খবর বেখবর

রবিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯

নিউইয়র্ক ফ্যাশন উইকে এবার দেশীয় বিউটি পণ্য

আন্তর্জাতিক ফ্যাশনের বর্ষপঞ্জিতে প্রতিবছর ফেব্রুয়ারি ও সেপ্টেম্বর মাসে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক শহরে আয়োজন করা হয় নিউইয়র্ক ফ্যাশন উইক। মিস ইউনিভার্স থেকে শুরু করে বিশ্বের নামীদামি সুপার মডেলরা এই মঞ্চে ক্যাটওয়াক করেন। এবারের নিউইয়র্ক ফ্যাশন উইকে ২০২০ সালের বসন্ত ও গ্রীষ্মকালীন পোশাকের প্রদর্শনী নিয়ে হাজির হোন বিশ্বের খ্যাতনামা ফ্যাশন ডিজাইনার ও মেকআপ আর্টিস্টরা। বিভিন্ন ভেন্যুতে ক্যাটগরি অনুযায়ী চলে এই আয়োজন। তবে নতুন খবর হলো, এই আসরে এবারই প্রথম বাংলাদেশি কোনো কসমেটিকস ব্র্যান্ড তাদের পণ্য উপস্থাপন করেছেন। এবার ওমেন্স ওয়ার্ল্ডের কর্ণধার কনা আলম তার মেকআপ ব্র্যান্ড কনা বাই ফারনাজ আলম নিয়ে হাজির হয়েছিলেন। এবারের ফ্যাশন শোতে কনার মডেল ছিলেন মিস ইউনিভার্স ডেমি লেই নেল পিটার্স। তিনিসহ বাংলাদেশি পণ্যে সেজে স্টেজ মাতিয়েছেন ৫৩ জন মডেল। কনা আলম বলেন, ‘ম্যাক, ল’রিয়েল, ক্লিনিকের পাশাপাশি বিশ্ব-দরবারে আমাদের দেশি পণ্য নিয়ে আসতে পেরে সম্মানিত বোধ করছি। ’

তিনি আরো বলেন, ‘আমরা আশা করি, ওমেন্স ওর্য়াল্ড সবসময় এমনভাবে আন্তর্জাতিকমানের সেবা দিয়ে দেশের ও বিশ্বের সৌন্দর্যপ্রিয় মানুষের আস্থা ও ভালোবাসা অর্জন করবে।’ উল্লেখ্য, বাংলাদেশি ফ্যাশন হাউজ ‘সপ্তপর্ণা’র কর্ণধার পারভিজ চৌধুরীর ডিজাইন করা পোশাকে বাংলাদেশি মডেল ও অভিনয়শিল্পী মোনালিসাও এবার ফ্যাশন উইকের ক্যাটওয়াকে অংশ নেন। বিভিন্ন ভেন্যুতে অনুষ্ঠিত এই আয়োজনের পর্দা নামে গত ১১ সেপ্টেম্বর।

:: ফ্যাশন ডেস্ক

লাখনাও ফ্যাশন উইকে দেশের ৪ জন

লাখনাও ফ্যাশন উইক অনুষ্ঠিত হয়ে গেল গত ১৪ এবং ১৫ সেপ্টেম্বর। দুই দিনের স্থানীয় এই আয়োজনে ভারতের বিভিন্ন রাজ্য থেকে ডিজাইনার এবং মডেলরা অংশ নেন। তবে বাংলাদেশ থেকেও ডিজাইনার হিসেবে শো করার জন্য আমন্ত্রণ পেয়েছিলেন ওয়ারেছ আব্দুল। ভারতীয় মডেলদের সাথে বাংলাদেশি কিউয়ে অংশ নেন মডেল আঁখি আফরোজ এবং এমডি নিহাফ। ওয়ারেছ আব্দুলের ডিজাইনকৃত পোশাকে তুলে ধরা হয় টাই ডাই ক্যানভাসে ফিউশন। সুতি কাপড়ে ডিজাইনগুলো ছিল মূলত: গ্রীষ্মের ফ্যাশনের জন্য নিরীক্ষীধর্মী কাজ। এই ফ্যাশন কিউটির কোরিওগ্রাফার হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন ইমু হাশমি। বাংলাদেশ থেকে অংশ নেয়ার জন্য ৪ জনকেই শুভেচ্ছা স্মারক দিয়ে সম্মানিত করেন লাখনাও ফ্যাশন উইক কর্তৃপক্ষ।

:: ফ্যাশন ডেস্ক

বিয়ের ছবি তুলে বিদেশি স্বীকৃতি

সোশ্যাল মিডিয়ার এখনকার প্রসারের সময়ে বিয়েতে ছবি তোলাটা বেশ গুরুত্বপূর্ণ। তবে আগে এই চিত্র ছিল ভিন্ন। বিয়ের ছবি তোলা অর্থাৎ ওয়েডিং ফটোগ্রাফি এখন একটি পেশায় দাঁড়িয়ে গেছে। এখন অনেক বিয়েতেই দেখা যায় পেশাদার আলোকচিত্রীকে দিয়ে ছবি তোলা হচ্ছে। বর-কনে চান তাদের জীবনের এই মুহূর্তটিকে খুব ভালোভাবে ধরে রাখতে। আর এই কাজটি করেই ওয়েডিং ফটোগ্রাফির জন্য এবার থাইল্যান্ডের ব্যাংককে সম্মাননা পেলেন বাংলাদেশি ওয়েডিং ফটোগ্রাফার ইশরাত আমিন। গত ১৬ সেপ্টেম্বর ব্যাংককের স্থানীয় একটি হলরুমে এক আড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানে ‘মিলেনিয়াম ব্রিলিয়েন্স অ্যাওয়ার্ড-২০১৯’ পান তিনি। ইশরাতের হাতে এ সম্মাননা তুলে দেন বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত। এ প্রসঙ্গে ইশরাত আমিন বলেন,‘ আমার কাজকে, আমার মেধাকে মূল্যায়ন করে স্বীকৃতি দেয়ার জন্য আমি সত্যিই আনন্দিত ও গর্বিত। আমার কাজ দিয়ে আগামী দিনেও কর্মক্ষেত্রে আমার মেধার স্বাক্ষর রাখতে যেন পারি সেটির দিকেও খেয়াল থাকবে।’ উল্লেখ্য, বাংলাদেশের মেকআপ আর্টিস্ট জাহিদ খানও এই সম্মাননায় ভূষিত হয়েছেন। ‘জাহিদ খান মেকওভার’ ও ‘জাহিদ খান ব্রাইডাল কালেকশন’- এই দুটি ক্যাটাগরিতে জাহিদ খানকে সম্মাননা প্রদান করা হয়। মুম্বাই ও দিল্লী ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান সাসা মিডিয়া সল্যুশন প্রতিবছর এই অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানটির আয়োজন করে আসছে।

:: ফ্যাশন ডেস্ক

ফ্যাশন (ট্যাবলয়েড)'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj