একগুচ্ছ প্রশংসা

শনিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৯

সত্তরের ঝোড়ো সময়। একদিকে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ, অন্যদিকে ঘনীভূত হচ্ছে নকশাল আন্দোলন। ঠিক সেই সময়েই শহরে ঘটে যায় একটি ভয়াবহ ঘটনা। খুন হন হিনা মল্লিক। কে তিনি? কী-ই বা তার পরিচয়? কে খুন করে তাকে? আর কেনই বা তার খুনকে কেন্দ্র করে কেঁপে ওঠে শহর কলকাতা? সিনেমার নাম, ‘সত্যান্বেষী ব্যোমকেশ’। গত সোমবার মুক্তি পায় সেই ছবির ট্রেলার।

শরদিন্দু বন্দ্যোপাধ্যায়ের ‘মগ্ন মৈনাক’ গল্প অবলম্বনেই তৈরি হয়েছে ওই ছবি। পরিচালনার দায়িত্বে রয়েছেন ‘যকের ধন’ খ্যাত সায়ন্তন ঘোষাল। এর আগে ওয়েব সিরিজে সায়ন্তনের বানানো ব্যোমকেশ দর্শক মহলে কুড়িয়েছিল একগুচ্ছ প্রশংসা। নাম ভূমিকায় দেখা গিয়েছিল অনির্বাণ ভট্টাচার্যকে।

তবে এই ছবিতে নেই অনির্বাণ। পরমব্রত এই প্রথমবার ব্যোমকেশ। সঙ্গী অজিতের ভূমিকায় রুদ্রনীল। চমকের শেষ নয় এখানেই। ছবিতে রয়েছেন অঞ্জন দত্তও। তবে এবার অন্য ভূমিকায়। ছবিটির চিত্রনাট্যও লিখেছেন তিনি। কিন্তু ব্যোমকেশের ভূমিকায় পরমব্রতকে বাছা হলো কেন? পরিচালক বললেন, আমি যখন এই প্রজেক্টে ঢুকি তার আগে থেকেই প্রযোজক, নির্মাতারা পরমদাকে নিয়ে ভাবতে শুরু করেছিল। আমাকে ব্যাপারটা জানানো হলে আমিও বেশ এক্সসাইটেড হয়ে পড়ি। এই নিয়ে তিন তিনটি ছবি করেছি পরমদার সঙ্গে। আর তা ছাড়া যারা ব্যোমকেশ করে ফেলেছেন তাদের নিয়ে আর করার ইচ্ছা ছিল না। তাই পরমদাকে নেয়া। ব্যোমকেশকে নিয়ে মানুষের তো কৌত‚হলের শেষ নেই।

বেশ কিছু বছর ধরে ওই বিশেষ গোয়েন্দা চরিত্রকে নিয়ে বিভিন্ন পরিচালক নানা রকমের পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে আসছেন। সায়ন্তনের কাছে পছন্দের ‘ব্যোমকেশ’ কে? সায়ন্তনের সটান উত্তর, ‘রজিত কাপুর’। পরিচালনা করতে গিয়ে কোথাও না কোথাও ‘পরিচালক’ অঞ্জন দত্তের সঙ্গে মতের সংঘাত হয়নি? সায়ন্তন বললেন, ইন্টারফেয়ারেন্স একেবারেই ছিল না। তবে মতবিরোধ হয়েছে, অন সেটেও হয়েছে। কিন্তু তা খুবই হেলদি।

:: মেলা ডেস্ক

মেলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj