বন্দুকযুদ্ধ : সোনারগাঁওয়ে ১৬ মামলার আসামি নিহত

বৃহস্পতিবার, ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯

সোনারগাঁও (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি : উপজেলায় র‌্যাবের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে হৃদয় ওরফে গিট্টু হৃদয় (৩০) নামে এক যুবক নিহত হয়েছে। গতকাল বুধবার ভোর ৪টার দিকে উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নের চেঙ্গাকান্দি এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে একটি প্রাইভেট কার, একটি বিদেশি পিস্তল, ২ রাউন্ড গুলি, ৫০০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। নিহত হৃদয় উপজেলার মোগরাপাড়া ইউনিয়নের মৃত সবুজ মিয়ার ছেলে। র?্যাবের দাবি, হৃদয় সোনারগাঁও থানার তালিকাভুক্ত শীর্ষ মাদক বিক্রেতা ও পলাতক আসামি। তার বিরুদ্ধে থানায় সোনারগাঁও থানায় হত্যা, ডাকাতি, ছিনতাই ও মাদকসহ প্রায় ১৬টি মামলা রয়েছে।

র?্যাব-১১ এর মিডিয়া অফিসার মেজর নাজমুছ সাকিব বন্দুকযুদ্ধে শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী ও সন্ত্রাসী মো. হৃদয় ওরফে গিট্টু হৃদয়ের নিহতের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের পিরোজপুর ইউনিয়নের চেঙ্গাকান্দি এলাকায় একদল দুষ্কৃতকারী সংঘবদ্ধ হচ্ছে- এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ভোরে র?্যাব-১১ এর একটি দল সেখানে যায়। এ সময় গিট্টু হৃদয়ের নেতৃত্বে মহাসড়কের পাশে থাকা জঙ্গল থেকে আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে হামলা চালায় র‌্যাবের ওপর। এ সময় র‌্যাব সদস্যরা আত্মরক্ষায় পাল্টা গুলি চালালে সোনারগাঁওয়ের শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী ও সন্ত্রাসী গিট্টু হৃদয় গুলিবিদ্ধ হয়। পরে তাকে উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ ভিক্টোরিয়া হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত বলে ঘোষণা করেন। গুলি বিনিময়ের ঘটনায় র?্যাব সদস্য ওবায়দুল নামে এক সদস্য আহত হন।

সোনারগাঁও থানার ওসি মো. মনিরুজ্জামান জানান, মাদক কারবারি গিট্টু হৃদয় সোনারগাঁও থানার মাদক কারবারির তালিকায় ১নং আসামি। এর আগে তাকে ধরিয়ে দেয়ার জন্য পুলিশ ১০ হাজার টাকা পুরস্কার ঘোষণা করেছিল।

এদিকে র‌্যাবের হাতে বন্দুকযুদ্ধে গিট্টু হৃদয় নিহতের ঘটনায় খবর ছড়িয়ে পড়লে মোগরাপাড়া, পিরোজপুর, বৈদ্যেরবাজার ৩টি ইউনিয়ন ও সোনারগাঁও পৌরসভার লোকজনের মধ্যে স্বস্তি ফিরে এসেছে। শীর্ষ সন্ত্রাসী গিট্টু হৃদয় বাহিনীর কাছে ৩টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভার সাধারণ মানুষ ও ব্যবসায়ীরা জিম্মি ছিল।

শেষ পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj