ছাত্রীর চোখ কেড়ে নেয়া শিক্ষক সাময়িক বরখাস্ত

বৃহস্পতিবার, ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি : হবিগঞ্জ সদর উপজেলার যাদবপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্রী হাবিবা আক্তারের চোখের আলো কেড়ে নেয়া শিক্ষক নিরঞ্জন সরকারকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। গতকাল বুধবার দুপুরে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আবুল কালাম আজাদ সাময়িক বরখাস্তের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, অভিযুক্ত সেই শিক্ষকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। পাশাপাশি বিষয়টি তদন্তের জন্য একটি বিভাগীয় কমিটি গঠন করা হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর তার বিরুদ্ধে স্থায়ীভাবে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এদিকে আহত ছাত্রী হাবিবার পরিবার জানায়, হাবিবা বর্তমানে জাতীয় চক্ষু বিজ্ঞান ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। অপারেশন করে তার চোখটি কেটে ফেলে দিতে হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত রবিবার ক্লাস চলাকালে সহকারী শিক্ষক নিরঞ্জন দাস তার হাতের একটি বেত ছুড়ে মারলে তা সরাসরি হাবিবার চোখে লাগে। এতে তার চোখ থেকে রক্তক্ষরণ শুরু হয়। পরে স্কুলে হইচই পড়ে যায়। স্থানীয়রা হাবিবাকে দ্রুত হবিগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে যান। চিকিৎসক হাবিবার চোখ পরীক্ষা করার পর অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে সিলেটে পাঠানো হয়। পরে তার স্বজনরা হাবিবাকে ঢাকা চক্ষু হাসপাতালে নিয়ে যান।

এ বিষয়ে সহকারী শিক্ষক নিরঞ্জন দাস বলেন, ঘটনার সময় আমি দ্বিতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থীদের পড়া নিচ্ছিলাম। এ সময় যারা পড়া পারছিল না তাদের টুকটাক বেত্রাঘাত করি। ওই ক্লাসের দরজার সামনে কিছু শিক্ষার্থী দাঁড়িয়ে হইচই করছিল। আমি তাদের বারবার ধমক দিলেও তারা সেখানে দাঁড়িয়ে থাকলে হাতে থাকা বেত ছুড়ে মারি। তা গিয়ে হাবিবার চোখে লাগে। এটি আমার অনিচ্ছাকৃত ভুল।

শেষ পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj