শার্ল ওগ্যু¯ঁÍা দ্য কুলোঁ

বৃহস্পতিবার, ২২ আগস্ট ২০১৯

শার্ল ওগ্যুস্তাঁ দ্য কুলোঁ (জন্ম ১৪ জুন, ১৭৩৬; মৃত্যু ২৩ আগস্ট, ১৮০৬) একজন ফরাসি পদার্থ বিজ্ঞানী। ১৭৩৬ সালের ১৪ জুন ফ্রান্সের অঙ্গুলেমে তার জন্ম। তিনি সামরিক প্রকৌশলীর পেশা বেছে নিয়েছিলেন কিন্তু শারীরিক আঘাতের কারণে তাকে তিন বছর মার্টিনিকের ফোর্ট বুরবনে কাটাতে হয়। পুনরায় কাজে যোগদান করে তিনি লা রোশেল, আইল অফ এইক্স এবং শেরবুর্গে দায়িত্ব পালন করেন। ১৭৮১ সালে তাকে প্যারিসে স্থায়ীভাবে নিয়োগ দেয়া হয়, কিন্তু ১৭৮৯ সালে ফরাসি বিপ্লবের প্রারম্ভে তিনি ‘এটেন্ডেন্ট অফ ওয়াটার এন্ড ফাউন্টেইন্স’-এর পদ থেকে পদত্যাগ করেন। বিদ্রোহী সরকারের জারিকৃত ফরমান অনুযায়ী ওজন ও মাপের নতুন মানদণ্ড তৈরির কাজে অংশগ্রহণ করার জন্য তাকে আবার প্যারিসে ডেকে পাঠানো হয়। তিনি ছিলেন ন্যাশনাল ইনস্টিটিউটের প্রথম সদস্যদের একজন। ১৮০২ সালে তাকে ‘ইন্সপেক্টর অফ পাবলিক ইন্সট্রাকশন’ হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়। কিন্তু ততদিনে তার স্বাস্থ্য অত্যন্ত দুর্বল হয়ে পড়ে। কুলম্ব যন্ত্রকৌশল এবং তড়িৎ ও চুম্বকতার ইতিহাসে বিশেষ স্থান দখল করে আছেন। তিনি ১৭৭৯ সালে ঘর্ষণের সূত্র সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ আবিষ্কার প্রকাশ করেন। এর ২০ বছর পর প্রকাশিত হয় সান্দ্রতা বিষয়ক স্মারক রচনা। ১৭৮৫ সালে প্রকাশিত হয় তার গবেষণাপত্র ‘ধাতুর উপর বিকৃতি বলের প্রয়োগ ও স্থিতিস্থাপকতা সংক্রান্ত পরীক্ষা ও তত্ত্ব’। এই রচনায় তিনি ‘টরসন ব্যালান্স’ যন্ত্রের বিভিন্ন ধরনের গঠনের বর্ণনা দেন। এই যন্ত্রটি তিনি অত্যন্ত সাফল্যের সঙ্গে ব্যবহার করেন আধানের তলমাত্রিক বিস্তার এবং তড়িৎ চুম্বক বলের সূত্র পরীক্ষার কাজে। তড়িৎ চুম্বক বলের গাণিতিক তত্ত্ব আবিষ্কারের পথপ্রদর্শক হিসেবে তিনি বিবেচিত। আধানের একক কুলম্ব এবং কুলম্বের সূত্র তার নামানুসারে নামকরণ করা হয়েছে।

উইকিপিডিয়া অবলম্বনে

মুক্তচিন্তা'র আরও সংবাদ
গাজী মহিবুর রহমান

অনুগ্রহ করে ঘরে থাকুন

আর কে চৌধুরী

আমরা যেন হেরে না যাই

সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী

ফোর্স নয়, সেবকও নয়, বন্ধু চাই

নিতাই চন্দ্র রায়

এই যুদ্ধে জয়ী হতে হবে

ড. মো. তাসদিকুর রহমান

আসুন সরকারের নির্দেশনা মানি

মমতাজউদ্দীন পাটোয়ারী

ব্যক্তিগত আক্রমণ গ্রহণযোগ্য নয়

সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী

ঐক্যের বিকল্প কিছু নেই

Bhorerkagoj