চট্টগ্রামে আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভা : মাদকের বিস্তার ও খাদ্যে ভেজাল রোধে কোনো আপস নয়

মঙ্গলবার, ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯

চট্টগ্রাম অফিস : মাদকের বিস্তার ও খাদ্যে ভেজাল রোধে কঠোর অবস্থানের কথা জানিয়েছেন চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেন। গতকাল সোমবার সকালে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি নিজের এই কঠোর অবস্থানের কথা তুলে ধরেন।

জেলা প্রশাসক বলেন, জেলার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি আরো ভালো করতে হবে। বিশেষ করে মাদক একটি সামাজিক ব্যাধি। মাদক কারবারিরা বিভিন্ন কৌশলে সড়ক ও নৌপথে মাদক পাচার করছেন। তাদের সমস্ত কৌশলের মূলে আমাদের আঘাত হানতে হবে। তিনি বলেন, নগরীর বরিশাল কলোনিসহ মাদকের আস্তানাগুলো গুঁড়িয়ে দেয়া হয়েছে। মাদকের বিরুদ্ধে অব্যাহত অভিযান চলছে। কারাবন্দিদের সঙ্গে দেখা-সাক্ষাতের সময় কারাগারে কোনো উপায়ে যেন মাদক ঢুকতে না পারে সে ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে। আদালতের হাজতখানায়ও একই পন্থা অবলম্বন করতে হবে। প্রয়োজনে আরো সিসি ক্যামেরা সংযোজন করতে হবে।তিনি বলেন, ভেজাল খাবার বিক্রি রোধসহ বিভিন্ন অপরাধ নিয়ন্ত্রণে সংশ্লিষ্ট প্রশাসন কাজ করে যাচ্ছে। সুস্থ জাতি গঠনে মাদক ও ভেজাল খাবার প্রতিরোধে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। এ ক্ষেত্রে কোনো ছাড় বা শিথিলতা সহ্য করা হবে না। ডিসি বলেন, গরু চুরি রোধ, অবৈধ বালি উত্তোলন ও ব্যাটারি চালিত রিকশা বন্ধের পাশাপাশি সড়কে যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং, রাস্তা দখল করে দোকান নির্মাণসহ বিভিন্ন অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) নুরে আলম মিনা বলেন, জেলার সব উপজেলায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে পুলিশ কাজ করে যাচ্ছে। আদালতের হাজতখানায় প্রয়োজনীয় সংখ্যক আইপি ক্যামেরা বসানো হয়েছে যাতে অভিযুক্তদের সঙ্গে তাদের আত্মীয়স্বজন দেখা-সাক্ষাৎ করার সময় তাদের কাছে ইয়াবা ও অন্য মাদকদ্রব্য পৌঁছে দিতে না পারে। এ ছাড়া সন্ত্রাসী ও জঙ্গি গ্রেপ্তার, মাদক কারবার, চুরি, ডাকাতি ও ছিনতাই রোধে পুলিশের প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

সভায় মাল্টিমিডিয়ার মাধ্যমে গত মাসের খাতওয়ারি অপরাধ চিত্র, সভার সিদ্ধান্ত ও অগ্রগতি তুলে ধরেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. সাইফুল ইসলাম। সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. মো. আজিজুর রহমান সিদ্দিকী, মহানগর মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ইউনিট কমান্ডার মোজাফফর আহমদ, কোস্টগার্ড প্রতিনিধি লেফটেন্যান্ট মো. নাঈমুল হক, জেলা পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) একেএম সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী। সভায় জেলার বিভিন্ন উপজেলা চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার, জেলা প্রশাসন কার্যালয়ের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর, নগর পুলিশ ও জেলা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এই জনপদ'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj