ডিটেকটিভ কোয়েল

শনিবার, ৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯

মেয়েছেলে ডিটেকটিভ! সমাজের অনেকেই হয়তো মহিলা গোয়েন্দার কথা শুনলে এখনো এভাবেই ভাবেন। মিতিন মাসির কথায়, সমাজ আমাদের ছোট থেকেই শিখিয়েছে আমরা মেয়েরা অবলা। আমরা ভয় পাই, আমরা অন্যায়ের প্রতিবাদ করতে পারি না। আর প্রতিবাদ করার সাহস না থাকায় আমরা পিছিয়ে যাই। তবে এমন ভাবনারই যোগ্য জবাব দিয়েছেন ‘মিতিন মাসি’।

অরিন্দম শীল পরিচালিত আগামী ছবি ‘মিতিন মাসি’র টিজারে এক্কেবারে রণং দেহি বেশে ধরা দিয়েছেন ‘মিতিন মাসি’ ওরফে কোয়েল। বুঝিয়ে দিয়েছেন মহিলারাও ভালো গোয়েন্দা হতে পারে। দেশ চালানো থেকে যুদ্ধ করা সবক্ষেত্রেই পুরুষদের সঙ্গে সমানভাবে পাল্লা দিতে পারেন মহিলারা। তাদের অশ্রদ্ধা করাটা তাই বোকামো। মিতিন মাসি শিখিয়ে দিয়েছেন ‘মেয়েছেলে’ নয় মহিলা বলাটাই শ্রেয়। রবিবারই প্রকাশ্যে এসেছে ‘মিতিন মাসি’র টিজার। প্রসঙ্গত, এই ছবিতে মিতিন মাসির স্বামীর ভূমিকায় দেখা যাবে শুভ্রজিৎ দত্তকে। বোনঝি টুপুরের ভূমিকায় দেখা যাবে রিয়া বণিককে। এর আগে পরিচালক জানিয়েছিলেন, মিতিন চরিত্রটি এমন একটা চরিত্র যেটা কিনা লিঙ্গবৈষম্যের বিরুদ্ধে কথা বলে। মিতিন একজন গৃহিণী, পাশাপাশি তিনি একজন অত্যন্ত বুদ্ধিমতী মহিলা। এর আগেও আমি বহু গোয়েন্দা গল্প নিয়ে কাজ করেছি। তবে এই মহিলা গোয়েন্দা মিতিন মাসির চরিত্রটি সেগুলোর থেকে অনেক আলাদা। বাংলা ছবিতে সেভাবে মহিলা গোয়েন্দা নিয়ে কোনো ছবি হয়নি বললেই চলে। তবে ঋতু দা (ঋতুপর্ণ ঘোষ) শুভ মহরত করেছিলেন। তবে সেটা সম্পূর্ণ গোয়েন্দা সিনেমা বলা যায় না, সেই অর্থে ‘মিতিন মাসি’ বাংলা ছবিতে প্রথম মহিলা গোয়েন্দা হতে চলেছে বলা যেতে পারে।

সুচিত্রা ভট্টাচার্যের লেখা প্রজ্ঞাপারমিতা মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে হয়তো অনেক বাঙালিরই আলাপ রয়েছে। তবে সিনেমার পর্দায় প্রজ্ঞাপারমিতাকে তুলে আনার চেষ্টা এখনো পর্যন্ত কোনো পরিচালকই করেননি। সে ক্ষেত্রে ‘মিতিন মাসি’ পর্দায় আনার প্রথম উদ্যোগ নিয়েছেন পরিচালক অরিন্দম শীলই। সুচিত্রা ভট্টাচার্যের ‘হাতে মাত্র তিনদিন’-এর গল্প অবলম্বনে তৈরি হচ্ছে এই ছবি।

মেলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj