ক্রিকেটে আসছে স্মার্ট বল

বৃহস্পতিবার, ১৫ আগস্ট ২০১৯

খেলা ডেস্ক : প্রযুক্তিনির্ভর বর্তমান সময়ের দাবি অনুযায়ী পরিবর্তন ঘটতে চলেছে ক্রিকেটে। ব্যাট, জার্সি এবং নিয়মের পরে এবার ক্রিকেটের বলে অভাবনীয় এক পরিবর্তন নিয়ে আসছে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট সরঞ্জাম প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান কুকাবুরা। বলের ভেতরে বিশেষায়িত এক ধরনের মাইক্রোচিপ ঢুকিয়ে দিয়ে স্মার্ট বল ব্যবহারের কথা বলছে প্রতিষ্ঠানটি। বিগ ব্যাশের আসন্ন মৌসুমেই এই বল দিয়ে খেলার কথা ভাবা হচ্ছে।

সাদা ও লাল বলের পরে এসেছে গোলাপি বল। দিন-রাতের টেস্টে গোলাপি বলে ম্যাচ করার পরে এবার আইসিসির নবতম উদ্যোগ মাইক্রোচিপ বল। নতুন ধরনের বলটি নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষার শেষ ধাপে রয়েছে। এটি চালু করে প্রতিদ্ব›দ্বী ক্রীড়া সরঞ্জাম প্রতিষ্ঠান ডিউককে পেছনে ফেলতে চায় কুকাবুরা। এই স্মার্ট বলের বেশ কিছু সুবিধা রয়েছে। বলের গতির তাৎক্ষণিক পরিসংখ্যান দেবে স্মার্ট বল। আর সেটি কয়েক ধাপে বল ছাড়ার সময়ের গতি, বাউন্স করার আগের গতি এবং বাউন্স করার পরের গতি। আর এ ব্যাপারে স্মার্ট বলের তথ্য হবে আরও নিখুঁত। আম্পায়ারদের ডিসিশন রিভিউ সিস্টেমেও (ডিআরএস) স্মার্ট বল যেন ভালো ভূমিকা রাখতে পারে তা নিয়েও কাজ করা হচ্ছে। বিশেষ করে কট বিহাইন্ড কিংবা এলবিডব্লিউর ক্ষেত্রে বল ব্যাটে লেগেছিল কি না, সে ব্যাপারে নিখুঁত সিদ্ধান্ত নেয়া যাবে। সন্দেহজনক ক্যাচের ক্ষেত্রেও নিখুঁত সিদ্ধান্ত নিতে প্রস্তুত করা হচ্ছে স্মার্ট বলকে।

কোকাবুরা জানিয়েছে, স্মার্ট বল হিসেবে ডাকা হবে নতুন প্রযুক্তিনির্ভর এই বলকে। যার মাধ্যমে স্মার্ট ঘড়ি থেকে শুরু করে ফোন অ্যাপ ও অন্যান্য মাধমে নেওয়া যাবে তথ্য। কোকাবুরা আরো জানিয়েছে, আপাতত আগামী বছরের বিগ ব্যাশ লক্ষ্য করে মাঠে এর প্রয়োগের ইচ্ছা তাদের। তবে ওয়ানডে ক্রিকেটে ব্যবহারের আগে পরীক্ষামূলকভাবে তা ব্যবহার করা হবে বিভিন্ন টি-টোয়েন্টি লিগে। অত্যাধুনিক প্রযুক্তির এই ক্রিকেট বলের কাজ অবশ্য চলছিল দুই বছর ধরে। অদূর ভবিষ্যতে টেস্ট ক্রিকেটেও এই বল আনার পরিকল্পনা করছে সংস্থাটি।

ইংল্যান্ডে চলতি অ্যাশেজ সিরিজে নেট অনুশীলনে এ বল ব্যবহার করা হয়েছে। লর্ডসে ইনডোর নেট অনুশীলনেও এ বল ব্যবহার করেছেন ইংলিশ ব্যাটসম্যান জস বাটলার। তিনি টেস্ট ক্রিকেটে দেখতে চান স্মার্ট বলকে। সর্বোচ্চ পর্যায়ের কোচিংয়ে এ বল ভীষণ কাজে লাগবে বলে মনে করেন তিনি, কোচিংয়ের জন্য এটা খুব কাজে লাগবে। তাৎক্ষণিক তথ্য পাওয়াটা হবে দারুণ ব্যাপার। মনে হচ্ছে সাধারণ বলের মতোই আচরণ করবে। খেলায় এখন যেসব বল ব্যবহার করা হয় স্মার্ট বলের সেসব বলের মতো আচরণ (সুইং, বাউন্স, স্পিন) করাই হবে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ।

খেলা-ধূলা'র আরও সংবাদ
Bhorerkagoj