কমনওয়েলথে ফিরছে ক্রিকেট

বৃহস্পতিবার, ১৫ আগস্ট ২০১৯

খেলা ডেস্ক : বর্তমানে যে কোনো বয়সের ক্রীড়াপ্রেমীদের জনপ্রিয় খেলা হচ্ছে ক্রিকেট। তাই ক্রিকেট ভক্তদের জন্য সুখবর হলো কমনওয়েলথ গেমসে ফিরছে ক্রিকেট। আগামী ২০২২ সালে বার্মিংহামে বসবে পরবর্তী কমনওয়েলথ গেমস। এবারের আসরের মধ্য দিয়ে দীর্ঘ ২৪ বছর পর কমনওয়েলথ গেমসে ফিরছে ক্রিকেট। তবে আপাতত নারীদের টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট দিয়ে এই ইভেন্ট ফেরাতে যাচ্ছে কমনওয়েলথের আয়োজক সংস্থা। ঐতিহাসিক এই গেমসে শীর্ষ আট দেশকে নিয়ে এবার যাত্রা শুরু করবে ক্রিকেট ইভেন্ট। সব ম্যাচই অনুুষ্ঠিত হবে এজবাস্টনে এবং ক্রিকেটের লড়াই চলবে ৮ দিন। গত বছরের নভেম্বরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি) ও ইংল্যান্ড এন্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি) ক্রিকেটকে যুক্ত করতে যৌথভাবে আহ্বান জানান। গত পরশু তারই সাড়া দেয় কমনওয়েলথ গেমস ফেডারেশন। তারা জানায়, কমনওয়েলথ গেমসের ৭১টি এসোসিয়েশন ক্রিকেটকে যুক্ত করতে ভোট দিয়েছে।

এর আগে সর্বশেষ ১৯৯৮ সালে কমনওয়েলথ গেমসে ক্রিকেট অন্তর্ভুক্ত ছিল। সেবার ম্যাচ হয়েছিল ৫০ ওভারের। কুয়ালালামপুরে অনুষ্ঠিত ফাইনালে অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে স্বর্ণপদক জিতেছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। এরপর দীর্ঘ দুই যুগ ধরে ঐতিহাসিক এই গেমসে আর ক্রিকেটের দেখা মেলেনি। অবশেষে সবাইকে চমক দিয়ে আবারো কমনওয়েলথ গেমসে অন্তর্ভুক্ত হয়েছে ক্রিকেট।

গতকাল ১৩ আগস্ট ক্রিকেটকে ফেরানোর সিদ্ধান্ত জানায় আয়োজক সংস্থা। এ প্রসঙ্গে কমনওয়েলথ গেমস ফেডারেশনের প্রেসিডেন্ট ডেম লুইস মার্টিন বলেন, এটা ঐতিহাসিক একটি দিন। কমনওয়েলথ গেমসে ক্রিকেটকে ফেরাতে পেরে আমরা বেশ আনন্দিত।

তবে ২০২২ সালে কমনওয়েলথ গেমসে ক্রিকেটের আয়োজন ফেডারেশনের অধীনে হলেও আইসিসি সব ধরনের সহায়তা দেবে। ম্যাচ রেফারি ও আম্পায়ার তারাই নিয়োগ দেবে। আইন-কানুন সঠিকভাবে প্রয়োগ করা হচ্ছে কিনা সেটাও খেয়াল রাখবে শীর্ষ ক্রিকেট সংস্থা।

কমনওয়েলথে ক্রিকেটকে ফেরানোর প্রতিক্রিয়ায় আইসিসির প্রধান নির্বাহী মানু সোহনি বলেছেন, নারীদের ক্রিকেট ধীরে ধীরে অন্য উচ্চতায় চলে যাচ্ছে। আমরা খুবই খুশি যে, কমনওয়েলথ কর্তৃপক্ষ তাদের বড় আসরে ক্রিকেট ইভেন্ট পুনরায় চালু করেছে। যারা এর পক্ষে ভোট দিয়েছেন, তাদের সবাইকে ধন্যবাদ। টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট কমনওয়েলথ গেমসের জন্য উপযুক্ত। আশা করছি, দারুণ কিছু পেতে যাচ্ছে পুরো

বিশ^।

খেলা-ধূলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj