রাজৈরে কোলে নিয়ে ঘুরতে বেরিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা : দেড় বছরের শিশু হাসপাতালে

বৃহস্পতিবার, ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯

কাগজ ডেস্ক : মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলায় নরপশুর লালসার শিকার হয়ে দেড় বছরের শিশুকে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়েছে। শিশুটির এক আত্মীয় রাস্তায় তাকে কোলে নিয়ে ঘুরতে বেরিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এ ঘটনায় থানায় মামলা করা হয়েছে। ঝালকাঠিতে ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ায় তার মা ও সৎ-বাবাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। টাঙ্গাইলের দেলদুয়ার উপজেলায় ঘরে ঢুকে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত ধর্ষককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। রাজশাহীর দুর্গাপুরে চকলেট খাওয়ানোর প্রলোভন দেখিয়ে ৭ বছরের শিশুকে বলাৎকারের অভিযোগ পাওয়া গেছে এক কিশোরে বিরুদ্ধে। সুনামগঞ্জের দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলায় ৮ বছরের শিশুকে ধর্ষণের দায়ে ২ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। নিচে এ সম্পর্কে আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

মাদারীপুর : নরপশুর লালসার শিকার হয়ে দেড় বছরের শিশুকে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে জেলার রাজৈর উপজেলার সদর ইউনিয়নের চৌরায়াবাড়ী গ্রামে। গত মঙ্গলবার সকালে শিশুটির এক আত্মীয় রাস্তায় তাকে কোলে নিয়ে ঘুরতে বেরিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে। পরে বাড়িতে নিয়ে এলে শিশুটির যৌনাঙ্গ দিয়ে রক্তপাত হলে ঘটনাটি পরিবারের লোকজন বুঝতে পেরে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করেছে। এ ঘটনায় গতকাল বুধবার দুপুরে রাজৈর থানায় মামলা করা হয়েছে।

মাদারীপুর সদর হাসপাতালে গেলে শিশুটির মা ও মামা জানান, উপজেলার বাজিতপুর ইউনিয়নের চৌরাশি গ্রামের আত্মীয় সুষেন ভক্তের ছেলে হৃদয় ভক্ত (২১) একই উপজেলার রাজৈর সদর ইউনিয়নের চৌরায়াবাড়ী গ্রামে তার এক আত্মীয় বাড়িতে বেড়াতে আসে। সকাল ৮টার দিকে ওই আত্মীয়ের বাড়ির দেড় বছরের শিশু মেয়েটিকে নিয়ে ঘুরতে বের হয়। অনেক সময় পর আবার শিশুটিকে নিয়ে বাড়িতে আসে। এ সময় শিশুটির মা তাকে

কাঁদতে এবং যৌনাঙ্গ দিয়ে রক্ত ঝরতে দেখেন। এদিকে কোনো কিছু বোঝার আগেই শিশুকে রেখে হৃদয় ভক্ত পালিয়ে যায়। মঙ্গলবার সকালেই শিশুটিকে তার পরিবারের লোকজন হাসপাতালে ভর্তি করেন। বর্তমানে সে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছে। এ ঘটনায় বুধবার দুপুরে শিশুটির বাবা রাজৈর থানায় মামলা করেন।

এদিকে এ ঘটনার খবর পেয়ে মাদারীপুর মহিলাবিষয়ক কর্মকর্তা মাহমুদা আক্তার কণা সদর হাসপাতালে গিয়ে শিশুটির খোঁজখবর নেন এবং বলেন, শিশুটির ব্যাপারে চিকিৎসাসহ আইনি সহযোগিতা দেয়া হবে। এত ছোট শিশুকে কীভাবে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়, তা বোধগাম্য নয়। এসব অপরাধীদের দ্রুত কঠোর শাস্তি হওয়া উচিত।

মাদারীপুর সদর হাসপাতালের আরএমও ডা. শশাঙ্ক চন্দ্র ঘোষ বলেন, দেড় বছরের এক শিশু ভর্তি হয়েছে। তবে এ ব্যাপারে আমি কিছু বলতে পারব না। হাসপাতালে গাইনি বিভাগে ডাক্তার আছেন। তিনি বলতে পারবেন।

রাজৈর থানার ওসি মো. শাহজাহান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। এদিকে পাশবিক এ ঘটনায় থানায় মামলা হলেও নরপশু হৃদয় ভক্ত এখনো গ্রেপ্তার হয়নি। যদিও আসামিকে গ্রেপ্তারে জোর তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে বলে পুলিশ জানায়।

ঝালকাঠি : জেলা শহরের ষষ্ঠ শ্রেণির এক শিশুছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছে। এ ঘটনায় শিশুটির মা ও সৎ বাবাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এদিকে এই নিপীড়নের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি করেছে নারী নেত্রী ও এলাকাবাসী। পুলিশ বলছে, আইনি সব ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ জানায়, জেলা শহরের কাঠপট্টি এলাকার মায়ের বাড়িতে ষষ্ঠ শ্রেণির স্কুলছাত্রী অনেক দিন ধরে যৌন নির্যাতনের শিকার হয়ে আসছে। গত কয়েক মাস আগে শিশুটির সঙ্গে তার মা ও সৎ বাবার সহযোগিতায় কয়েকজন পুরুষের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক হয়। শিশুটি মা ও সৎ বাবা তাকে এ অনৈতিক কাজে বাধ্য করে। আর এতে শিশুটি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। খবর পেয়ে মঙ্গলবার রাতে ভিকটিম শিশুটিকে উদ্ধার করে সদর থানার হেফাজতে আনে পুলিশ। বুধবার সকালে শিশুটি বাদী তার মা ও সৎ বাবাকে আসামি করে সদর থানায় একটি মামলা করে। শিশুটিকে ডাক্তারি পরীক্ষা ও চিকিৎসার জন্য সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদিকে রাতেই শহরের কালীবাড়ী সড়ক এলাকার একটি বাসায় অভিযান চালিয়ে শিশুটির মা ও সৎ বাবাকে আটক করেছে পুলিশ।

এলাকাবাসী জানায়, শিশুটির মা নিজেও এমন অনৈতিক কাজ করে আসছিল। আর তাতে বাধা দিলে নানাভাবে হয়রানি করত অভিযুক্ত শিশুটির মা।

এ ব্যাপারে ঝালকাঠি সদর থানার ওসি মো. আবু তাহের মিয়া জানান, তদন্ত করে এ ঘটনায় যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। ভিকটিম শিশুটি শহরের একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ে। চিকিৎসা ও ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য তাকে জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

টাঙ্গাইল : জেলার দেলদুয়ার উপজেলায় ঘরে ঢুকে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় গত মঙ্গলবার রাতে অভিযুক্ত ধর্ষক ছানোয়ারকে (১৬) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গত সোমবার রাত ১০টার দিকে উপজেলার লাউহাটি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার শিকার ওই ছাত্রী লাউহাটি এম আজহার মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণিতে পড়ে।

গতকাল বুধবার দেলদুয়ার থানার ওসি সাইদুল হক ভূঁইয়া এ তথ্য নিশ্চিত করেন এবং ছাত্রীটির বরাতে বলেন, মেয়েটির বাবা ভ্যান চালায়। মা বিদেশে থাকেন। গত সোমবার রাতে পাশের বাড়ির আব্দুল বারেকের বখাটে ছেলে ছানোয়ার মেয়েটিকে ঘরে একা পেয়ে হাত-মুখ বেঁধে ধর্ষণ করে। এ সময় বাইরে আরো ৩-৪ যুবকের উপস্থিতি শুনতে পায় সে। তিনি আরো বলেন, এ ঘটনায় মঙ্গলবার বিকেলে ছানোয়ারের বিরুদ্ধে ওই স্কুলছাত্রীর বাবা দেলদুয়ার থানায় ধর্ষণের অভিযোগ করেন। এরপর রাতেই তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। বুধবার তাকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

দুর্গাপুর (রাজশাহী) : উপজেলায় চকলেট খাওয়ানোর প্রলোভন দেখিয়ে ৭ বছরের শিশুকে বলাৎকারের অভিযোগ পাওয়া গেছে এক কিশোরে বিরুদ্ধে। গত মঙ্গলবার দুপুরে দুর্গাপুর পৌর এলাকার দেবীপুর ঝুঁপদুয়ারপাড়া গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে। এ ঘটনায় শিশুটির বাবা গতকাল বুধবার সকালে একজনকে আসামি করে দুর্গাপুর থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দুপুরে একই গ্রামের জাহিদ কারিগরের কিশোর ছেলে জনি কারিগর ওই শিশুকে চকলেট খাওয়ানোর কথা বলে পাশের কলিমুদ্দিনের পানের বরজে নিয়ে যায়। পরে সেখানে তাকে বলাৎকার করে জনি। এরপর ওই শিশুটির চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এসে তাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক বলাৎকারের শিকার ওই শিশুকে রামেক হাসপাতালে রেফার্ড করেন। দুর্গাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক জানান, প্রাথমিক অবস্থায় শিশুটির বলাৎকারে চেষ্টার আলামত পাওয়া গেছে। শিশুটিকে রামেক হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে দুর্গাপুর থানার ওসি খুরশিদা বানু কণা জানান, এ ঘটনায় শিশুটির বাবা বাদী হয়ে বুধবার সকালে মামলা দায়ের করেছেন। মামলার পরিপ্রেক্ষিতে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সুনামগঞ্জ : জেলার দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার বীরগাঁও এলাকায় ৮ বছরের শিশুকে ধর্ষণের দায়ে ২ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। গতকাল বুধবার দুপুরে সুনামগঞ্জের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক জাকির হোসেন এ রায় দেন। দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- দক্ষিণ সুনামগঞ্জের বীরগাঁও এলাকার মৃত আছমত উল্লাহর ছেলে আয়াকনূর ও হানিফ মিয়ার ছেলে শফিক।

শেষ পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj