সদরঘাটে হকার উচ্ছেদ অভিযানে হামলা, আহত ১০

শুক্রবার, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯

কাগজ প্রতিবেদক : রাজধানীর নদীবন্দর সদরঘাট টার্মিনালে হকার উচ্ছেদ অভিযানে হামলার শিকার হয়েছেন বন্দর কর্মকর্তা ও আনসাররা। এ ঘটনায় ৭ আনসারসহ ১০ জন আহত হয়েছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা ৩টার দিকে ওয়াইজঘাট টার্মিনালে ‘সুন্দরবন-৯’ লঞ্চে থাকা হকারদের উচ্ছেদ করতে গেলে নৌযান শ্রমিক ও হকাররা মিলে এ হামলা চালায়। এ সময় লঞ্চের জানালার কাচ ভাঙচুর করা হয়।

আহতরা হলেন- আনসার কমান্ডার মোক্তার হোসেন, আনসার সদস্য ছিদ্দিকুর রহমান, মো. পলাশ, আল আমিন, আবু সাঈদ, মো. খালেক, টার্মিনালের কর্মচারী আল আমিন, জহিরুল ইসলাম ও নুর মোহাম্মদ। আহত আরেকজনের নাম তাৎক্ষণিকভাবে জানা যায়নি। এদের মধ্যে ছিদ্দিকুর রহমান ও মো. খালেককে মিটফোর্ড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

সদরঘাট টার্মিনাল ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, বেলা ৩টার দিকে ঢাকা নদীবন্দরের যুগ্ম পরিচালক এ কে এম আরিফ উদ্দিন, সহকারী পরিচালক মো. নুর হোসেন ও সুপারভাইজার মনিরুল ইসলামসহ কয়েকজন আনসার সদস্য ওয়াইজঘাট টার্মিনাল এলাকায় উচ্ছেদ অভিযানে যান। তারা টার্মিনালে নোঙররত সুন্দরবন-৯ লঞ্চের ভেতর হকারদের ফল ও বিস্কুটের ঝুড়ি দেখতে পেয়ে লঞ্চে উঠলে লঞ্চের কর্মচারীরা তাদের বাধা দেন। একপর্যায়ে লঞ্চের কর্মচারী ও হকাররা এক হয়ে বন্দর কর্মকর্তা ও আনসার সদস্যদের ওপর হামলা চালান। এতে ৭ আনসার সদস্যসহ ১০ জন আহত হন।

সুন্দরবন-৯ লঞ্চের সুপারভাইজার ইউনুস মিয়া বলেন, বন্দর কর্মকর্তা ও আনসার সদস্যদের ওপর কে বা কারা হামলা করেছে আমি তা জানি না। তা ছাড়া আমি লঞ্চে ছিলাম না। তিনি আরো বলেন, অহেতুক আনসার সদস্যরা আমাদের লঞ্চের লোকজনকে মারধর করেছে।

দ্বিতীয় সংস্করন'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj