ফুলেল ভালোবাসায় জন্মদিনে সংবর্ধিত পঙ্কজ ভট্টাচার্য

মঙ্গলবার, ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯

কাগজ প্রতিবেদক : পঙ্কজ ভট্টাচার্য। ষাটের দশকের আন্দোলন সংগ্রামে রাজপথের এক অগ্রসৈনিক ছিলেন তিনি। পেয়েছেন বঙ্গবন্ধুর নিবিড় সান্নিধ্যও। একাত্তরের রণাঙ্গন থেকে ফিরে বঙ্গবন্ধুর পায়ের কাছেই তিনি সমর্পণ করেছিলেন নিজের হাতে তুলে নেয়া অস্ত্র।

গতকাল সোমবার পাবলিক লাইব্রেরির শওকত ওসমান মিলনায়তনের মায়াবি সন্ধ্যাটি যেন তারই নামে সুবাসিত হয়ে উঠেছিল হিমেল হাওয়ার কানাকানিতে!

মোমবাতি প্রজ¦লন, ফুলেল শুভেচ্ছা, তথ্যচিত্র প্রদর্শন, কথামালা, গান আর নৃত্যের তালে তালে প্রবীণ ৮০তম জন্মদিনে সংবর্ধিত হলেন অসাম্প্রদায়িক ক্ষমতার কেন্দ্র থেকে দূরে থাকা অমল হৃদয় আর ধবল চুলের রাজনীতিবিদ পঙ্কজ ভট্টাচার্য। ৮০তম জন্মদিন উপলক্ষে পঙ্কজ ভট্টাচার্যের ৮০তম জন্মদিন উদযাপন নাগরিক কমিটি আয়োজিত নাগরিক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আগত বন্ধু স্বজন সহযোদ্ধা বুদ্ধিজীবীরা তাকে ফুলেল ভালোবাসা জানান।

জাতীয় অধ্যাপক আনিসুজ্জামানের সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন বিশিষ্ট পদার্থবিজ্ঞানী ড. অজয় রায়, সাবেক ডেপুটি স্পিকার কর্নেল শওকত আলী, সাবেক শিল্পমন্ত্রী দীলিপ বড়–য়া, নৌপরিবহনমন্ত্রী খালেদ মাহমুদ চৌধুরী, রাজনীতিবিদ মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, সৈয়দ আবুল মকসুদ, মহিলা পরিষদ সভাপতি আয়শা খানম, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুস, পঙ্কজ ভট্টাচার্যের সহধর্মিণী রাখি দাশ পুরকায়স্থ, ঐক্য ন্যাপের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট তারেক, আদিবাসী নেতা, লেখক সঞ্জীব দ্রং প্রমুখ। অনুষ্ঠানে সম্মাননাপত্র পাঠ করেন বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার।

প্রথমে আনন্দলোকে মঙ্গলালোকে গানের মধ্য দিয়ে সংবর্ধিত অতিথিকে মঞ্চে বরণ করে নেন স্পন্দনের শিল্পীরা। এরপর নাগরিক কমিটির পক্ষ থেকে উত্তরীয়, উপহার এবং ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান কমিটির আহ্বায়ক আনিসুজ্জামান।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, দেশপ্রেমের নানা উদাহরণ এদেশে আছে। কিন্তু পঙ্কজ ভট্টাচার্যের দেশপ্রেম আর আন্দোলন সংগ্রামের প্রতি নিষ্ঠা এদেশে এক বিরল দৃষ্টান্ত। দীর্ঘ বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনের অধিকারী পঙ্কজ ভট্টাচার্য তার দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে কখনো ব্যক্তিগত লাভ-লোকসানের হিসাব কষেননি। ক্ষমতার রাজনীতিতে বিশ্বাস করতেন না। আর এ কারণেই সাম্প্রতিক সময়ের নষ্ট রাজনীতির এই প্লাবনেও দেশপ্রেমের ছোট্ট ডিঙ্গি নিয়েই এখনও ভাসছেন তিনি। সাম্প্রদায়িক সহিংসতা যেখানেই আঘাত হেনেছে সেখানে প্রতিবাদ ধ্বনিত করে তিনি উপস্থিত হয়েছেন দুর্গতজনদের মাঝে।

ডান্স অ্যাপ্রিসিশেন কোর্সের উদ্বোধন : শিল্প সমালোচনা, শিল্প অনুধাবন, শিল্প নির্মাণ ও লেখালেখির চর্চার লক্ষ্যেই বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির আয়োজনে শিল্পের পাঁচটি শাখায় ‘শিল্পবোধ ও চেতনা’ শীর্ষক অ্যাপ্রিসিয়েশন কোর্সের আয়োজন করা হয়েছে। কোর্সগুলো হচ্ছে- ফিল্ম, আর্ট, থিয়েটার, মিউজিক ও ডান্স বিষয়ক অ্যাপ্রিসিশেন কোর্স।

শিল্পবোধ ও নান্দনিক চেতনা শীর্ষক অ্যাপ্রিসিয়েশন কোর্সের ধারাবাহিকতায় নৃত্যবিষয়ক পাঠ ও আস্বাদনের মধ্য দিয়ে নৃত্য সমালোচনা ও লেখালেখির চর্চার প্রয়াসে একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার সেমিনার কক্ষে ১০ দিনব্যাপী ডান্স অ্যাপ্রিসিয়েশন কোর্সের উদ্বোধনী অনুষ্ঠিত হয়।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কোর্স পরিচালক জাহাঙ্গীরনগর বিশ^বিদ্যালয়ের নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগের চেয়ারম্যান ড. সোমা মুমতাজ এবং প্রশিক্ষক শর্মিলী বন্দ্যোপাধ্যায়। এ ছাড়াও কোর্সটিতে প্রশিক্ষক হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন ড. আফসার আহমেদ, ড. ইউসুফ হাসান, ড. ইস্রাফিল আহমেদ, ড. ভাস্বর বন্দ্যোপাধ্যায়, তামান্না রহমান, বেনজীর সালাম, মুনমুন আহমেদ, শামীম আরা নীপা, রাফি হোসেন ও সুদেষ্ণা সয়ং প্রভা।

উদ্বোধনী আয়োজনে আরো উপস্থিত ছিলেন একাডেমির প্রশিক্ষণ বিভাগের পরিচালক সুশান্ত কুমার সরকার, সহকারী পরিচালক আবদুল রাকিবিল বারী, কালচারাল অফিসার আফসানা খান রুনা ও ইন্সট্রাক্টর ফিফা চাকমা।

শেষ পাতা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj