ফের ব্যর্থ ওয়ার্নার : ম্যাচ ইংলিশদের নাগালে

সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯

খেলা ডেস্ক : সেই ২০০১ সালে সর্বশেষ ইংলিশদের মাটিতে অ্যাশেজ সিরিজ জিতেছিল অস্ট্রেলিয়া। এর মধ্যে কেটে গেছে ১৯ বছর। তবে এবার এসে সিরিজ জেতার আশা জাগিয়েছিল টিম পেইনের দল। কিন্তু ইংল্যান্ডের ছুড়ে দেয়া ৩৯৯ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে সুবিধা করতে পারেনি অজিরা। এক ম্যাথু ওয়েড ছাড়া ব্যাটিংয়ে সুবিধা করতে পারেনি আর কোনো ব্যাটসম্যান। স্টিভ স্মিথও নিজের ইনিংসকে বেশি দূর টেনে নিতে পারেননি। তিনি আউট হন ২৩ রানে। ইংল্যান্ডের হয়ে সর্বোচ্চ তিন উইকেট তুলে নিয়েছেন পেসার স্টুয়ার্ড ব্রড। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ছয় উইকেট হারিয়ে ২২১ রান সংগ্রহ করেছেন টিম পেইনের দল। ৯৭ রানে ম্যাথু ওয়েড ও ২ রানে ব্যাট করছেন প্যাট কামিন্স। জয় থেকে এখনো ১৭৭ রানে দূরে রয়েছে অস্ট্রেলিয়া। হাতে রয়েছে চারটি উইকেট।

পুরো সিরিজেই দারুণ খেলেছে পুরো অস্ট্রেলিয়া দল। কিন্তু নিজেদের প্রথম ইনিংসে খারাপ খেলার কারণে পঞ্চম টেস্ট এখন অনেকটাই অজিদের নাগালের বাইরে চলে গেছে।

এর আগে নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে সব উইকেট হারিয়ে ৩২৯ রান করে ইংলিশরা। সর্বোচ্চ ৯৪ রান করেন ওপেনার জো ডেনলি। আর অজিদের হয়ে সর্বোচ্চ চারটি উইকেট তুলে নেন স্পিনার নাথান লায়ন। প্রথম ইনিংসে ২৯৪ রান করার সুবাদে অজিদের সামনে দাঁড় হয় ৩৯৯ রানের পাহাড় সমান লক্ষ্য। তবে টেস্ট ক্রিকেটে ৪১৮ রানের লক্ষ্যমাত্রা পার করে জেতার রেকর্ডও রয়েছে!। এখন দেখার বিষয় অস্ট্রেলিয়া সেটি পারে কিনা।

এদিকে নিজেদের পূর্বসূরিদের সাফল্য থেকেও আশা নিতে পারে অস্ট্রেলিয়া। কারণ ৩৫০-৪০০ রানের টার্গেট নিয়ে সাফল্য পাওয়া সাতটি ম্যাচের মধ্যে তিনটিতে নাম রয়েছে পাঁচবারের বিশ^চ্যাম্পিয়নদের। সর্বশেষ ১৯৯০ সালে নিজেদের মাটিতে পাকিস্তানের বিপক্ষে ৩৬৯ রানের টার্গেট নিয়ে খেলতে নেমে সফল হয়েছিল তৎকালীন অজি ক্রিকেটাররা। এর আগে ১৯৪৮ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ৪০৪ ও ১৯৭৭-৭৮ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৩৫৯ রানের লক্ষ্য নিয়ে খেলতে নেমেও সফলতা পেয়েছিল ওয়ার্নার-স্মিথদের উত্তরসূরিরা।

খেলা-ধূলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj