প্রয়োজন। এ সময় মন্ত্রণালয় জানিয়েছে তারা এ কাজটি করে চলেছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি ‘আমার প্রস্তাব, আমার প্রত্যয়’ নামক কর্মসূচিতে নবম ও দশম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার বরাবর চিঠি দিয়েছে বলে বৈঠকে জানানো হয়।

শেষ পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj