প্রতিষ্ঠানে পরিবেশগত খারাপ প্রভাব রোধ

রবিবার, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯

শিল্প কারখানা এবং বিভিন্ন ধরনের বাণিজ্য বেড়েই চলেছে। বাণিজ্যিক এসব প্রতিষ্ঠানের জন্য ক্রমেই পরিবেশের পরিবর্তন হচ্ছে। পরিবেশ দূষণ এবং প্রাকৃতিক সম্পদ নষ্টের কারণে জলবায়ু মোকাবিলার জন্য এখন প্রধান চ্যালেঞ্জ। তাই ক্রমবর্ধমান শিল্প কারখানা বা ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য এখন ভাবনার প্রধান বিষয় পরিবেশের সঙ্গে টিকে থাকা এবং ব্যবসাকে পরিবেশবান্ধব করা। তাই প্রতিটি প্রতিষ্ঠানের জন্য পরিবেশের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নেয়া অর্থাৎ পরিবেশ যেন দূষিত না হয়।রিসাইকেল করার জন্য সিস্টেম উন্নত করা

প্রতিষ্ঠানে অবশ্যই একটি রিসাইকেল স্টেশন থাকতে হবে। আপনার প্রতিষ্ঠানের পণ্যের যে কোনো ধরনের মোড়ক বা লেবেল রিসাইকেল করার জন্য অথবা পরিবেশের উপর কোনো ক্ষতিকর প্রভাব যেন না পড়ে। সেজন্য এই রিসাইকেল স্টেশনটি থাকা খুবই জরুরি। আপনার প্রতিষ্ঠানের জন্য অবশ্যই এমন কিছু কর্মচারি বা কর্মকর্তা দরকার, যারা রিসাইকেল স্টেশন পরিচালনায় দক্ষ।

কাজের শেষে প্রয়োজনীয় সব ডিভাইসের বৈদ্যুতিক সুইচ বন্ধ

এটি সবার জন্যই খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। প্রয়োজন শেষে অবশ্যই সব ডিভাইসের বৈদ্যুতিক সুইচ বন্ধ রাখতে হবে। যেমন কম্পিউটার বন্ধ করার পাশাপাশি কম্পিউটারের সুইচ অফ করা উচিত, মোবাইল ফোনের চার্জ সম্পন্ন হওয়ার পর চার্জার আনপ্লাগড করা উচিত, রুম থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পূর্বে লাইট, ফ্যান বা এয়ার কন্ডিশনসহ খালি রুমের সমস্ত কিছুর সুইচ অফ করে দেয়া উচিত, অথবা অটো টাইমার সেট করতে হবে। এর বিকল্প হিসেবে ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলো অন্য একটি পদ্ধতি অবলম্বন করতে পারে। যেমন নির্দিষ্ট সময়ের পর তাদের অফিসের বা ভবনের বৈদ্যুতিক সংযোগ বন্ধ করে দেয়া। এতে করে ভুল হওয়ার সম্ভাবনা কম থাকে এবং বৈদ্যুতিক দুর্ঘটনা ঘটার সম্ভাবনা কম থাকে।

প্রতিষ্ঠানের নথিপত্র ডিজিটালাইজডভাবে সংরক্ষণ করা

প্রতিষ্ঠানের প্রয়োজনীয় সব নথিপত্র বা তথ্যগুলো সংগ্রহের জন্য কাগজপত্রের ব্যবহার কমিয়ে আনুন। অপচয় রোধ করার জন্য ডকুমেন্টগুলো ডিজিটালাইজড করতে পারেন। ডাটাবেজ সার্ভার অথবা বিভিন্ন ইমেইলের মাধ্যমে। প্রতিষ্ঠানে অনলাইন সুবিধা না থাকে, তবে কাগজপত্রের ব্যবহার কমানোর জন্য কাগজের উভয় পৃষ্ঠায় লেখা প্রিন্ট করতে পারেন।

সব ধরনের ইলেকট্রনিক্স ডিভাইস রিসাইকেল পদ্ধতি রাখা

ইলেকট্রনিক্স সব ডিভাইস পুনর্ব্যবহার পদ্ধতি রাখা একটি আদর্শ প্রতিষ্ঠানের বৈশিষ্ট্য। এতে করে প্রতিষ্ঠানের কর্মী এবং ক্লায়েন্টদের কাছে প্রতিষ্ঠানের সুনাম বেড়ে যায়। তারা বুঝতে পারে যে, প্রতিষ্ঠানটি তাদের পুরনো কম্পিউটার বা ভাঙা মনিটরের মতো বৈদ্যুতিক ডিভাইসগুলো রিসাইকেলের মাধ্যমে তা আবার কাজে লাগাচ্ছে।

নিজস্ব গাড়ি ব্যবহার কমানো

পরিবেশ দূষণ কমাতে কাজে আসা যাওয়ার ক্ষেত্রে নিজস্ব গাড়ি ব্যবহার করা পরিহার করুন। কাজে যাওয়া আসার জন্য সর্বদা সাইকেল ব্যবহার করুন অথবা হাঁটার অভ্যাস করুন। যাদের বাসা থেকে কর্মস্থল দূরে, তারা পাবলিক ট্রান্সপোর্ট ব্যবহার করতে পারেন।

ফ্যাশন (ট্যাবলয়েড)'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj